Link copied!
Sign in / Sign up
9
Shares

নর্মাল ডেলিভারি সহজ করার জন্যে ১০টি উপায়

 

গর্ভাবস্থায় স্বাভাবিক বা সিজার প্রসবের সম্ভাবনা সম্পর্কে চিন্তা করা এড়িয়ে চলুন। অনেক বেশি পরিকল্পনা করা এড়িয়ে চলুন কারণ একটি সম্পূর্ণ সম্ভাবনা আছে যে আপনি তাদের পরিপূর্ণ করতে সক্ষম হবে না। প্রায় ৮৫% গর্ভবতী নারীদের স্বাভাবিক ডেলিভারির সম্ভাবনা থাকে, তবে মাত্র ৬৫% মহিলা সফল হয়। যদি আপনি স্বাভাবিক প্রসবের প্রক্রিয়া থেকে শিশুর জন্ম দিতে চান, তাহলে এই সহায়ক টিপসগুলি পড়ুন।

১. নিয়মিত ব্যায়াম

গর্ভাবস্থায় হালকা ব্যায়াম শুধুমাত্র আপনার স্টেমিনা বাড়ায় না, কিন্তু ওই সময়ের জন্য আপনাকে সক্রিয় রাখে। দৈহিক ব্যায়াম করে আপনার পেলভিক পেশী শক্তিশালী হয়। বিশেষ করে কেগেল ব্যায়াম খুব বড় সহায়ক। শ্রমশক্তির চাপের সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য উরুগুলিকে শক্তিশালী করার ব্যায়াম লাগে লাগে। বিশেষজ্ঞের তত্ত্বাবধানে এই ব্যায়াম করুন কারণ ভুল ব্যায়াম আপনাকে এবং আপনার শিশুর ক্ষতি করতে পারে। আপনি প্রি ন্যাটাল যোগা করতে পারেন, যা আপনার স্থিতিস্থাপকতা এবং নিয়ন্ত্রণ শ্বাস বৃদ্ধিতে সাহায্য করতে পারে। যোগ ছাড়াও এটি আপনাকে শান্তি এবং সান্ত্বনা দেয়।

কেগেল ব্যায়াম কিভাবে করবেন
২. খাদ্যের উপর নজর

সঠিক খান এবং ভাল খাওয়া আপনার ওজন বাড়ানোর জন্য সাহায্য করবে কারণ আপনার ওজন বাড়ানো আপনার স্বাভাবিক প্রসবকে প্রভাবিত করতে পারে। অনেক মহিলা গর্ভাবস্থার জন্য অজুহাত তৈরি করে এবং তাদের ওজন বৃদ্ধি করার জন্যে ফ্যাট ফুড গ্রাস করে। নিয়ন্ত্রণের জন্য আপনার ক্ষুধা রাখুন। পুষ্টি কেবল স্বাস্থ্যের জন্যই নয়, তবে আপনার শিশুর বিকাশের জন্যও অপরিহার্য। আপনার শরীরকে শক্তিশালী ও পুষ্ট করার জন্য খাবার অপরিহার্য। গর্ভধারণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য একটি সুস্থ ও যত্নশীল শরীর প্রস্তুত করুন এবং আরামদায়ক বোধ করুন। প্রচুর জল পান করুন এবং সব সবুজ সবজি ও ফল খান।

৩. মানসিক চাপ থেকে দূরে থাকুন

চাপ, বিরক্তি এবং হতাশা থেকে দূরে থাকুন। আপনার এই অবস্থায় শান্ত এবং স্থিতিশীল হতে অনেক সময় মানসিক চাপ থেকে দূরে থাকতে কষ্ট হয় কিন্তু আপনি এখনও নিজেকে শান্ত রাখতে চেষ্টা করুন। গর্ভাবস্থার সাথে সম্পর্কিত ভাল বই পড়া, ভাল সংঘে থাকুন এবং ভাল মানুষের সাথে থাকুন। আপনি যার দ্বারা উদাসীনতা এবং অস্বস্তিকর বোধ করেন তাদের থেকে দূরে থাকুন। মনে রাখবেন যে এই টান আপনার শিশুকে প্রভাবিত করতে পারে।

৪. নিঃশ্বাসের ব্যায়াম

গর্ভাবস্থায় শ্বাস সংক্রান্ত ব্যায়াম খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ শিশুর জন্মের সময় আপনাকে সময়মত শ্বাস বন্ধ করতে হবে। নবজাতকের বৃদ্ধির জন্য যথাযথ ও পর্যাপ্ত অক্সিজেন অপরিহার্য। অতএব ধ্যান করতে পারেন। এটি আপনাকে স্বাভাবিক ডেলিভারির কাছাকাছি নিয়ে আসবে।

৫. নিজেকে শিক্ষিত করুন

শিশুর জন্ম এবং শ্রম প্রক্রিয়ার জন্য নিজেকে শিক্ষিত করুন। যেমন ব্রথিং এবং বিনোদন হিসাবে প্রাকৃতিক ব্যথা ব্যবস্থাপনা কৌশল সম্পর্কে তথ্য পান; আপনি আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করতে পারেন এবং প্রিন্সিপাল ক্লাসে যেতে পারেন আপনার জন্মের সাথে সম্পর্কিত সাধারণ তথ্য বৃদ্ধি করতে। যেমন প্রিন্টেল ক্লাসে যান, যেখানে শিশুশিক্ষা পরিচালনার কৌশল শেখানো হয়। আপনি অনলাইন গবেষণা, ভাল বই পড়তে পারেন।

৬. নিয়মিত ম্যাসেজ

সপ্তম মাস গর্ভাবস্থার পর আপনাকে নিয়মিত ম্যাসেজ করতে হবে। এটি মানসিক চাপ কমানো এবং গর্ভবতী মায়ের শ্রম পরিত্রাণ পেতে সাহায্য করে। এটা যৌথ ব্যথা এবং পেশী টান কমাতেওঁ সাহায্য করে।

৭. ডেলিভারির জন্য সহকর্মীদের খুঁজুন

যদি আপনি ওষুধের বিনামূল্যে ডেলিভারি চান, তাহলে আপনার চারপাশে আপনার সহকর্মীদের রাখার জন্য এটি গুরুত্বপূর্ণ। আপনি মনে করতে পারেন যে আপনার গর্ভাবস্থায়, আপনার মা, বোন এবং পরিবারের সঙ্গে আপনার থাকা ভাল হবে না এবং আপনার বাচ্চাকে বড় করতে হবে। বরং তিনি আপনাকেও উৎসাহিত করবেন। প্রসবকালে সহকর্মীদের জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মনে রাখবেন যে আপনার সহকারী যারা আপনার যত্ন নেয় তারা যেন শক্তিশালী হয়।

৮. এক জায়গায় বসে থাকবেন না, হাঁটাহাঁটি করুন

যখন আপনি হাসপাতালে যান, এক জায়গায় বসবেন না, নিরীক্ষণের সময় আপনি হাঁটতে যাওয়ার সুযোগ পাবেন। হিপস, পেটের মোচড়, ইত্যাদির আন্দোলন প্যাভিলিয়ান পেশীকে শক্তিশালী করে, শিশুটি বেরিয়ে আসা সহজ করে দেয়।

৯. চূড়ান্ত পদক্ষেপ

যখন শেষ পর্যায়ে গর্ভাশয়ে ৭-১০ সেন্টিমিটারে ছড়িয়ে পড়ে, তখন পেনাল্টিতে সময় থাকে। মনে রাখবেন যে আপনার অংশীদার এই স্তরে আপনার সমস্ত তথ্য পায়। এই প্রক্রিয়ার জন্য আপনার নিজেকে উন্মুক্ত মনে করা উচিত। এবং আপনার বাচ্চার জন্য সব অধিকার চয়ন করুন।

১০. আপনার শরীরের ওপর বিশ্বাস রাখুন

পূর্বপুরুষের সময় থেকে শিশুরা জন্মগ্রহণ করে এসেছে এবং পুরাতন সময়ে মৃত্যুর হার আজকের চেয়ে অনেক কম ছিল। তাদের ডেলিভারি প্রক্রিয়া কম বেদনাদায়ক এবং আজকের চেয়ে বেশি আরামদায়কও ছিল।

আপনার বিস্ময়কর শরীরের উপর সাহস এবং আস্থা রাখুন, সঠিক বর্ণনায় থাকুন এবং আপনার শরীর ও শিশু যা করতে চায় তা করতে দিন।

সাধারণ প্রসবে সন্তানের সুবিধা
কিভাবে হয় প্রসব অর্থাৎ ডেলিভারি? সে সম্পর্কে সম্পূর্ণ জ্ঞান
সাধারণ ডেলিভারি জন্য আপনার প্রয়োজনীয় টিপস
১০টি জিনিস যা আপনি শুধুমাত্র একটি সাধারণ ডেলিভারিতে পেতে পারেন
৫টি জিনিশ যা সন্তান প্রসব সম্বন্ধে কেউ আপনাকে বলবে না
সি-সেকশন প্রসব পদ্ধতি নিয়ে মিথ্যে ধারণা ও আসল সত্য
ডেলিভারি পরে আপনার সেলাই ভাল রাখার ৭টি সহজ টিপস

 

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon