Link copied!
Sign in / Sign up
71
Shares

শনিবারে ৫ রকম নিরামিষ পদ

মাছপ্রিয় বাঙালির খাবারের তালিকায় যেমন একাধিক আমিষ রেসিপি রয়েছে, তেমনি আছে জিভে জল আনা নিরামিষ পদও। একনিতেই শীতকাল, কাজেই বাজারে সব্জিইর পাহাড়। তার ওপর শনিবার। আজ খোঁজ থাকল তেমনি বিখ্যাত ৫ নিরামিষ পদের।

১. আজই বানিয়ে ফেলুন সুক্তো

গরম ধোঁয়া ওঠা ভাত। আর তার সঙ্গে সুক্তো। হরেকরকম সবজি দিয়ে তৈরি এই রেসিপি অনায়াসে পিছনে ফেলে দিতে পারে বহু আমিষ পদকে। আজ থাকছে বাঙালির অতি প্রিয় এই রেসিপির খোঁজ। 

উপকরণ:

উচ্ছে ১টি(বড়), বেগুন ২টি(মাঝারি মাপের), কাঁচকলা ১টি(বড়), সজনে ডাঁটা ২টি, আলু ২টি(বড়), নুন, সরষের তেল, আদাবাটা(১চা চামচ), সরষেবাটা(১চা চামচ), রাঁধুনি সামান্য, তেজপাতা ২-৩টা, দুধ ও ময়দা সামান্য, ১ চামচ পাঁচফোড়ন ভাজা গুড়োঁ, ১চামচ ঘি, বড়ি ভাজা ।

প্রণালী:

প্রথমে কড়াইতে সরষের তেল গরম করে উচ্ছে ভেজে তুলে নিন। এই তেলে রাঁধুনি ও তেজপাতা ফোড়ন দেবেন।এতেই বাকি- সব্জি বেশ করে সাঁতলে নিন। তরকারি একটু ভাজা হলে দুধ, সরষে, ময়দা মিশিয়ে কড়াইতে ঢেলে দেবেন।সামান্য জল দিন।তারপর সেদ্ধ হয়ে গেলে নামিয়ে ১চামচ ঘি আর ১ চামচ পাঁচফোড়ন ভেজে গুড়োঁ করে,বড়ি ছড়িয়ে নামিয়ে দিতে হবে।

২. ঝিঙে পোস্ত

বাঙালিদের অত্যন্ত পছন্দের একটি পদ পোস্ত। তা সে আলু পোস্ত হোক বা পটল পোস্ত। আর এই পোস্ত রেসিপিতে কিন্তু পিছিয়ে নেই ঝিঙে পোস্তও।

উপকরণ:

আলু-৫ থেকে ৬টা মাঝারি সাইজের(১ ইঞ্চি কিউবে কাটা), ঝিঙে-৪টে, পোস্ত-৪ টেবিল চামচ, তেল-২ টেবিল চামচ, মেথি-১/২ চা চামচ, কাঁচা, লঙ্কা-২টো(চেরা), নুন-স্বাদ মতো

প্রণালী:

পোস্ত ১ কাপ জলে ভিজিয়ে মিহি করে বেটে নিন। আলু অল্প নুন দিয়ে ৫ মিনিট ভেজে তুলে রাখুন। কড়াইতে তেল গরম করে মেথি ফোড়ন দিন। ঝিঙে দিয়ে নাড়তে থাকুন। ঝিঙে থেকে জল বেরোতে শুরু করলে ভেজে রাখা আলু দিন। পোস্টবাটা ও ১ কাপ জল দিয়ে নুন দিন। কড়াই চাপা দিয়ে আলু সেদ্ধ হয়ে জল টেনে আসা পর্যন্ত রান্না করুন। হয়ে গেলে ওপরে কাঁচালঙ্কা দিয়ে উল্টেপাল্টে নেড়ে নামিয়ে নিন।

৩. বানিয়ে ফেলুন ছানা পটোলের রসা

নিরামিষের দিনগুলোয় অনেক বাড়িতেই পনির রাঁধার প্রচলন রয়েছে। তবে, একঘেয়েমি পনির না খেয়ে বরং স্বাদবদল করতে পারেন ছানার রসায়। ঝাল-মিষ্টি এই রেসিপি আপনার খিদে যে আরেকটু বাড়িয়ে তুলবে সে কথা বলাই যায়। ছানা পটলের রসা একটি সুস্বাদু রান্না যা ছবি দেখেই বুঝে নেয়া যায়।

উপকরণ

পটল (৬-৮ টা, লম্বালম্বি করে কাটা), সর্ষের তেল, ছানা (১ কাপ), পাতি লেবুর রস (এক টুকরো), দুধ (আধ কাপ), নুন, চিনি, হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কা গুঁড়ো, আদা বাটা (১ চামচ), পেঁয়াজ বাটা (১ চামচ), গোটা গরম মশলা, মেথি।

প্রণালী

প্রথমে পটল চার ফালা করে কেটে সর্ষের তেলে সাঁতলে নিতে হবে। এবার প্যানে সর্ষের তেলে মেথি, গরম মশলা ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজ বাটা, আদা বাটা, হলুদ, লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে সামান্য জল দিয়ে কষতে হবে। এবার দুধ দিয়ে ফুটিয়ে তরকারিতে দিয়ে ঢেকে রান্না করতে হবে। এরপর ছানা দিয়ে নাড়তে হবে। কম আঁচে রান্না করতে হবে। পটল সেদ্ধ হলে লেবুর রস দিয়ে নেড়ে আঁচ থেকে নামিয়ে রুটি ,গরম ভাত বা পোলাও-এর সঙ্গে পরিবেশন করুন।

৪. আলু ফুলকপির সুগন্ধী ডালনা

আলু-ফুলকপির তরকারি বাঙালির রান্নাঘরের অতি পরিচিত একটি পদ। আর যেহেতু ফুলকপি এখন বছরভর পাওয়া যায়, তাই এখন যে কোনও সময়েই বানানো যায় পদটি। আজ থাকছে আলু-ফুলকপি দিয়ে তৈরি ডালনার রেসিপি, তবে একটু অন্যভাবে।

উপকরণ:

ফুলকপি ছোটো টুকরো করে কেটে রাখা ৩০০ গ্রাম, আলু ছোটো টুকরো করে কেটে রাখা ২০০ গ্রাম, টোম্যাটো কোচানো ৪ চামচ, ধনেপাতা বাটা ৪ চামচ, মটরশুঁটি ৬ চামচ, কাঁচালঙ্কা কুচি ২ চামচ, হলুদ গুঁড়ো ২ চামচ, চিনি ১ চামচ, নুন স্বাদমতো, সরষের তেল পরিমাণমতো

পদ্ধতি -

কড়াইয়ে সরষের তেল গরম করুন। তেল গরম হলে কড়াইয়ে ফুলকপি ও আলুর টুকরোগুলো দিয়ে দিন। এরপর একে একে হলুদ, নুন, চিনি, কোচানো টোম্যাটো, কড়াইশুঁটি, কাঁচালঙ্কা কুচি দিয়ে নাড়তে থাকুন। সবজিগুলো সেদ্ধ করার জন্য কড়াই ঢেকে দিন। মিনিট দশেক পর ঢাকনা খুলে দেখবেন সবজিগুলো সেদ্ধ হয়ে গেছে। সবজিগুলো খানিকক্ষণ নাড়াচাড়ার পর কড়াইয়ে ধনেপাতা বাটা দিয়ে দিন। এরপর সবজির সঙ্গে ধনেপাতা বাটা ভালোভাবে মিশিয়ে গ্যাস বন্ধ করে দিন। তৈরি, আলু ফুলকপির সুগন্ধী ডালনা। গরম গরম ভাত বা রুটির সঙ্গে পরিবেশন করুন।

৫. ঝটপট শিখে নিন কুমড়োর ছক্কা বানানোর রেসিপি

কুমড়ো। বাঙালির বাজারের থলের এক অতি পরিচিত সবজি। তাই রান্নাঘরে মাঝেমাঝেই উঁকি মারে কুমড়ো। আর যে পদটা সবথেকে বেশি রান্না হয় সেটা হল কুমড়োর ছক্কা। যদি আপনি না জানেন কেমন করে বানাবেন এই জিভে জল আনা পদ, তবে ঝটপট দেখে নিন কুমড়ো ছক্কার রেসিপি।

 

উপকরণ:

পাকা কুমড়ো ৫০০ গ্রাম(ডুমো ডুমো করে কাটা), আলু ২০০ গ্রাম(ডুমো ডুমো করে কাটা), কাঁচা ছোলা ৩ চামচ (ভেজানো), মটর ডাল ১/২ কাপ (ভিজিয়ে বাটা), তেজপাতা ২ টি, পাঁচফোড়ন ১ চামচ,শুকনো লঙ্কা, হলুদ ১ চামচ, লঙ্কা গুঁড়ো ১ চামচ, জিরে গুঁড়ো ১ চামচ,,নুন ও সরষের তেল আন্দাজমতো, গরমমশলা ১/২ চামচ, আদা বাটা ১ চামচ, চেরাকাঁচালঙ্কা ৫ টি, ধনেপাতাকুচি ১/২ কাপ, চিনি ৩ চামচ

প্রণালী:

কুমড়ো, কাঁচা ছোলা ও আলু প্রথমে ভেজে নিন। মটর ডালটাও একটু ভেজে নিন। এবার পাত্রে তেল গরম করে তেজপাতা, শুকনো লঙ্কা, ও পাঁচফোড়ন দিন। সব মশলা দিয়ে একটু ভেজে নিন। এবার ভেজে রাখা কুমড়ো ও আলু দিন। নুন ও চিনি দিয়ে নেড়ে নিন। ঢাকা দিয়ে দিন। এতেই সেদ্ধ হয়ে যাবে, যদি না হয় তবে একটু জল দেবেন। মাখা মাখা হলে নামিয়ে নিন। নামাবার আগে গরমমশলা, চেরাকাঁচালঙ্কা, ধনেপাতাকুচি ছড়িয়ে একটু ভাজা ভাজা করে নামিয়ে নিন।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
100%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon