Link copied!
Sign in / Sign up
2
Shares

মায়ের স্তনের দুধেরও হয় এক্সপায়ারি ডেট?

মা হওয়া প্রতিটি মহিলার জন্য একটি আশীর্বাদ। এটা যেকোনও মহিলার জন্য একটি সুখী অনুভূতি এবং বাচ্চাকে স্তন্যপান করানোও হল তাঁর জন্যে আরো সুখের মুহূর্ত। মায়ের দুধকে নবজাতকের জন্য অমৃত বলে বিবেচনা করা হয় কারণ কোনও নবজাতকের জন্য এর চেয়ে বেশি স্বাস্থ্যকর কিছু নেই। মায়ের দুধ শিশুটির ইমিউন পাওয়ার বৃদ্ধি করে এবং শিশুর সুস্থ হওয়ার কারণও। প্রত্যেকটি মা তার বাচ্চার ভালোভাবে যত্ন নিতে চেষ্টা করেন। একটি সময় ছিল যখন মায়েরা কোথাও বাইরে গেলে বাচ্চাকে পরিস্থিতি অনুযায়ী ইতস্তত বোধ করলেও দুধ খাওয়াতে বাধ্য হতেন।

কিন্তু আজকাল, এমন পাত্র বেরিয়ে গেছে যার মধ্যে নারীরা তাদের দুধ সংরক্ষণ করতে পারেন ও শিশুদের প্রয়োজন মত পান করাতে পারেন। কখনও কখনও পরিস্থিতি এমন হতে পারে যে নারীরা তাদের শিশুকে দুধে খাওয়ানোর মতো পরিস্থিতি পেল না যেমনটা কোনও বিয়েতে বা পার্টিতে হয়, সেখানে অনেক লোক থাকে, এটা খুব কঠিন হয়ে যায়। অফিসে কাজ করে যেসব মহিলারা তারাও চান যে তাদের বাচ্চা মায়ের দুধ পান করুক, তবে তাদের জন্য এটি কঠিন হয়ে দাঁড়ায়, কিন্তু এখন এই পাত্রের সাহায্যে তাদের দুধে সংরক্ষণ করে। 

কিন্তু আপনি কি জানেন যে আপনার শিশুর জন্য আপনার যে স্তনদুগ্ধ সংরক্ষণ করছেন তারও মেয়াদকাল রয়েছে? এটা শুনে আপনি আশ্চর্য হতে পারেন, কিন্তু এটা সত্য যে বাইরের জিনিসগুলির যেমন মেয়াদ শেষ হওয়ার পরে সেটি নষ্ট হতে শুরু করে তেমনি মায়ের দুধও নির্দিষ্ট সময়ের পরে আরো খারাপ হতে শুরু করে।

আপনি কিভাবে জানেন যে বুকের দুধ নষ্ট হয়ে গেছে?

১. দুধ সংগ্রহের সময়কাল

দুধ সংরক্ষণের সময় খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদি আপনি আপনার ব্রেস্টমিল্ককে চার ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে সংরক্ষণ করেন তবে এটি আরও খারাপের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে। ব্রেস্ট মিল্ক, যা চার ঘণ্টার বেশি সময় ধরে সংরক্ষণ করা হয়, আপনার শিশুর জন্য সব সময় ক্ষতিকর।

২. যদি আপনার শিশু না খেতে চায়?

যদি আপনার শিশু সঞ্চিত দুধ পান করতে না চায়, তার মানে হল দুধের স্বাধ খারাপ হয়ে গেছে; আপনার শিশুকে বাধ্য করার চেষ্টা করবেন না।

৩. যদি দুধ জমে যায়?

স্বাভাবিক দুধের দুধের এই দুধও জমে বা কেটে যেতে পারে। আপনার শিশুর দুধ দেওয়ার আগে একবার পরীক্ষা করুন; যদি আপনি দুধের উপরে কিছু স্তর বা ফুটে থা জিনিস দেখেন, একবার ঝাঁকিয়ে নিন, যদি আগের মত পাতলা হয়ে যায় তো ঠিক আছে, কিন্তু যদি যেমনকার তেমনই থাকে বুঝবেন সেটি নষ্ট হয়ে গেছে।

৪. যদি স্বাদ টক হয়ে যায়?

শিশুর কাছে কিছু দেওয়ার আগে, মা নিজে  জিনিসটি স্পষ্ট করে তোলেন কারণ তিনি জানেন যে সে তাঁর বাচ্চাকে যা কিছু দিচ্ছেন সেটি ঠিক কি না, তাই আপনি দুধের ক্ষেত্রেও তা করতে পারেন। প্রথমে নিজে টেস্ট করুন; যদি দুধের স্বাদ টক হয়, তবে এর মানে হচ্ছে এটি নষ্ট হয়ে গেছে।

৫. যদি বাজে গন্ধ আসে

যদি সংরক্ষিত দুধটি আঁশটে বা বাজে গন্ধে করে তবে তা খারাপ হয়ে গেছে, কারণ এর পুষ্টিকর উপাদানটি দুধের সাথে শেষ হয়ে গেছে।

এই জিনিসগুলির খেয়াল রাখা গুরুত্বপূর্ণ

- ফ্রিজারে ব্রেস্টমিল্ক রাখবেন না বরং রেফ্রিজারেট করুন।

- চার ঘন্টার বেশি দুধ সংরক্ষণ করবেন না।

- ঠান্ডা দুধ গরম করার জন্য গ্যাসে ফোটাবেন না, যদি দুধ গরম করতে য় তবে গরম জলে ভরা একটি পাত্রে দুধের বোতল রেখে গরম করুন।

- কোনো কাঁচা জিনিসের থেকে দুধ সরিয়ে রাখুন।

- যদি আপনি ফ্রিজে দুধ রাখেন, তাহলে দরজার সামনে রাখবেন না, ভেতরের দিকে একপাশে রাখুন, কারণ ফ্রিজের দরজা খোলার কারণে অস্থায়ীভাবে অস্থিরতা দেখা দিতে পারে এবং দুধ আরও খারাপ হতে পারে।

তাই এখন যখন আপনি আপনার বাচ্চার জন্য আপনার ব্রেস্টমিল্ক স্টোর করবেন তখন এই বিষয়গুলি মাথায় রাখবেন।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon