Link copied!
Sign in / Sign up
26
Shares

স্বামী যে ১০ টি মিথ্যে কথা তার স্ত্রী কে বলে থাকে


১.জামাটি দেখতে বেশ ভালো:
আপনার স্বামী আপনার পছন্দ বা অপছন্দ নিয়ে বেশি হস্তক্ষেপ করে না। তিনি কর্তব্যপরায়ণ, কিন্তু আপনার অনুভূতি তার কাছে বিশেষ ব্যাপার।
একটি ভালো পোশাক যদি আপনার পছন্দ হয় এবং সেটি যদি সঠিক মাপ মতো নাও হয়, আপনার স্বামী সেই কথা আপনাকে বলতে নাও পারে।


২.আমি ১০ মিনিটের মধ্যে রওনা দিচ্ছি :
আপনার স্বামী যতক্ষন নিজের কর্ম জীবনে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছেন ততক্ষন সে নিজের কাজ শেষ করে বাড়ি ফেরার জন্য সময় নিচ্ছে। সম্ভবত তিনি জানেন যে তিনি আপনাকে যতটা সময় দিতে যাবে তার কিছু সময় সে বিস্রাম এর জন্য নিতে পারেন।
বেশি সময় ধরে কাজ, কাজের ফাঁকে আধিবেশন এবং আরো বিভিন্ন ধরনের পরিস্থিতি সামাল দেবার জন্য কোনো ছোট্ট মিথ্যে বলার ফলে খুব বেশি ক্ষতি হবে না বলে তিনি মনে করেন।

৩.আমি সামলে নেবো
অহংকারী পুরুষ মানুষ ব্যর্থতা মেনে নিতে পারে না, এই কথাটি আশা করি মানবেন। তারা কঠিন পরিস্থিতিতে কোনো জিনিসের দায়িত্ব গ্রহণ করতে ভালোবাসে।
এই রকম পরিস্থিতি যেমন খুশি হতে পারে, যেমন বিল পরিশোধ করার জন্য পরিষেবা প্রদানকারীর উপর যে কর ধায্র্য করা হয়েছে তা নিয়ে বাদানুবাদ হতে পারে।
কিন্তু কখনো কখনো এটি শুধু একটি বড় বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করতে পারে।

৪.এটা আমার সমস্যা

এটি মধ্যে কিছু প্রতিবন্ধকতা আছে,যা বাচ্চার কান্নার মতো শুনতে লাগে। তবুও তিনি মানসিক বিপর্যয়ের মধ্যে দিয়ে নিজেকে প্রতিরক্ষার ব্যবস্থা করে নেয়।

৫.টেলিফোনে ব্যস্ততা

আপনি আপনার স্বামীর সাথে চলচ্চিত্রে যাবার পরিকল্পনা করেছেন। তিনি আপনাকে নিদৃষ্ট স্থান এবং নিদৃষ্ট সময়ে অপেক্ষা করতে বলেছেন। কিন্তু সেই সময়ে আপনার ফোন ব্যস্ত থাকার কারণে তিনি আপনাকে এই প্রকার কথা বলে থাকে।
ফোনটা সব সময় ব্যস্ত থাকে, আমি তোমার জন্য অপেক্ষা করছিলাম। এটি এক প্রকার আপনাকে দোষারোপ করা। সেই সময়ে নতুন কোনো পরিকল্পনা না করে আপনাকে বিভিন্ন ভাবে কটূক্তি করে থাকে।

৬.ইচ্ছের বিরুদ্ধে

আপনার ইচ্ছে থাকুক বা নাই থাকুকআপনার স্বামীর যদি ইচ্ছা হয় তবে সে আপনাকে কখনো বাধ্য করবে না। কিন্তু তিনি গোপনে এমনকি প্রয়োজন হলে সে মধ্যরাতে তোমার মন পরিবর্তন করে নেবে।

৭.আমি মেয়েটির দিকে তাকাইনি

এখানে স্বামীর এমন কিছু জিনিস আছে স্ত্রীদের সামান্য লক্ষ্য রাখতে হবে। পুরুষ মানুষ আকর্ষণীয় নারীদের লক্ষ্য করে,
যা আপনি সম্পূর্ণ ভাবে থামাতে পারবেন না। কিন্তু এমন কোনো কাজ করতে দেখে আপনি যদি আপনার স্বামী কে ধরে ফেলেন তবেই কোনো সমস্যার সূত্রপাত হবে।

৮.অতীতকে গুরুত্ব না দেওয়া

ভালো কথা হলো যে আপনার স্বামী তার অতীত সম্পর্কে আপনার কাছে সৎ থাকতে হবে। কিন্তু এটা যাই হোক তিনি কোনোকিছু অতিক্রম করে করতে পারবেন না।
অতীতে যা কিছু ঘটে থাকুক, বর্তমানে সে তোমাদের সাথে জায়গা করে নেবে। আপনিও তার অতীতে ঘটে যাওয়া ঘটনার সীকারোক্তিকে মার্জনা করে নিজের জীবন কে সুন্দর করে গড়ে তুলুন।

৯.নিজের অহংকার

আপনার স্বামী কখনো আপনাকে নিজের বড়াই করে বলেননি যে তিনি একজন ভালো মানুষ অথবা তিনি খুব বুদ্ধিমান। তিনি সবসময়ে নিজের অহংকার নিয়ে ব্যাস্ত থাকবে।
তিনি চাইবেন তাকে যেন কেউ অনুসরণ করে এবং তিনি চান যে নিজের স্ত্রী যেন তাকে বোঝে।

১০.আমি শপথ করছি, আমি সবসময় সত্য বলব

এটা বিষয়ভিত্তিক হতে পারে অথবা মাঝে মাঝে স্বামী করতে কার্যকরী হতে পারে না, কিন্তু তিনি তোমাকে আঘাত বা কষ্ট দিতে চান না। শুধু এই পরিস্থিতির থেকে সরে আসতে বা বাঁচাতে চায়।
Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon