Link copied!
Sign in / Sign up
1
Shares

পেট খারাপ হলে কি করা উচিত?

সন্ধ্যায় বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা আর ফুচকা, চটপটি বা ঝালমুড়ি মজা করে খাওয়া। তারপর রাতে হঠাৎ পেট ব্যথা। পাকস্থলিতে ঘটেছে ব্যঘাত। এই সময় করবেন কী?

রাস্তার ধুলাবালি, জীবাণু খাবার অস্বাস্থ্যকর করে তোলে। তাছাড়া অস্বাস্থ্যকর ও বাসি খাবার খেলে বদ হজমসহ পেটে ব্যথা, ডায়রিয়া, বমি বমিভাব বা বমি, মাথা ব্যথা, মাথা ঘোরা এবং ডায়রিয়া হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যায়। এই সব উপসর্গ দেখা দিলে অবহেলা না করে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়ার পাশাপাশি প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে কিছু প্রতিকারের পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে। যেমন-

আপেল

আপেল বুকজ্বালা ও অ্যাসিড কমাতে কাজ করে। ফলে খাবারের বিষক্রিয়া প্রতিকারে আপেল বেশ সহায়ক। তাছাড়া এই ফলে থাকা এক ধরনের এনজাইম ডায়রিয়া ও পেট ব্যথার জন্য দায়ী ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া সৃষ্টি দমিয়ে রাখতে পারে।

কলা

এই ফলে আছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম যা রোগ নিরাময়ে এবং খাবারের বিষক্রিয়ার প্রভাব কমাতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে কয়েকটি কলা ও আপেল চটকে খেতে পারেন অথবা সেক খাওয়া যেতে পারে।

লেবু

লেবুর টক খাদ্যে বিষক্রিয়ার জন্য দায়ী ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে লেবুর রসের সঙ্গে এক চিমটি চিনি মিশিয়ে বা লাল চায়ের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে খাওয়া যেতে পারে।

আদা

খাবারের স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি হজম সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে আদা বেশ কার্যকারী। ১ টেবিল-চামচ মধুর সঙ্গে কয়েক ফোঁটা আদার রস মিশিয়ে খেলে খাদ্য বিষক্রিয়া জনিত প্রদাহ ও ব্যথা কমে যায়।

জিরা

জিরা পেটের প্রদাহ উপশম করাসহ বিভিন্ন রোগ নিরাময়ে সাহায্য করে। ১ টেবিল-চামচ জিরাগুঁড়া সুপের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যাবে।

বাসিল পাতা

পেট ও গলার সংক্রমণ নিরাময়ে বাজিল পাতা চমৎকার কাজ করে। এক টেবিল-চামচ মধুর সঙ্গে কয়েক ফোটা বাসিলের রস মিশিয়ে খেলে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সুফল পাওয়া যায়। বাসিল না পেলে তুলসীপাতা ব্যবহার করতে পারেন।

জল

ডায়রিয়া, অ্যাসিডিটি বা এই ধরনের খাবার জনিত সমস্যা হলে বেশি করে জল পান করা খুব জরুরি। ডায়রিয়ার কারণে শরীর থেকে প্রচুর পরিমাণে জল বের হয়ে যায়। এছাড়া শরীর থেকে বিষাক্ত বর্জ্য ও ব্যাকটেরিয়া বের করে দেওয়াসহ তাড়াতাড়ি রোগ নিরাময়ে জল বেশ কার্যকর। পাশাপাশি শরীরের আর্দ্রতা বজায় রাখার জন্যও জল খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

অ্যাপল সাইডার ভিনিগার

ভিনেগারের ক্ষারীয় উপাদান, বিশেষ করে অ্যাপল সাইডার ভিনিগার অন্ত্র উপশমে সাহায্য করে। পাশাপাশি পেটে ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধিতে বাধা দেয় আর সেরে উঠতে সাহায্য করে।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon