Link copied!
Sign in / Sign up
0
Shares

স্তনের সুস্বাস্থ বজায় রাখতে মেনে চলুন এগুলি


স্তনের সুন্দর রং পাওয়ার পাশাপাশি, মনে রাখতে হবে স্তনের ভাল স্বাস্থ্যও প্রয়োজন। আপানর খাদ্য তালিকা, শরীর চর্চা, শরীরকে ব্যবহার করা ইত্যাদির প্রভাব আপনার স্তন এবং বোঁটায় পড়ে। চলুন আমারা এই জন্য কিছু টিপস জেনে নিই :


১. সঠিক খাদ্য ব্যবহার 

অনেক অধ্যয়ন ও গবেষণায় প্রমানিত হয়েছে যে কিছু স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে। এই ধরণের ফল এবং শাকসবজিতে যা অ্যান্টি – অক্সিডেন্ট সমূহের উপস্থিতি থাকে এবং এগুলি গ্রহণ করলে আপনার জন্যে যত্নও নেয়। আপনার স্তনের যত্নের জন্যে তিসি দানা, আখরোট, মাছের তেলের ওমেগা -৩ ফ্যাটি, ক্র্যানবেরি, ডিম, অ্যাভোকাডো  ইত্যাদি আপনার খাদ্য তালিকায় যোগ করা আবশ্যক।

২. ব্যায়াম

এক সপ্তাহের মধ্যে ৪ ঘন্টার জন্য শরীর চর্চা করলে শরীরে ইস্ট্রজেন-এর মাত্রা কমে যায় এবং আপনি স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধে সক্ষম হয়।


৩. ধূমপান বন্ধ করুন

ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্যে অনেক রোগ নিয়ে নিয়ে আসে। এর মধ্যে আছে স্তন ক্যান্সার  এবং গর্ভ ধারণে বাধা। যে সব নারী ধূমপান করেন তাঁদের স্তন ক্যান্সার এর সম্ভাবনা অ ধূমপায়ী নারীদের থেকে ৩০% বেশি।

৪. মদ্যপান বন্ধ করুন

এটা ধূমপানের মত অত ক্ষতিকর নয়। অল্প পরিমাণে এলকোহল ঠিক কিন্তু অধিক পান শুধুমাত্র আপনার শরীরের অঙ্গের ক্ষতি করে তাই নয়, এটা আপনার পেশীকে শক্ত করে দেয়। গবেষণা থেকেও প্রমাণিত হয় অত্যধিক মদ্যপানের জন্যে স্তন ক্যান্সার হতে পারে।


৫. নিদ্রা কালীন দেহ ভঙ্গী 

ভাল ভাবে স্তন বৃন্তের যত্নের জন্য আপনার শোওয়ার অবস্থান প্রতি সতর্ক হন। আপনার পেটের উপর শুলে আপনার স্তন এবং পাকস্থলীর উপর চাপ পড়ে এবং একে বাড়তে দেয় না।এটি একদমই আপনার জন্য স্বাস্থ্যকর নয়।

সব শেষে, আপনার মনে রাখা উচিত যে সমগ্র স্তনের স্বাস্থ্য ভাল থাকলেই আপনি উজ্জ্বল এবং ভাল স্তন পাবেন। আপনি আপনার পছন্দের প্রতিকার ব্যবহার করা শুরু করুন, খুব শীঘ্রই আপনি এই অংশে উন্নতি করতে পারবেন।


কিছু পরামর্শ 
মাল বেরি নির্যাস 

আপনি মাল বেরি বা ল্যাকটিক অ্যাসিড ব্যবহার করতে পারেন কারণ এগুলি ভিটামিন সি এর ভাল উৎস হিসেবে কাজ করে। এগুলির সাহায্যে খুব সহজেই স্তনের বোঁটাকে উজ্জ্বল করা যায়। ব্রণ বা ফোড়ার চারপাশের ত্বকে যে কালো দাগ তৈরি হয় সেই অংশকে বিবর্ণ করে এখানে নতুন ত্বক উৎপন্ন হয়। ফলে আপনার ত্বক হয়ে ওঠে গোলাপি।


অ্যাব্রুটিন

এই স্তনকে উজ্জ্বল করে। এটা কালো চামড়া অপসারণ করে এবং নতুন কালো চামড়া তৈরি হতে বাধা দেয়। এটা ত্রায়সিনেজ কমিয়ে ফেলে এবং মেলানিন উৎপন্ন করে।

আপনি কমলালেবু, শসা, মধু, দুধ এবং অ্যাভোকাডো ব্যবহার করতে পারেন। যদি আপনার কাছে উপরে উল্লিখিত উপাদানগুলো না থাকে। এগুলোও ত্বককে উজ্জ্বল করতে গুরুত্ব পূর্ণ ভাবে সাহায্য করে।

ভিটামিন সি এর বিকল্প গুলি গ্রহণ করুন কারণ এগুলি কালো চামড়া তৈরি হতে বাধা দেয়। ভিটামিন সি এন্টি – অক্সিডেন্ট– এর একটি ভাল উৎস যা শুধুমাত্র আপনার শরীরের অংশকে উজ্জ্বল করে তাই নয়, এটির ব্যবহারে আপনি পান একটি প্রখর দীপ্তি এবং আপনি হয়ে ওঠেন স্বাস্থ্যকর।

কমলা লেবু নিয়ে একটি জুস তৈরি করুন এবং তারপর এটি নির্দিষ্ট এলাকায় এটি প্রয়োগ করুন। এটা ভাল ভাবে শুকিয়ে যেতে দিন। দ্রুত ফল পাওয়ার জন্য এক দিন অন্তর পুনরাবৃত্তি করুন। আপনি ত্বকে জ্বলুনি বা চুলকানি হয় তাহলে অন্য উপাদান ব্যবহার করুন।

এছাড়াও আপনি এই উদ্দেশ্যে যষ্টিমধু ব্যবহার করতে পারেন। এটিও আপনার জন্যে একই কাজ করে। আপনি আপনার স্তনের এবং যোনি দেশ পরিষ্কার করার জন্যেও এই যষ্টিমধুর নির্যাস ব্যবহার করতে পারেন। আপনার শরীরের সহ্য ক্ষমতা অনুযায়ী আপনি এটাকে ঠাণ্ডা বা গরম ব্যবহার করতে পারেন। আপনি প্রাকৃতিক ভাবে এগুলি না পান, তাহলে আপনি একটি পাওডার কিনতে পারেন এবং তারপর এটিকে জলে যোগ করুন। নির্দিষ্ট অঞ্চলের উপর এটি প্রয়োগ করুন এবং আপনি দেখতে পাবেন এটি অন্যান্য প্রতিকারের চেয়ে দ্রুত কাজ করে।

পরিশেষে, এটা মনে রাখতে হবে যে আমাদের শরীর অনেক পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে যায় এবং আমরা বেড়ে ওঠার সাথে আমাদেরকে বিভিন্ন অবস্থার সাথে মানিয়ে নিতে হবে। মাঝে মাঝে আমরা নিজেদের ভাল চেহারা তৈরীর কাজে সফল হয়, কিন্তু আমদেরকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে আমরা সবাই অদ্বিতীয়, অনন্য এবং চিরকাল সুন্দর।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon