Link copied!
Sign in / Sign up
29
Shares

পুত্র চান না কন্যা? মনের মত সন্তান গর্ভধারণ করতে হলে কোন দিন কোন সময় যৌন মিলন করতে হয়?

উভয় পুত্র বা কন্যা ঈশ্বরের আশীর্বাদ হয়; কেউ কারো থেকে কম নয় বা না বেশি। আপনার পারিপার্শ্বিক নির্ণয় করে আপনার ছেলে বা কন্যা কেমন হবে। গর্ভবতী হওয়ার পর থেকেই আপনি ভাবতে শুরু করেন আপনার ছেলে হবে না মেয়ে। 

মাসিকের চতুর্থ, ষষ্ঠ, অষ্টম, দশম, দ্বাদশ, চতুদশ এবং ১৬তম পর্যায় একটি পুত্র ভ্রূণ থেকে উৎপন্ন হয়। যাইহোক, মাসিকের শুরুতে অর্থাৎ পঞ্চম, সপ্তম, নবম, একাদশ, ত্রয়োদশ এবং ১৫তম পর্যায় কন্যা ভ্রুন থেকে উৎপন্ন হয়।

সতর্কীকরণ

১. মাসিকের সঠিক গণনা করুন

মাসিকেরশুরুতে প্রথম দিন হিসাবে গণনা করা উচিত। যদি আপনার মাসিক ১০ই এপ্রিল ৯ টায় শুরু হয়, তাহলে রাত ১১ তারিকের রাট ৯টায় টায় আপনার মাসিকের একদিন সম্পন্ন হবে। মনে রাখবেন যে আপনি ১১ এপ্রিলকে দ্বিতীয় দিনে গণনা করেন না। 

পুত্রের গর্ভধারণের জন্যে মাসিক শেষ হওয়ার চতুর্থ, ষষ্ঠ, অষ্টম, দশম, দ্বাদশ, চতুদশ এবং ১৬তম রাতে  যৌন মিলন করা উচিত। আবার কন্যা সন্তান চাইলে মাসিক শেষ হওয়ার চতুর্থ, ষষ্ঠ, অষ্টম, দশম, দ্বাদশ, চতুদশ এবং ১৬তম রাতে যৌন মিলন করতে হবে।

কিছু সমাধান

১.আপনি কোন রাত যৌনমিলনের জন্যে বেঁচে নিচ্ছেন সেই বিষয় সচেতন থাকুন, এবং শুধু একবার না, সেই রাতে ২-৩বার যৌন মিলন করে থাকুন, কারণ একবারের মিলনে শুক্রাণু যুক্ত নাও হতে পারে। আপনি জোটের যৌন মিলন করবেন তত বেশি আপনি গর্ভবতী হওয়ার স্বভাবনা রাখবেন।

২. পুরুষ যৌনাঙ্গ যোনি থেকে মিলন হয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বের করে দেবেন না, তাতে শুক্রাণু ঠিক করে ডিম্বাণু অবধি প্রবেশ করতে পারেনা। যৌন ক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যোনি জল দিয়ে ধোবেন না, পরের দিন না আসা অবধি যোনিতে জল দেবেন না।

৩. গর্ভাবস্থার জন্য আপনার বেছে নেওয়া রাতের আগেই কোনও সময় যৌনতা করবেন না বা হস্তমৈথুন করবেন না। এতে শুক্রাণুর গণনা বৃদ্ধি হবে।

৪. ওই দিন কোনো রকম মানসিক চাপ মুক্ত থাকুন রাখুন এবং সচেতন থাকুন যে সেই দিনটি কোন মানসিক বা শারীরিক ক্লান্তি যাতে না থাকে। যদি সম্ভব হয়, তাহলে সেই দিনে ঘরের বাইরের কাজ থেকে মুক্ত থাকুন।

৫. একটি মহিলার ডিম্বাণু অবধি শুক্রাণু পৌঁছে গেলে গর্ভাবস্থার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। সুতরাং একটি মহিলার সঙ্গে যৌন মিলন করার আগে এটি সম্পূর্ণরূপে উত্তেজিত করা উচিত।

মনে রাখবেন 

এই নিবন্ধে যতটা সম্ভব সঠিক তথ্য সঠিকভাবে দেওয়ারই চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু সন্তানের জন্ম ঈশ্বরের হাতে। মনে রাখবেন ছাড়াও অন্যান্য অনেক কারণশিশুর জন্ম নির্ধারণ করে। অতএব, কামনা করুন যেন আপনার একেকজন সুস্থ স্বাভাবিক সন্তান জন্ম নেয়।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon