Link copied!
Sign in / Sign up
0
Shares

সুস্থ থাকতে কতটা জল খাওয়া প্রয়োজন?

দেহে পর্যাপ্ত জলের অভাবে নানা সমস্যা হতে পারে। আমাদের শরীরের তিন ভাগের দুই ভাগই জল দিয়ে তৈরি। তাই শরীরের প্রতিটি কাজের জন্য জল প্রয়োজন। জল শরীরের দূষিত পদার্থ বের করে দিতে এবং হজম ভালো রাখতে সাহায্য করে। তবে কম জল পান জটিল ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা তৈরি করে। আবার অতিরিক্ত জল খাওয়াও শরীরের জন্য ঝুঁকিপ্রবণ। তাই পর্যাপ্ত পরিমাণ জল পান করা জরুরি।

প্রতিদিন কয় গ্লাস জল পান করা উচিত?

তেষ্টা এবং প্রস্রাব শরীরের জল চক্র নিয়ন্ত্রণ করে। আমাদের তেষ্টা থাকলে জল পান করি, টয়লেটে যাই, আবার জল পান করি, জল চক্র আবার শুরু হয়। তাই প্রতিদিন একজন সুস্থ পুরুষের অন্তত ২ লিটার জল পান করা প্রয়োজন। আর নারীর ১ দশমিক ৬ লিটার অথবা আট থেকে ১০ গ্লাস। তবে এটা নির্ভর করবে কাজ কর্ম, স্বাস্থ্য, ওজন ও আবহাওয়া এগুলোর ওপর। গরমকালে এরও বেশি জল পান করতে হতে পারে।

জল শূন্যতার লক্ষণ

বেশি পিপাসা লাগলে, গাঢ় হলুদ বর্ণের প্রস্রাব, প্রস্রাবে গন্ধ থাকলে বুঝবেন জল শূন্যতা হচ্ছে, শরীরে জল অভাব হয়েছে। এছাড়া সামান্য মাথা ব্যথা, শুষ্ক মুখ, আলস্যও লাগাও জল শূন্যতার লক্ষণ। বেশি বয়স্ক লোকেরাও কখনো কখনো জল শূন্যতার বিষয়টি টের পান না। এদের সমস্যাগুলোও প্রায় একই ধরনের হয় এই সময়ে। এ রকম হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।

যদি প্রয়োজনের অতিরিক্ত জল পান করেন

প্রয়োজনের অতিরিক্ত জল পানও বিপজ্জনক হতে পারে । বেশি জল পান করলে ইনটোক্সিকেশন এবং সোডিয়ামের মাত্রা অনেক নিচে নেমে হাইপোনেট্রেমিয়া হতে পারে। অনেক সময় এথলেটদের এই সমস্যা দেখা যায়। আবার কখনো শারীরিক অসুস্থতার কিছু কারণে শরীর বেশি জল গ্রহণ করতে পারে না। কিডনি এবং হার্টের সমস্যায় এই বিষয়টি হয়। এ সময় চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়েই জল পান করা উচিত।

কখন চিকিৎসকের কাছে যাবেন

কখনো কখনো এমন পরিস্থিতি আসে যখন মানুষকে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে নিতে হয়। যদি আট ঘণ্টার বেশি প্রস্রাব না হয়, অবসন্ন লাগে, দ্রুত হৃদ স্পন্দন হয়, খুব বেশি জল পিপাসা লাগে তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। এমনকি সেটা যদি ডায়াবেটিস রোগীর বেলায় হয় তাহলেও চিকিৎসকের কাছে যাওয়া জরুরি। তাই পর্যাপ্ত পরিমাণ জল পান করুন। বেশিও নয়,কমও নয়।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon