Link copied!
Sign in / Sign up
0
Shares

স্তনপান করানোর সময় হেয়ার কালার ব্যবহার কি ঠিক?

প্রসবের পরে জীবনের সব কিছুই বদলে যায়। জামাকাপড় রাখার জায়গা থেকে পোশাকের মাপ প্রতিটি জিনিস। আর এই সময় একটু স্টাইল করতে প্রায় প্রতিটি মহিলাই চায়। ৯ মাস সেই একই ধরনের জামাকাপড় পড়তে পড়তে সেগুলির উপর বিরক্তি জন্মানো মোটেই কিছু অস্বাভাবিক নয়। জামাকাপড় নিয়ে কিছু বলার না থাকলেও কিছু বিষয় আছে ,যাখানে নতুন মায়েদের একটু সাবধান হাওয়ার প্রয়োজন আছে। এমন না হলে তার সরাসরি প্রভাব পড়তে পারে বাচ্চার শরীরের উপরে। বিশেষত কোনও ধরনের স্কিনকেয়ার বা হেয়ারকেয়ার করার আগে ভালোভাবে ভাববেন। কারণ এই সময় মায়ের শরীরে কোনও কেমিকেলের ব্যবহার বিপদ ডেকে আনতে পারে।

৯ মাস একই ভাবে থাকার পর একটু সাজতে সবার ভালো লাগে! তবে একটাই প্রশ্ন, স্তনপান যখন চলছে তখন কি নতুন মায়েরা চুলে রং করতে পারবেন? এই সময় চুলে কালার করা যেতেই পারে, তবে কতগুলি পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। তাহলেই দেখবেন বাচ্চার আর কোনও ক্ষতি হবে না। প্রথমেই যে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে, তা হল সেই ধরণের চুলের রং ব্যবহার করা যাবে, যার মধ্যে কোনও ধরনের টক্সিক উপাদান নেই। তবুও যেন একটা প্রশ্ন থেকেই যায়, রং যতই ক্ষতিকর না হোক, তা কি সত্যিই বাচ্চার উপর প্রভাব ফেলে না?

চুলের রং-এ থাকে নানা ধরনের কেমিকাল:

চুলে কালার করার আগে জেনে নেবেন তাতে কী কী ধরণের কেমিকাল ব্যবহার করা হয়েছে। সাধারণত চুলের কালারে থাকা কেমিকেল মাতার ত্বকের মধ্যে দিয়ে গিয়ে রক্তে মেশে না। তাই অকারণ চিন্তা করার কোনও কারণ নেই। তাই নতুন মায়েরা নিশ্চিন্তে চুলে রং লাগাতেই পারেন।

রং লাগান চুলে, স্কাল্পে নয়:

যদি কোনও হেয়ার কালার লাগানোর বিষয়ে আপনি নিশ্চিন্ত হতে পারছেন না। তাহলে অন্য কোনো কোম্পানির কালার ব্যবহার করুন। খেয়াল রাখুন স্কাল্পে সেই রং যেন না লাগে। প্রয়োজন হলে একজন ভালো হেয়ার স্টাইলিস্টের পরামর্শ নিতে পারেন। তাতে আপনি অনেকটাই চিন্তা মুক্ত হবেন।

 

ভেজিটেবল কালার:

হেয়ার কালার বাচ্চার উপর কোনো ভাবে প্রভাব ফেলবে না তো? এই নিয়ে যদি চিন্তায় থাকেন, তাহলে ভেজিটেবল কালার ব্যবহার করুন। এতে কোনো ভাবেই কেমিকাল থাকে না, এই কেমিক্যাল বাজার চলতি নানা চুলের রঙে থেকে থাকে। হেনা এক্ষেত্রে ভালো। কারণ এটি চুলকে কালার প্রদান তো করেই, সেই সঙ্গে চুলের স্বাস্থ্য ভালো রাখে।

বাড়িতেই হেয়ার ডাই করুন:

যদি আপনি পছন্দ করেন তবে অর্গেনিক হেয়ার কালার কিনে বাড়িতে নিজে নিজেই সেটা করে ফেলুন। তবে মনে রাখবেন কালার লাগানোর সময় ভালো একটা গ্লাভস পরবেন আর অনেকক্ষণ কালারটা চুলে লাগিয়ে রাখবেন না। সেই সঙ্গে কয়েকটি নিয়ম মানতে হবে। যেমন- ভালোভাবে হাওয়া-বাতাস খেলে এমন ঘরে কালার করবেন এবং রং করার পর চুল ভালো করে ধুয়ে নেবেন। চুলে যাতে কোনও ভাবে রং লেগে না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

অস্থায়ী চুলের কালার ব্যবহার করুন:

সন্তানের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে এই সময় কোনও ধরনের স্থায়ী রং ব্যবহার না করাই ভালো। খুব যদি হেয়ার কালার করতে ইচ্ছাই হয়, তাহলে অস্তায়ী কালার লাগান। তাতে আপনার সৌন্দর্য তো বাড়বেই, সেই সঙ্গে বাচ্চার ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও কমবে।

 

 

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon