Link copied!
Sign in / Sign up
16
Shares

মশলাদার স্ট্রিট ফুড আর স্ট্রিটে নয়, বাড়িতে বানিয়ে খান; ১০টি রেসিপি


ছোটবেলায় বাইরের খাবার কিনে খেতে প্রত্যেকেই বায়না করে। এমনকি বাচ্চারা স্কুল ছুটির পরে সার সার দিয়ে সাজানো ফুচকা, আলুকাবলি, পাপড়ি চাটের পসরা দেখে নিজেদের আটকাতে পারেনা। এখন নিজেই বানিয়েফেলুন চটপটে স্ট্রিট ফুড। একদম ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানানো এই রেসিপিগুলিতে কোনও অংশে রাস্তার ফেরিওয়ালাদের চেয়ে কম স্বাদ হবেনা।

১. পাপড়ি চাট

পাপড়ি তৈরির জন্য: ময়দা—১ কাপ, খাবার সোডা— এক চিমটে, নুন— আধ চা চামচ, জোয়ান— আধ চা চামচ, কালো জিরে— আধ চা চামচ, ঘি— ২ টেবিল চামচ, তেল— ১ কাপ

প্রণালী: ময়দা ভাল করে চেলে নিন। তাতে খাবার সোডা, নুন, জোয়ান আর কালো জিরে মেশান। এ বার পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘি দিন। জল দিয়ে ভাল করে ময়দা মেখে নিন। ময়দার তাল থেকে ছোট্ট ছোট্ট লেচি কেটে বেলে নিন। পাপড়ির উপরে কাঁটা চামচ দিয়ে ছোট ছোট ফুটো করে নিন। কড়াইয়ে তেল গরম করুন। পাপড়ি ফুটন্তে ছাঁকা তেলে লালচে করে ভেজে তুলে নিন। পাপড়ি চাট বানানোর জন্য পাপড়ি তৈরি।

সবুজ চাটনি: ধনে পাতা— এক আঁটি, পুদিনা পাতা— এক আঁটি, কাঁচা লঙ্কা— ২টি, পাতি লেবু— ১টি, বিট নুন— স্বাদ মতো

প্রণালী: ধনে পাতা, পুদিনা পাতা আর কাঁচা লঙ্কা একসঙ্গে বেটে নিন। তাতে পাতি লেবুর রস আর বিট নুন দিন। ভাল করে মিশিয়ে নিলের তৈরি সবুজ চাটনি।

তেঁতুলের চাটনি: তেঁতুল— ৩ টেবিল চামচ, খেজুর— ৬টি, গুড়— ৩ চেবিল চামচ, মৌরি— আধ চা চামচ, ধনে গুঁড়ো— এক চিমটে, জিরে গুঁড়ো— আধ চা চামচ, লঙ্কা গুঁড়ো— আধ চা চামচ, নুন— স্বাদ মতো

প্রণালী: কড়াইয়ে জল গরম বসান। তাতে তেঁতুল আর খেজুর একসঙ্গে দিয়ে সেদ্ধ করতে দিন। তেঁতুল-খেজুর সেদ্ধ হয়ে নরম হলে গুড় দিয়ে ফোটান। এ বার তাতে একে একে মৌরি, ধনে গুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো, লঙ্কা গুঁড়ো আর নুন দিন। চাটনি ফুটে ঘন হয়ে এলে নুন-মিষ্টি চেখে নিন। এ বার নামিয়ে নিন। তেঁতুলের টক-মিষ্টি চাটনি তৈরি।

চাটের উপকরণ: পাপড়ি— ১৮-২০টি, টক দই— ১ কাপ, আলু— ১টি, পেঁয়াজ— ১টি, টোম্যাটো— ১টি, ছোলা— ১ কাপ, ধনে পাতা— আধ আঁটি, কাঁচা লঙ্কা— ৩-৪টি, লঙ্কা গুঁড়ো— ১ চা চামচ, চাট মশলা— ১ চা চামচ, বিট নুন— ১ চা চামচ, চিনি—১ চা চামচ, পাতি লেবু— ১টি, ঝুরি ভাজা— ১ কাপ, সবুজ চাটনি— ১ কাপ, তেঁতুলের চাটনি— ১ কাপ

পাপড়ি চাট বানাবেন কীভাবে: আলু সেদ্ধ করে রাখুন। পেঁয়াজ, টোম্যাটো, কাঁচা লঙ্কা, ধনে পাতা, কাঁচা লঙ্কা আলাদা আলাদা করে কুচো করে নিন। টক দই ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করে নিন। ছোলা সামান্য নুন দেওয়া জলে সেদ্ধ করে জল ঝরিয়ে রাখুন। ফ্রিজ থেকে ঠাণ্ডা টক দই বের করে লঙ্কা গুঁড়ো, চিনি আর নুন মিশিয়ে ভাল করে ফেটিয়ে মিহি করে নিন। এ বার পরিবেশন করার পাত্রে প্রথমে পাপড়ি সাজিয়ে নিন। তার উপরে একে একে আলু সেদ্ধ, পেঁয়াজ কুচি, টোম্যাটো কুচি, ছোলা সেদ্ধ দিন। তার উপরে ফেটানো টক দই, আরও একটু ছোলা সেদ্ধ, চাট মশলা, পাতি লেবুর রস, বিট নুন, সবুজ চাটনি ও তেঁতুলের চাটনি ছড়িয়ে দিন। একদম উপরে অনেকটা ঝুরিভাজা ছড়িয়ে পরিবেশন করুন পাপড়ি চাট।

২. আলুকাবলি 

উপকরণ : সিদ্ধ আলু ৫০০ গ্রাম, জল ঝরানো টক দই ২৫০ গ্রাম, কর্নফ্লাওয়ার আধা কাপ, পাকা টমেটো ২০০ গ্রাম, কচি শসা ২০০ গ্রাম, পেঁয়াজ কিউব করে কাটা ৪ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, কাঁচা লঙ্কা কুচি ২ চা চামচ, টালা লঙ্কা গুঁড়ো ১ চা চামচ, টালা জিরা গুঁড়ো ১ চা চামচ, সাদা গোললঙ্কা গুঁড়ো ১ চা চামচ, চাট মসলা ১ টেবিল চামচ, বিট নুন আধা চা চামচ, নুন স্বাদ অনুযায়ী, চিনি ১ টেবিল চামচ, সয়াবিন তেল ১ কাপ।

যেভাবে তৈরি করবেন : আলু সিদ্ধ করে গরম থাকতে চটকে নিন। এবার আলুর সঙ্গে অর্ধেক জিরার গুঁড়া, গোললঙ্কা গুঁড়া, স্বাদমতো নুন দিয়ে মেখে নিন। আলুর মিশ্রণ থেকে পরিমাণমতো নিয়ে গোলাকার চ্যাপ্টা চাপ বানিয়ে কর্নফ্লাওয়ারে গড়িয়ে নিন। এরপর চুলায় তেল গরম হওয়ার পর দুই পিঠ বাদামি করে ভেজে নিন। জল ঝরানো টক দই, বাকি জিরা গুঁড়া, চাট মসলা, টালা লঙ্কা গুঁড়া, চিনি, স্বাদমতো লবণ, বিট নুন দিয়ে মেখে নিন। টমেটো ও শসা বিচি ফেলে ছোট কিউব করে কেটে নিন। টমেটো, শসা, পেঁয়াজ কিউব, কাঁচা লঙ্কা কুচি, ধনেপাতা কুচি সামান্য নুন দিয়ে মেখে নিন। একটি ছড়ানো থালায় ভাজা চপগুলো রেখে প্রতিটির ওপর প্রথমে দইয়ের মিশ্রণ দিন। তার ওপর টমেটোর মিশ্রণ দিন। এবার সামান্য জিরা গুঁড়ো ও চাট মসলা ওপরে ছড়িয়ে পরিবেশন করুন মজাদার আলুর চাট।

৩. ভেলপুরি

পুরি তৈরির উপকরণ: সুজি ১ কাপ, ময়দা/আটা ১ কাপ, নুন আধা চা চামচ বা স্বাদ মতো, জল ১ কাপ বা পরিমাণ মতো, কালো জিরা ১ চিমটি (ইচ্ছা), তেল ১ কাপ (ভাজার জন্য)

 

প্রণালি: ময়দা/আটা, সুজি , কালো জিরা ও নুন মিশিয়ে একটু একটু করে জল ঢেলে রুটি বানানোর মতো করে কাই বানাতে হবে এবং পাতলা ভেজা নরম কাপর দিয়ে কাইটা ৩০ মিনিট ঢেকে রাখুন। এরপর আধা ইন্চি পুরু করে রুটি বানাতে হবে বড় করে। এবার বিস্কিট কাটার বা ছোট কোনো স্টিলের গ্লাসের সাহায্যে গোল গোল করে পুরি কেটে নিতে হবে অথবা সরাসরি পিরিতে পছন্দসই সাইজ মতো বেলেও নিতে পারেন। কাঁটা চামচের সাহায্যে পুরিগুলো কয়েকটা ছিদ্র করে ফ্যানের নিচে ৩০ মিনিট শুকাতে দিন। তেল গরম করে সোনালি করে ডুবে তেলে ভেজে নিন পুরিগুলো। তেল ঝরিয়ে টিস্যু পেপারের ওপর রাখুন এতে বাড়তি তেল সরে যাবে।

পুর তৈরীর উপকরণ: ডাবলী বুট ১কাপ (সিদ্ধ করে নিতে হবে), আলু ২/৩ টি(সিদ্ধ করে নিতে হবে), নুন আধা চা চামচ, বিট নুন আধা চা চামচ বা পরিমান মতো, কাঁচা লঙ্কা কুচি ১ টে চামচ, শুকনা লঙ্কা টেলে হাতে গুঁড়ো করে নিতে হবে ১-২ টি, ভাজা জিরা গুঁড়ো আধা চা চামচ, শশা কুচি আধা কাপ, পিঁয়াজ কুচি ২-৩ টে চামচ, ধনে পাতা কুচি ২ টে চামচ, লেবুর রস বা তেতুল গোলা জল ১ চা চামচ

 প্রণালি: আগে ডাল ও আলু ভালো করে মাখিয়ে পরে বাকি উপাদান মিশিয়ে নিন। এবার পুরির উপর একটু একটু করে পুর সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

৪. ঝাল মুড়ি

উপকরন: মুড়ি এক কেজি, চানাচুর প্যাকেট ১ টি ( আধা কেজি সাইজের) টি, কাঁচা লঙ্কা কুচি ৮ টি, পেয়াজ ৫ টি কুচি করে কাটা, বিট নুন পরিমান মত, গোলমরিচের গুঁড়ো পরিমান মত, শসা ২ টি, ধনে পাতা কুচি পরিমান মত, ঝাল মুড়ির সস তৈরিতে

উপকরন: পেয়াজ বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১/২ চা চামচ আদা বাটা ১/২ চা চামচ, সরিষার তেল পরিমান মত ( এক কাঁপ ), বিট নুন পরিমান মত, গোলমরিচের গুঁড়ো ২ চা চামচ, এলাচ ৫ টি টালা, দারচিনি ৪ টি টালা, পাঁচফোড়ন ২ চা চামচ, কাঁচালঙ্কা কুচি ১ চা চামচ, জাইফল ১ টি গুঁড়ো করা, জইত্রিক ১/২ চা চামচ, তেজপাতা ১ টি

সস তৈরির প্রণালী: প্রথমে সস বানাতে হবে। সস বানাতে সসের সব শুকনো উপকরন চুলাই টেলে নিয়ে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। তারপর তেল দিয়ে তাঁতে পেয়াজ বাটা, রসুন বাটা, আদা বাটা, দিয়ে সামান্য কষিয়ে শুকনো টালা মসলা ও নুন দিয়ে নাড়তে হবে।

ঝালমুড়ি তৈরি: মুড়ি, চানাচুর, পেঁয়াজ, কাচালঙ্কা কুচি, গোলমরিচের গুঁড়ো, শসা কুচি, বিট নুন ও ধনে পাতা কুচি সব একসাতে মিক্স করে তার সাথে পাঁচফোড়নের সস দিয়ে নেড়ে তৈরি করতে হবে ঝাল মুড়ি।

৫. ঘুগনি

উপকরণ : মটর দানা ১ কাপ, হলুদ ১ চা চামচ, জিরা সামান্য, শুকনো লাল লঙ্কা ১ টা, তেজ পাতা ২ টা, গরম মসলা গুড়া ১/২ চা চামচ, আদা বাটা ১/২ চা চামচ, রসুন বাটা ১/২ চা চামচ, লাল লঙ্কা গুড়া ১ চা চামচ, জিরা গুড়া ১/৪ চা চামচ, ধনে গুড়া ১/৪ চা চামচ, টমেটো পিউরি ২ চা চামচ, চিনি ১/২ চা চামচ, তেল প্রয়োজনমত, নুন স্বাদমত

প্রণালী : সারারাত জলে ১ কাপ মটর দানা ভিজিয়ে রেখে cooker এ ১ গ্লাস পানি, ১/২ চা চামচ নুন , ১/২ চা চামচ হলুদ গুড়া দিয়ে ৫-৬ শিস দিয়া পর্যন্ত সেদ্ধ করুন | কড়াইতে তেল দিয়ে তাতে সামান্য জিরা, ১ টা শুকনো লাল মরিচ, ২ টা তেজপাতা দিয়ে ১ মিনিট ভাজুন | কড়াইতে ১ টা বড় পেঁয়াজ কুচি, নুন ও ১/২ চা চামচ হলুদ গুড়া দিয়ে ভাজুন পেঁয়াজ আধা নরম হওয়া পর্যন্ত | এখন বাকি সব মসলা দিয়ে ও সামান্য জল দিয়ে তেল বের হয়ে না আসা পর্যন্ত ভাজুন | ২ চা চামচ টমেটো পিউরি দিয়ে ভালো করে মেশান, তারপর সেদ্ধ মটর দানা, ১/২ চা চামচ চিনি ও ১ কাপ জল কড়াইতে দিন ও কয়েক মিনিট ধরে সেদ্ধ করুন | ধনেপাতা কুচি ছিটিয়ে পরিবেশন করুন |

৬. এগ রোল

উপকরণ : ডিম ২টা, ময়দা ১ কাপ, নুন স্বাদমতো, জল পরিমাণ মতো, তেল পরিমাণ মতো, পছন্দ মতো রান্না করা কিমা ১ কাপ, টেস্টিং সল্ট আধা কাপ।

প্রণালি : প্রথমেই ডিম, ময়দা, লবণ, টেস্টিং সল্ট ও জল দিয়ে গোলা বানিয়ে নিন। এবার ননস্টিক প্যানে বানিয়ে রাখা গোলা ছেড়ে দিয়ে পাতলা প্যানকেকের মতো ভেজে নিন। ভাজা প্যানকেকে কিমার পুর ভরে রোল বানিয়ে নুন দিয়ে ফেটে রাখা ডিমে রোলগুলোকে গড়িয়ে গরম ডুবু তেলে ভেজে তুলে ফেলুন। এবার পরিবেশন করুন হট টমেটো সস দিয়ে মজাদার এগ রোল।

৭. মোগলাই পরোটা

উপকরণ: পৌনে এক কাপ মিহি ময়দা, পৌনে এক কাপ আটা, দেড় কাপ মুরগির মাংসের কিমা, দুইটি পেঁয়াজ, কুচি করা, দুইটি টমেটো, কুচি করা, দুইটি ডিম, কয়েকটা কাঁচামরিচ, কুচি করা, ধনেপাতা এবং পুদিনা পাতা কুচি, সিকি চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, এক চা চামচ লঙ্কা গুঁড়ো, আধা চা চামচ গরম মশলা, দুই টেবিল চামচ আদা-রসুন বাটা, দুই টেবিল চামচ সুজি, সামান্য বেকিং সোডা, সিকি কাপ দুধ, নুন স্বাদমতো, তেল প্রয়োজনমতো

প্রণালী: প্রথমে আটা ও ময়দা একসাথে একটি বড় বোলে ঢেলে নিন। এর মাঝে সুজি, লবণ, এক চিমটি বেকিং সোডা একত্রে মিশিয়ে নিন। এরপর দুধ ঢেলে ভালোমত মেখে ডো তৈরি করে নিন। হালকা ভেজা সুতি কাপড়ে মুড়িয়ে ১০-১৫ মিনিট রেখে দিন এই ডো। এই ফাঁকে তৈরি করে নিন ভেতরে দেওয়ার পুর। গ্যাসে প্যান গরম করে এর মাঝে অল্প করে তেল দিন। তেল গরম হলে এতে পেঁয়াজ দিয়ে হালকা করে সাঁতলে নিন। এর মাঝে দিন আদা-রসুন বাটা। কিছুটা কাঁচালঙ্কা এতে দিয়ে নেড়ে মিশিয়ে নিন। এরপর ভাজতে থাকুন যতক্ষণ না পেঁয়াজে একটু বাদামি ভাব আসে। পেঁয়াজে রঙ ধরলে এতে টমেটো কুচি, গরম মশলা, লঙ্কা গুঁড়ো, হলুদ গুঁড়ো এবং কিছুটা নুন দিয়ে ভালো করে নেড়েচেড়ে মিশিয়ে নিন। মিশ্রনের মুরগির মাংসের কিমা দিয়ে কিছুক্ষণ ভাজুন। এরপর অল্প করে জল দিয়ে নেড়ে ডাকা দিয়ে রাখুন ৫-৭ মিনিট। এর মাঝে রান্না হয়ে যাবে। নামানোর আগে ধনেপাতা এবং পুদিনা পাতা কুচি দিন। একটি পাত্রে ডিম ফেটে মিশিয়ে নিন নুন দিয়ে। এটাকে একপাশে সরিয়ে রাখুন। এবার ডো থেকে তৈরি করতে হবে পরোটা। বড় করে পরোটা বেলে নিন। পরোটার মাঝে কিমার পুর দিয়ে ছড়িয়ে নিন। এর ওপরে দুই চা চামচ ডিমের মিশ্রণ ছড়িয়ে নিন। এরপর চারপাশ থেকে পরোটার কিনারাগুলো তুলে ঢেকে দিন কিমার পুর যাতে চৌকো একটি আকৃতি তৈরি হয়। কিনারাগুলো আটকে রাখার জন্য ডিমের মিশ্রণ ব্যবহার করুন। গরম কড়াইতে বেশি করে তেল দিতে হবে। ডুবোতেলে ভাজতে না চাইলে এমনভাবে তেল দিতে হবে যাতে অন্তত পরোটা ভালোভাবে ভাজা হয়। এরপর সাবধানে পরোটাটিকে তেলে ছাড়তে হবে। এ সময়ে লক্ষ্য রাখুন পরোটা যেন ভেঙ্গে না যায়। একেক পিঠে ৪-৫ মিনিট করে ভেজে তুলে নিন পরোটা।  তেল ঝরিয়ে নিয়ে কেটে নিন মোগলাই পরোটা এবং সালাদ অথবা কেচাপের সাথে পরিবেশ করুন গরম গরম।

৮. ডালের বড়া

উপকরণ: মসুরের ডাল ২৫০ গ্রাম, রসুনবাটা ১ চা-মাচ, হলুদগুঁড়ো হাফ চা-চামচ, মরিচের গুঁড়ো হাফ চা-চামচ, নুন স্বাদ অনুযায়ী, ধনেপাতা ২ টেবিল-চামচ ও কাঁচা লঙ্কা কুচি ১ চা-চামচ, পেঁয়াজ মিহি করে কাটা ১ কাপ, তেল ভাজার জন্য এবং জল পরিমাণমতো।

প্রণালি: মসুরের ডাল ভালোভাবে ধুয়ে সারাদিন জল দিয়ে ভিজিয়ে রেখে তা আবার ধুয়ে নিয়ে জল ছেঁকে নিয়ে পাটায় মিহি করে বেটে তাতে একে একে পেঁয়াজ, ধনেপাতা ও কাঁচামচি কুচি, হলুদ ও মরিচের গুঁড়া, রসুনবাটা স্বাদ অনুযায়ী নুন এবং প্রয়োজন হলে অল্প জল দিয়ে ভালোভাবে মেখে নিয়ে বড়ার আকারে করে ডুবন্ত গরম তেলে ভেজে গরম গরম পরিবেশন করুন।

৯. ফলের চাট

উপকরণঃ পাকা কামরাঙা ২টা, আনার ১টা, পাকা পেঁপে ১ কাপ, কলা ২টা, কাবুলি চানা ১ কাপ, জাম্বুরার রস ১ কাপ, তেঁতুলের মাড় ১ টেবিল চামচ, চাট মসলা ১ টেবিল চামচ, চিনি ২ চা চামচ, নুন আধা চা চামচ, শুকনা লঙ্কা ভাজা গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, বিটনুন সামান্য, ভাজা তিল ১ চা চামচ।

প্রণালীঃ কামরাঙা, পেঁপে ও কলা কিউব করে কাটতে হবে। চানাবুট নুন দিয়ে ভালোভাবে সেদ্ধ করে নিতে হবে। এবার সব উপকরণ জাম্বুরার রস দিয়ে মিশিয়ে ফ্রিজে রাখতে হবে ঠান্ডা না হওয়া পর্যন্ত। এরপর ভাজা তিল ওপরে ছিটিয়ে দিয়ে পরিবেশন।

১০. ঘটি গরম 

এটি সবথেকে সহজ ও অতি সুস্বাদু একটি রেসিপি যেটা যেকোনো সময় মুখ চালানোর জন্যে খাওয়া যেতে পারে। অল্প খিদে বা চায়ের সাথে স্বাধ মেটাতে এই ঘটি গরম অন্যতম। এর রেসিপিটি জানতে নিচের ভিডিতে ক্লিক করুন।

 

আমাদের এই পোস্টটি পড়ার জন্যে ধন্যবাদ। 

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon