Link copied!
Sign in / Sign up
5
Shares

মহিলাদের মাসিক হওয়ার কারণ হিসেবে যেই পৌরাণিক বিশ্বাস আজও অনেকের মনে রয়েছে


যদি আমরা এই শতাব্দীর কথা বলি, তাহলে আজকের দিনে পুরুষ ও নারীর মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। পুরুষদের কাঁধে কাঁধ রেখে নারীদের চলার ক্ষমতা আছে। কিন্তু আপনি কি এই সত্য মনে করেন? নারী পুরুষদের অবিচ্ছেদ্য বলে বিবেচিত কি সত্যি হয়? অনেক পুরানো জিনিস রয়েছে যা নারীরা প্রকাশ্যে নিজেকে প্রকাশ করে না।

এর সেরা উদাহরণ নারীর মাসিক! এমনকি আমাদের দেশে অনেক পরিবর্তনের পরও, নারীরা তাদের মাসিকের সময় নিজেকে নেতিবাচক মনে করেন, তবে এটা বলা কঠিন যে, বৈষম্য দূর করা হয়েছে কি না।

আমরা সবাই মাসিকের পিছনে বৈজ্ঞানিক কারণ জানি, কিন্তু আপনি জানেন যে অনেক পুরানো গল্প মাসিকের সম্পর্কে বলা হয়েছে। আসুন আমরা এই গল্পটি সম্পর্কে বলি।

এটি বিশ্বাস করা হয় যে যখন গুরু বৃহস্পতি ভগবান ইন্দ্র দেবের বিরুদ্ধে ক্রুদ্ধ ছিলেন, এই বিষয়টি সুবিধা গ্রহণ করে অসুররা আক্রমণ করে স্বর্গে; ইন্দ্রদেবও তার রাজত্ব থেকে পালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

ব্রহ্মদেব ইন্দ্রের সামনে একটি শর্ত স্থাপন করেন যে, যদি তিনি সর্গকে ফিরিয়ে আন্তে চান তবে ওনাকে একজন সন্ন্যাসীর সেবা করতে হবে এবং যদি তিনি তাঁর সেবায় খুশি হন, তবে ইন্দ্রের স্বর্গ ফিরে আসবে। এই মতামত শুনে, ইন্দি সাধুদের সেবা করতে শুরু করেন কিন্তু তাঁর কোনও ধারণাই ছিল না যে ঐ সন্ন্যাসীর মা অসুর ছিলেন এবং সেইজন্যই তিনি অসুরদের কাছাকাছি ছিলেন।

তারা সন্ন্যাসীকে দেওয়া উপাদানগুলিকে ঈশ্বরকে উৎসর্গ করার পরিবর্তে অসুরের বস্তু প্রদান করত। যখন ইন্দ্র সাধুদের সত্যকে জানতে পারলেন, তিনি ব্রহ্মদেবের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁকে হত্যা করেন এবং সেই সময় নিজের গুরুকে হত্যা করাকে একটি বড় অপরাধ বলে মনে করা হতো এবং এ কারণে ইন্দ্রদেব নিরাপত্তার জন্যে কয়েক বছর ধরে পালিয়ে বেড়ান ও একটি ফুলের মধ্যে গোপন করে বিষ্ণু দেবীর প্রার্থনা করেন।

ইন্দ্রের ভক্তি দেখেই বিষ্ণু অত্যন্ত খুশি হয়ে তাঁকে পরামর্শ দেন যে তাঁর গুরুকে হত্যাকান্ডকে অপরাধ মুক্ত করবেন যদি তিনি গাছ, মাটি, জল ও মহিলাদের মধ্যে তার পাপের বোঝা লুকিয়ে রাখেন এবং একটির সাথে অন্যটি মেলাতে পারেন।

পাপের একটি অংশ বৃক্ষকে দেওয়া হয়, বিনিময়ে, যার জন্য এটিকে বাঁচিয়ে থাকার জন্য একটি বিধান দেওয়া হয়।

জল যখন অভিশপ্ত হয়, বিনিময়ে, এটি বিশ্বের সমস্ত জিনিস পবিত্র করতে পারে এই আশীর্বাদ দেওয়া হয় এবং কোনো হিন্দু ঐতিহ্য অনুযায়ী, প্রতিটি পুজোতে জল খুব পবিত্র বলে মনে করা হয়।

অভিশাপের তৃতীয় অংশটি জমিতে দেওয়া হয়েছিল এবং ফেরত পাওয়ার জন্য এটি পুনরুদ্ধারের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছিল। বর্তমানে নারীদের মধ্যে অভিশাপের শেষ অংশ মাসিক হিসাবে দেওয়া হয় এবং বিনিময় হিসাবে পাওয়া গেছে, নারীদের চেয়ে বেশি কর্মক্ষেত্রে উপভোগ করার সুযোগ কেউ পাবেনা।

এখন আপনি জানতে পারলেন যে আপনার প্রতি মাসে মাসিক থাকার কারণ ব্রহ্মের হত্যাকাণ্ড!

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon