Link copied!
Sign in / Sign up
2
Shares

অম্বলের সমস্যার সমাধান


আমাদের প্রত্যেকের মধ্যে অম্বল একটি সাধারণ সমস্যা। এ সমস্যা ১২ বছর থেকে শুরু করে সব বয়সের মানুষের মধ্যে লক্ষ্য যাচ্ছে। এর বিভিন্ন কারণ আছে। অনেকক্ষণ অভুক্ত থাকার পর খাবার গ্রহণের ফলে অম্বল হতে পারে। বিভিন্ন পেইনকিলার জাতীয় ওষুধ খাওয়ার ফলে হতে পারে, আবার অনেকের হয়তো পেপটিক আলসারও রয়েছে।

আলসার কি?

আলসার ২ ধরনের, গ্যাস্ট্রিক আলসার এবং ডিওডেনাল আলসার। বিভিন্ন ধরনের আলসারের খাদ্যর ধরণ বিভিন্ন। যেমন গ্যাস্ট্রিক আলসারের ক্ষেত্রে বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হবে ফাইবার যেন কম হয়, খাদ্য যেমন নরম, সহজপাচ্য হয়। তেল, মসলা ও কালো খাবার বর্জন করা। অন্য দিকে নরম খাবারের ক্ষেত্রে বার্লি, নরম ভাত, দুধ, চাপা কলা, তাজা ফল ও সবজি ভালো খাবার।

ডিওডেনাল আলসারের ক্ষেত্রে সমস্যা কিছুটা গ্রহণযোগ্য। যেমন- পালং শাকের, এ ছাড়া ওপরে বর্ণিত খাবারগুলো অবশ্যই খেতে হবে।

অম্বল থেকে মুক্তি

১. প্রতিদিন প্রচুর পরিমানে জল খেতে হবে, অর্থাৎ ৮-১০ গ্লাস জল পান করা। এর মধ্যে সকালে খালি পেটে দুই গ্লাস খাওয়ার অভ্যাস করা।

২. খাওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে জল খান, খাওয়ার মাঝে জল এবং খাওয়া শেষে জল খাবেন না।

৩. একবারে বেশি না খেয়ে কিছুক্ষণ পরপর অর্থাৎ আড়াই থেকে তিন ঘণ্টা পরপর খাওয়ার অভ্যাস করা ভালো।

৪. টকজাতীয় ফল বর্জন করা।

৫. কলাকে প্রাকৃতিক এন্টাসিড বলা হয়, তাই খাওয়ার পর ২টি করে কলা খেলে উপকার পাওয়া যাবে।

৬. চা, কফি, খাবার বর্জন করা।

৭. খাবার গ্রহণের সময় আস্তে আস্তে খাওয়া প্রয়োজন।

৮. প্রোটিনের পরিমাণ বাড়ানোর জন্য প্রতিদিন ডিম খাওয়া যেতে পারে। তবে যদি ওজন বেশি হয় তাহলে ডিমের কুসুম বাদ দিয়ে শুধু সাদা অংশ গ্রহণ করুন।

৯. কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার গ্রহণের ক্ষেত্রে ফাইবারযুক্ত এবং রিফাইন্ডগুলোকে বর্জন করা, যেমন- আলু, সুজি, সাদা চালের ভাত ইত্যাদি।

১০. শরীরের জন্য তেল, চর্বির প্রয়োজন আছে, কিন্তু অম্বল আছে এমন ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে সম্পৃক্ত চর্বি না খেয়ে অসম্পৃক্ত চর্বির প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে।

১১. দুধ একটি আদর্শ খাদ্য, তবুও অম্বল রয়েছে এমন কোনো ব্যক্তির দুধে অম্বল হয়, সেই ক্ষেত্রে দুধ সম্পূর্ণ বর্জন না করে কোনো খাবারের সাথে দুধ মিশিয়ে খাওয়া ভালো।

কাস্টার্ড, সুজি, পায়েস, ফিরনি, পুডিং, দই ইত্যাদি খাওয়া যেতে পারে। অম্বল খাবার দিয়ে নির্মূল করা সম্ভব। শুধু জীবনের সাথে স্বাস্থ্যকর খাদ্যে অভ্যস্ত হতে হবে।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon