Link copied!
Sign in / Sign up
0
Shares

সন্তান ধারণের চেষ্টার সময় স্বামী স্ত্রীর মধ্যে বিবাদ এড়ানোর উপায় জানতে চান?


সন্তানসম্ভবা হওয়া সবসময় সহজ কাজ নাও হতে পারে।এমনকি চুড়ান্ত উর্বরতার সময়ও স্বামী- স্ত্রী জুটির সন্তান ধারণের সম্ভাবনা প্রতি মাসে শতকরা মাত্র কুড়ি শতাংশ থাকে। এর ফলে সন্তান ধারণের চাপই শুধুমাত্র বৃদ্ধি পায়না,আশা আকাঙ্খা এবং আনন্দে ভরপুর এই অভিজ্ঞতা ক্রমশ তিক্ত হতে হতে পরষ্পরের প্রতি দোষারোপ এবং অপরাধ বোধে পরিসমাপ্তি লাভ করে।

এই বিষণ্ণতা এবং অসহায়তা কথা কাটাকাটি, অসন্তোষ,বিরক্তি এবং ঝগড়ায় রুপান্তরিত হতে পারে যে কোন সময়ে। আপনার সঙ্গীর প্রতি আরেকটু সহানুভূতিশীল হন,মনে রাখবেন আপনার মতো তিনিও অসম্ভব চাপের মধ্যে আছেন।আপনার উচিৎ যে কোন মূল্যে ঝগড়াঝাঁটি এড়িয়ে ভালোবাসা এবং পারস্পরিক নির্ভরতার সম্পর্ক বজায় রাখা। তা নইলে এই সময়ে সম্পর্ক সত্যিই তিক্ত হয়ে যেতে পারে।

এই ছোট পরামর্শগুলি আপনাকে আপনার সঙ্গীর সাথে ঝগড়া এড়িয়ে মধুর সম্পর্ক রক্ষায় সহায়তা করবে।

১. মেনে নিন পথে বাধা আসবে

কখনো কখনো এমন সময় আসবে যখন আপনারা দুজনেই চুড়ান্ত হতাশাগ্রস্ত ও অধৈর্য বোধ করবেন এবং অপরজনকে অসাফল্যের জন্য দোষারোপ করার চেষ্টা করবেন। আবেগে ভারসাম্যের অভাব ঘটবে।কিন্তু সন্তান ধারণের চেষ্টার সময়ে এটি একটি স্বাভাবিক ঘটনা এর জন্য কাউকে দোষ দিয়ে লাভ নেই । এই সত্য যত তাড়াতাড়ি স্বীকার করে নেবেন ততই আপনি ভবিষ্যতের অঙ্গীকারে দৃঢ় হতে পারবেন। অধৈর্য হবেন না জিৎ আপনারই হবে।


২ . পরষ্পরের প্রতি অনুরাগী হন

বোঝার চেষ্টা করুন আপনারা দুজনেই একটি অনিয়ন্ত্রিত আবেগপ্রবণ সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন ।এখন আপনাদের সবচেয়ে বেশি পরষ্পরের পাশে থাকা প্রয়োজন।যখন আপনারা ‘সন্তান ধারণের চেষ্টার’ মধ্যে আছেন,আপনারা নিজেদের ক্ষমতার শেষ বিন্দু পর্যন্ত নিঃশ্বেসে ব্যয় করছেন। পরষ্পরের চেষ্টার প্রশংসা করুন এবং আপনার সঙ্গী যে উদ্যোগ নিচ্ছেন তাতে ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়ে প্রমাণ করুন আপনার সঙ্গীর সিদ্ধান্তে আপনি তার পাশেই আছেন। খোলা মনে কথা বলুন এবং আপনার সঙ্গীর যাই করছেন তাতে আপনি কতটা খুশি সেটা জানান।


৩. ছোট ছোট জয়ের আনন্দ উপভোগ করুন

যখন আপনি সন্তান ধারণের আপ্রাণ চেষ্টা করছেন, সন্তান গর্ভে আসাই একমাত্র জয়ের আনন্দ দিতে পারে।আপনার মানসিকতা যদি এরকম হয়,সন্তান গর্ভে না আসা প্রতিটি দিন আপনার হেরে যাওয়া বলে মনে হবে।বরং চলার পথে ছোট ছোট অগ্রগতির আনন্দ নিন, যেমন ডিম্বাণু উৎপাদন(ovulation) অথবা মাসের উর্বরতম দিনগুলি(fertility window), এতে আপনার জীবন স্ফূর্তি আর উৎসাহে ভরপুর হয়ে উঠবে এবং আপনার লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে।


৪ . জীবনের সহজ গতিকে ব্যহত করবেন না

যখন আপনি আপনার জীবনের সবটুকু সন্তান ধারণের চেষ্টায় ব্যয় করেন, আপনি আগে যে জিনিসগুলো করে আনন্দ পেতেন সেগুলো থেকে মুখ ফিরিয়ে নেন।তাই যা যা করতে মন চায় তাই করুন বন্ধুদের সাথে ঘুরতে যান,সঙ্গীর সাথে একা একা বাড়ির সময় কাটান, কোন অবস্থাতেই এই সুন্দর সময়গুলোকে কোন কিছুর বিনিময়ে আপোষ করবেন না। সপ্তাহান্তিক এবং বাৎসরিক ভ্রমণসূচি অপরিবর্তিত রাখুন।কারণ সন্তান গর্ভে এসে গেলে নতুন কিছু করার সময় পাবেন না।

গর্ভবতী হওয়ার চেষ্টা শুধুমাত্র সঠিক সময় ও পদ্ধতির ব্যাপার নয়।এটি আপনার প্রিয়জনদের ভালোবেসে জীবনযাত্রায় আমূল পরিবর্তন ঘটানো,সঙ্গীর প্রতি অঙ্গীকারকে সুদৃঢ় করা,এবং দুজনে মিলে ভবিষ্যতকে সযত্নে লালন পালন করার গল্প।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon