Link copied!
Sign in / Sign up
30
Shares

প্রাক গর্ভাবস্থার চেহারা ফিরিয়ে আনার ১০টি টিপস


মহিলাদের জন্য গর্ভাবস্থা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি পদক্ষেপ কারণ এই সময় আপনার মধ্যে শারীরিক এবং মানসিক পরিবর্তনের একটি প্রবণতা থাকে। এবং আপনার গর্ভাবস্থার সময়সীমা শেষ হলে, আপনার যত্ন নিতে হয় একটি শিশুকে। এখন থেকে আপনি বুঝতে পারেন যে আপনার দায়িত্ব কর্তব্ব আসলে দ্বিগুণ হয়ে গেছে।

গর্ভাবস্থার পর আপনার চেহারায় ও আকৃতিতে এক আমল পরিবর্তন আসে। আসুন এখানে আমরা আপনাকে ১০টি পরামর্শ দেব যার সাহায্যে আপনি আপনার পূর্ব চেহারা ফিরে পাবেন।

১. প্রোটিন খাদ্য খাওয়া বন্ধ করবেন না

আপনি এই পর্যায়ে এসেও প্রোটিন খাদ্য গ্রাস করা বন্ধ করবেন না। কোল্লাজেন নামক প্রোটিনে একটি গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি রয়েছে যা আপনার ত্বককে দৃঢ় করতে সাহায্য করে। প্রোটিন পরিমাণ আপনার ওজন, বয়স এবং উচ্চতার উপর প্রভাব ফেলে, তাই কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করার আগে নিশ্চিত করুন যে আপনি আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিচ্ছেন।

সেলিব্রিটিদের লক্ষ্য করুন ও অনুপ্রেরিত হন

শিলপা শেঠী কয়েক অভিনেত্রীদের মধ্যে একজন, যিনি টোনড শরীরের রক্ষণাবেক্ষণ করেন। তার সি-সেকশন হয়েছিল, তার সত্ত্বেও তাঁর প্রাক-গর্ভাবস্থা শরীর ফিরে পাওয়ার জন্য তিনি একটি কঠোর ওজন কমানোর শাসন অনুসরণ করেন। বলার অপেক্ষা রাখে না, তিনি তার যোগব্যায়াম এবং শক্তি প্রশিক্ষণ বিবেচনা করেছিলেন এবং ফিটনেস জাদু দেখিয়েছেন। এছাড়াও, তিনি তার খাদ্য তালিকায় প্রোটিন এবং তাজা ফল অন্তর্ভুক্ত করতে ভোলেননি।

২. লোশান এবং মালিশ

শরীরের দৃঢ় অঙ্গবিন্যাস লোশনের অনেক ব্র্যান্ড বাজারে উপলব্ধ যাতে কোলাজেন, ভিটামিন ই, ভিটামিন সি, ভিটামিন এ এবং ভিটামিন কে উপাদানগুলি থাকে। সেগুলি সন্ধান করুন। এটি যথাযথ রক্ত ​​সঞ্চালন নিশ্চিত করবে, অতএব আপনার ত্বক প্রসারিত চিহ্নগুলি থেকে মুক্ত হবে।

৩. শক্তি প্রশিক্ষণ

এটি করার আগে আপনার ডাক্তারের অনুমোদন আবশ্যক। আপনার শরীর শক্তি প্রশিক্ষণ সেশন গ্রহণ করার জন্য প্রস্তুত হওয়া উচিত। এছাড়াও আপনার প্রশিক্ষক আপনার গর্ভাবস্থা এবং এর জটিলতা সম্পর্কে সচেতন কিনা তা নিশ্চিত করুন।

৪. স্তন্যপান

যখন আপনি ওজন কমানোর জন্য চিন্তিত থাকেন তখন এই কার্যটি আপনাকে সাহায্য করবে। এটার কারণ হল যখন আপনি বুকের দুধ খাওয়ান আপনার ক্যালোরি ঝরে। এটা বিজ্ঞানগতভাবে প্রমাণিত যে বুকের দুধ খাওয়ানো মায়েদের ওজন ফর্মুলা দুধ খাওয়ানো মায়ের চেয়ে দ্রুত কমছে।

৫. বেশি করে জল পান করুন

বেশি বেশি জলপান আপনার শরীরের স্থিতিস্থাপকতা বৃদ্ধি করে এবং এটি দীর্ঘ সময়ের জন্য হাইড্রোটেড রাখে। এছাড়াও, এটি ক্যালোরিগুলি পুড়িয়ে ফেলে ও আপনার হজম ক্ষমতাকে উচ্চতর রাখে এবং দীর্ঘক্ষণ আপনার ত্বককে টাইট ও টানটান রাখে।

৬. স্ক্রাবিং

গর্ভাবস্থায় আপনার শরীরের উপর মৃত কোষ থাকতে পারে। তাই, নিয়মিত স্ক্রাবিং আপনাকে সেই মৃত কোষ থেকে পরিত্রাণ পেতে সাহায্য করবে এবং আপনাকে অনেক বেশি পরিষ্কার ও উজ্জ্বল দেখাবে। এটি আপনার ত্বক দ্রুত পুনরুদ্ধার করতে সাহায্য করবে।

৭. অতিরিক্ত খাদ্যগ্রহণ থেকে দূরে থাকুন

যখন আপনি ক্র্যাশ ডায়েট পছন্দ করেন, অবশ্যই আপনার ওজন দ্রুততর ভাবে হ্রাস পাবেনা। শুধু ওজন নয়, এটি আপনাকে উজ্জ্বল ত্বক ও সঠিক আকার বজায় রাখতেও সাহায্য করবে।

৮. ব্যায়াম

আপনি অনেক শুনেছেন যে কার্ডিও এবং ওজন কমানোর কিছু সেরা ব্যায়াম হয়। এগুলো কিছুই কঠিন না। আপনি সহজেই এগুলি ডাক্তারের পরামর্শ মেনে করতে পারেন।

প্রসবোত্তর ব্যায়াম সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

৯.আস্তে আস্তে ওজন কমান

অবশেষে, দ্রুত এবং সহজ ওজন কমানোর পদ্ধতির উপর নির্ভর করবেন না। ওজন কমানোর কোনো ছোট রাস্তা নেই। যেহেতু আপনার শরীরের একটি বড় পরিবর্তন হয়েছে, ধীরে ধীরে একটি নতুন রুটিন বিকাশের চেষ্টা করুন। তবেই ফল পাবেন।

১০. একটি ইতিবাচক মনোভাব রাখুন

আপনার ওজন কমানোর জন্য ইতিবাচক এবং আশাবাদী থাকা অত্যন্ত প্রয়োজন। আপনি গর্ভবতী হন কি না হন, ওজন হ্রাস একটি ধীর প্রক্রিয়া। সুতরাং, আশাবাদী থাকা প্রাণ খুলে হাসা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

আমরা সবই জানি যে গর্ভাবস্থা প্রতিটি মহিলার জীবনের একটি খুব আনন্দদায়ক মুহূর্ত। কিন্তু, অভিভাবকত্ব করতে গিয়ে নিজের দিকে খেয়াল রাখতে ভুলবেন না।

গর্ভাবস্থার পর কি কি কারণে পেটের মেধ কমে না, তা জানতে এখানে ক্লিক করুন

ওজন কমাতে কি কি করা উচিত ও কি কি করা উচিত না, জানতে এখানে ক্লিক করুন

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon