Link copied!
Sign in / Sign up
2
Shares

স্তন্যপান বন্ধ করার সাথে সাথে শরীরে কি কি পরিবর্তন আসে জানেন?


বুকের দুধ খাওয়ানো বন্ধ করার 'নিখুঁত' সময় প্রতিটি মায়ের জন্য ভিন্ন। কিছু মায়ের জন্য, তাদের বাচ্চার সাথে মানসিক বন্ধনে জড়িয়ে পড়ার জন্যে  বুকের দুধ খাওয়ানো বেশ দেরিতে বন্ধ করতে হয়, আবার কিছু মায়েদের জন্যে শারীরিক কারণে স্তন্যপান করানো বন্ধ করতে হয়। বেশীরভাগ মায়েরা অবহেলা করেন যে স্তনপান বন্ধ করার পর তাদের শরীরের যাবতীয় প্রভাব দেখা দিতে পৰ স্বাভাবিক। তাই, দুধ খাওয়ানোর সম্ভাব্য শারীরিক ও মানসিক পরিবর্তন কি কি হয় জানুন!

 

১. মানসিক পরিবর্তন

আপনি যখন বুকের দুধ খাওয়ানো বন্ধ করেন, তখন অস্বস্তি বোধ করা অসম্ভব নয়। কিছু মায়েরা উত্তেজনা বা অস্বস্তি বোধ করতে পারে। সাধারণত, কয়েক সপ্তাহ পর এই অনুভূতিগুলো বন্ধ হয়ে যায়। যদি তারা এই মানসিক পরিবর্ত তীব্র হয় বা কয়েক সপ্তাহের বেশি চলতে থাকে তবে আপনার গাইনোকোলজিস্টের সাথে পরামর্শ করুন। এই মেজাজ পরিবর্তন হরমোন পরিবর্তনের (প্রোল্যাকটিন এবং অক্সিটোসিন নেমে যাওয়া) ফলে ঘটে থাকে যা স্তন্যপান শুরু করার সময় বেশ উচ্চ থাকে। এটি কোনো  অসাধারন আবিষ্কার নয়, যেহেতু প্রল্যাকটিন নিরুদ্বেগ অনুভব করতে সহায়তা করে, যেখানে অক্সিটোসিনকে সাধারণত 'অনুভূতিহীন' হরমোনে বলা হয়। স্তনের দুধ খাওয়ানোর মাধ্যমে মা ও তার সন্তানের মধ্যে শারীরিক ও মানসিক ভারসাম্য শক্তিশালী হয়ে ওঠে। অতএব, এটি শেষ হলে, শোকের অনুভূতি হওয়া স্বাভাবিক, কারণ আপনার জীবনের একটি বিশেষ পর্যায়ে শেষ হয়েছে।

 

২. আপনার দুধ সম্পূর্ণরূপে শুকিয়ে যাওয়ার জন্য কিছু সময় লাগতে পারে

মায়ের দুধ খাওয়ানো বন্ধ করে দেওয়ার পরও বেশ কয়েকদিন অল্প অল্প দুধ বের হওয়া স্বাভাবিক। স্তনের দুধ শুকিয়ে যাওয়ার সময়টি প্রতিটি মায়ের জন্য ভিন্ন। যারা দীর্ঘদিন ধরে বুকের দুধ খাওয়ায়, তাদের জন্য অনেক সপ্তাহ লাগতে পারে, এমনকি মাসও। স্তন্যপান একটি সরবরাহ-চাহিদা প্রক্রিয়াকরণ; যত বেশি দুধ খালি করা হয়, তত বেশি দুধ তৈরি হয় এবং উল্টোটাও হয়। দুধের প্রচুর পরিমাণ থাকলে দুধ খাওয়ানো শুরু হলে (যখন আপনার শিশুকে প্রায়ই খাওয়ানো হয়), তখন আপনার স্তনদুগ্ধ দীর্ঘ সময় লাগতে পারে কম হতে এবং অবশেষে দুধ উত্পাদন বন্ধ হয়ে যায়।

 

৩. আপনার মাসিক চক্র ফিরে আসতে পারে

অনেক মায়েদের জন্য, যখন তারা একইরকম ভাবে বুকের দুধ খাওয়ান তাদের মাসিক চক্র ফিরে আসে না। প্রকৃতপক্ষে, বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় বিশেষভাবে 'ল্যাকটেশনাল আমেনোরিয়াহা পদ্ধতি' নামে জন্ম নিয়ন্ত্রণের কোনো সুপরিচিত ক্রিয়া নেই। যখন আপনি স্তন্যপান শুরু করবেন, তখন আপনার মাসিক চক্র ধীরে ধীরে শুরু হবে বলে আশা করা যায়। যাইহোক, এর মানে এই নয় যে স্তন্যপান করানোর সময় কেউ গর্ভবতী হতে পারে না।

 

 

৪. আপনার স্তন তাদের পূর্ব আকার ফিরে পেতে পারে 

একবার আপনার শিশু দুধ খেতে শুরু করলে দুধের তৈরি কোষ সংকুচিত হয়ে যায়। আর স্তন্যপান বন্ধ হলে ফ্যাট কোষগুলি আবার  স্থাপন হয়ে আপনার স্তন তাদের প্রাক-গর্ভাবস্থার আকারে ফিরে আসবে। এটি বেশ কয়েক সপ্তাহ লাগতে পারে।

 

৫. আপনি স্টোন কিছু লাম্প বিকাশ হতে পারে

যখন স্তন্যপান করানোর  হঠাৎ করে বন্ধ যায়, তখন আপনি কিছু নিখুঁত, ব্লকযুক্ত লাম্প অনুভব করতে পারেন, যা দীর্ঘ সময় ধরে থাকবে না। তবে, যদি একটি বহু সময় ধরে থাকে তবে ব্লকটি পরিষ্কার করার জন্য অস্থায়ীভাবে (যেমন হাত দিয়ে টিপে দুধ বের করা) সারানো যেতে পারে। লাম্পগুলি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কমানো উচিত ও তার জন্যে দুধ বের করে দেয়া খুব জরুরি।তাই এই সময় নিজের স্তনের দিকে খেয়াল রাখা খুব জরুরি।

 

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon