Link copied!
Sign in / Sign up
2
Shares

স্বাধীন বাচ্চাদের উত্থাপন


কেউ এটি সম্পর্কে চিন্তা করতে চায় না কিন্তু এমন সময় আসবে যখন আপনার সন্তান সব সময় আপনার পাশে থাকবে না এবং এটি আপনার সন্তানের প্রস্তুতির জীবনের জন্য খুব প্রয়োজনীয়।একটি সময়ে তারা নিজের লোকজনকে ছেড়ে দিয়ে চলে যাবে অন্য জীবন খুঁজতে, এবং এটি একটি খারাপ জিনিস নয়।সমানভাবে মূল্যবান মুহুর্ত আসবে, যা আপনার সন্তানের এমন কিছুকে এক্সেল করে দেখাবে যা সে আপনার সাহায্যের জন্য কখনো জিজ্ঞাসা করেনি বা করবেও না।

১. ছোট কাজে নিয়োগ করুন

ছোট কাজ শুরু করান এবং আপনার সন্তানকে একটি সহজ টাস্ক করতে দিন, যেমন দুধ কুপন বিলানো বা আপনার প্রতিবেশী এর বাড়ির কিছু জিনিস দিয়ে আসা।এটা ছোট মনে হতে পারে কিন্তু যখন আপনার সন্তান দেখে যে সে এটি নিজেই করছে, এবং আপনি কাজটি নিবেদন করছেন তাকে যথেষ্ট বিশ্বাসের সাথে, এটি তাদের আত্মবিশ্বাসকে বাড়িয়ে তুলবে এবং তাদের গুরুত্বপূর্ণ অনুভূতি বেড়ে উঠবে।

বাচ্চারা বড় হয়ে গেলে, বিল দেওয়ার সময় বা অ্যাপয়েন্টমেন্টের সময় তাদের সাথে নিয়ে যান, নিশ্চিত করুন যে তারা কীভাবে কাজ করে তাদের ধারণাটি পাওয়া যায়।

২. সবসময় তাদের ধরবেন না

বাবা মা হিসেবে আপনার সন্তানের ব্যর্থতা দেখতে শিখুন এবং সেটা রোধ করার ক্ষমতা দেখান।এটা বুঝতে হবে ব্যর্থতা শেখার সবচেয়ে ভাল উপায়। তাদের জানতে হবে যে তারা তাদের রক্ষা করার জন্য সবসময় আপনার উপর নির্ভর করতে যেন না হয়, এবং তাদের নিজেদের উপর ভর করে দাঁড়াতে হবে। এটি খেলার মাঠের প্রথম পতন বা তাদের প্রথম হরতাল হতে পারে।একটি দূরত্ব থেকে দেখতে চেষ্টা করুন।

৩. একা থাকতে দিন

এটা ভীতিকর বলে মনে হতে পারে, তবে তাদের বয়স বাড়ার সাথে সাথে তাদের একা ছাড়ার চেষ্টা করুন। তারা ইতিমধ্যেই পরিচিতি এই ধারনাটি তাদেরকে নিরাপদ জায়গা তৈরী করতে সাহায্য করবে।এক ঘুমোতে দিন এবং তাদেরকে একা ভ্রমণ করতে দিন।তারা বড় হয়ে গেলে, তাদের গ্রীষ্মকালীন ক্যাম্পে বা স্কুল ভ্রমণের জন্য পাঠান। তারা তাদের বিবেচনার ভিত্তিতে কিভাবে ব্যবহার করবে সেটা শেখা প্রয়োজন।

৪. খুব একা করবেন না

আপনার শিশুটিকে হটাৎ কোনো নতুন পরিবেশে ফেলে দেবেন না যেটাতে সে অপ্রস্তুৎ হয়ে পরে।বরং ধীরে ধীরে একটি প্রক্রিয়া মেনে চলুন যাতে সে তৈরী থাকতে পারে বিশেষত সেইসব বাচ্ছাদের জন্য যারা একটু বেশি আরামপ্রিয় এবং ভীত।

এছাড়াও আপনার সন্তান যেন আপনার দেয়া স্বাধীনতাকে যেন অপব্যবহার না করে সেটাও মাথায় রাখতে হবে।মনে রাখবেন নিয়ন্ত্রণ যেন সঠিক মাত্রায় যেন বজায় থাকে।এছাড়া এটাই মাথায় রাখা উচিত তারা যেন ব্যর্থ হওয়ার পরেও যেন আপনার সাথে কথা বলতে সংকোচবোধ না করে।

৫. উত্সাহিত করা

যাইহোক ছোট কৃতিত্ব দিতে, সবসময় আপনার সন্তানের প্রশংসা করতে ভুলবেন না। এটা ছোট চেষ্টা হলেও তাদের সফল করতে এই উদ্দীপনা প্রদান করা যেতে পারে।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon