Link copied!
Sign in / Sign up
9
Shares

মাছের ডিম দিয়ে তৈরী করুন ৬ রকম রেসিপি

বাঙালিদের জন্যে মাছ হল প্রাণ। মাছের কোন অংশ বাঙালিরা পরিপদ করে ভালোবাসেনা সেই নিয়ে ভাবতে বসলে বেলা গড়িয়ে যাবে। তার মধ্যে যদি হয় মাছের ডিম্ তাহলে তো কথাই নেই। মাছের বাজারে গিয়ে দর দাম করে আলাদা করে মাছের ডিম্ কেনা বাঙালিদের রীতি। তারপর বাড়িতে এসে দুপুরে মাছের ডিমের বড়া থেকে শুরু করে ঝোল, কোনোটা ব্যাড নেই। তাহলে আসুন না, এই মাছের ডিমকে আরেকটু চমক দিয়ে ফেলা যাক। নিচে ৬ রকম প্রণালী রইলো আপনার মত মিষ্টি বাঙালির জন্যে।

১. রুই মাছের ডিম দিয়ে করলা

উপকরণ : রুই মাছের ডিম ১ কাপ, করলা আধা কাপ, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, লঙ্কা গুঁড়া ১ চা চামচ, আদা বাটা আধা চা চামচ, রসুন বাটা আধা চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি কোয়ার্টার কাপ, কাঁচালঙ্কা ৬-৭টি, তেল কোয়ার্টার কাপ, নুন স্বাদমতো, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি : কড়াইতে তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি হালকা বাদামি করে ভেজে আদা বাটা, রসুন বাটা, হলুদ গুঁড়া, লঙ্কা গুঁড়া ও নুন দিয়ে মসলা কষিয়ে করলা দিন। করলা হালকা সিদ্ধ হলে রুই মাছের ডিম ও আধা গ্রাম জল দিয়ে ঢেকে দিন ডিম সিদ্ধ হওয়ার জন্য। ডিম সিদ্ধ হয়ে গেলে কাঁচালঙ্কা ও ধনেপাতা দিয়ে নেড়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

২. ইলিশের ডিমের কেক

উপকরণ: ইলিশ মাছের ডিম বড় ৪ টুকরো, ময়দা ১ কাপ, মুরগির ডিম ২টি, বেকিং পাউডার ১ চা-চামচ, গোললঙ্কাের গুঁড়া আধা চা-চামচ, দুধ সিকি কাপ, চিনি ২ চা-চামচ, নুন আধা চা-চামচ (স্বাদ অনুযায়ী), তেল বা মাখন আধা কাপ, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, কাঁচা লঙ্কা কুচি ২ টেবিল-চামচ, পুদিনাপাতা কুচি ২ টেবিল-চামচ ও লেবুর রস ১ টেবিল-চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি: তেল বা মাখন, চিনি, সিকি চা-চামচ নুন, গোললঙ্কাের গুঁড়া ও বেকিং পাউডার একসঙ্গে ফেটে নিন। মাখন ও চিনির সঙ্গে একেকটি করে মোট ২টি মুরগির ডিম ফেটে নিন। অল্প অল্প দুধ দিয়ে ফেটুন ও ময়দা আলতোভাবে মিশিয়ে নিন। বেকিং কেকের পাত্রে সামান্য মাখন মেখে ময়দা ছড়িয়ে চারধারে বিছিয়ে দিন। তৈরি মিশ্রণ এই পাত্রে ঢেলে সমানভাবে ছড়িয়ে দিন। এক চিমটি নুন মাছের ডিমে মেখে কেকের মিশ্রণের ওপর পাশাপাশি বিছিয়ে দিন। লেবুর রস, পেঁয়াজ, লঙ্কা ও পুদিনাপাতা এক চিমটি নুন দিয়ে মেখে নিন। ডিমের পাশে খালি জায়গা পেঁয়াজ ও লঙ্কাের মিশ্রণ দিয়ে ঢেকে দিন। ১৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপে প্রি-হিট ওভেনে ৪০ থেকে ৫০ মিনিট কেক বেক করুন।

৩. সবজি-মাছের ডিমের কাটলেট

উপকরণ: যেকোনো বড় মাছের ডিম দেড় কাপ। নুন ও হলুদ দিয়ে সিদ্ধ করে জল ঝরিয়ে নিন। বড় আলু সিদ্ধ একটি। কাঁচা কলা সিদ্ধ দুটি ২৫০ গ্রাম। সয়াসস এক টেবিল চামচ। সিজনিং সস (যেকোনো শপিংমলে পাওয়া যাবে) সিকি চামচ। কর্নফ্লাওয়ার চার টেবিল চামচ। নুন দুই চা-চামচ। লঙ্কা গুঁড়া আধা চা-চামচ। গোললঙ্কা ফাঁকি আধা চামচ। গরম মসলার ফাঁকি আধা চামচ। পেঁয়াজ মিহি কুচি দুই টেবিল চামচ। পুদিনা পাতা কুচি দুই টেবিল চামচ। ডিমের সাদা অংশ একটি। বিস্কুটের গুঁড়া এক কাপ। লেবুর রস এক টেবিল চামচ। চিনি দুই চা-চামচ। তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি: আলু ও কাঁচা কলা খোসা ছাড়িয়ে আধা ভাঙা করে নিন। তেল, কাঁচা লঙ্কা কুচি, পেঁয়াজ ও পুদিনা পাতা কুচি, কর্নফ্লাওয়ার, মুরগির ডিম ও বিস্কুটের গুঁড়া বাদে বাকি সব উপকরণ কাঁচা কলা ও আলুর সঙ্গে মিশিয়ে পাটায় মসৃণ করে বেটে নিন। একটি বাটিতে ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে এক চিমটি নুন মিশিয়ে ফেটে নিন। অন্য একটি সমতল প্লেটে টোস্ট বিস্কুটের গুঁড়া রাখুন। পেঁয়াজ, কাঁচা লঙ্কা ও পুদিনা পাতা কুচি কচলে নিন। তারপর কাঁচা কলা, আলু ও মাছের ডিমের মিশ্রণ, পেঁয়াজ, কাঁচা লঙ্কা ও পুদিনা পাতা কুচি এবং কর্নফ্লাওয়ার—সবকিছু একত্রে ভালো করে মিশিয়ে মেখে ৮-১০টি গোলা আলাদাভাবে ভাগ করে নিন। হাতের তালুতে সামান্য করে তেল মেখে নিয়ে একেকটি গোলা দিয়ে চেপে কাটলেটের আকারে তৈরি করে নিন। এটি গোলানো ডিমে চুবিয়ে বিস্কুটের গুঁড়ায় গড়িয়ে একটি ট্রেতে সাজিয়ে ফ্রিজে দুই ঘণ্টা রেখে দিন। ফ্রাই প্যানে তেল গরম করে দুই পিঠ লাল করে ভেজে যেকোনো সস বা চাটনির সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন।

৪. পটোলের দোলমায় মাছের ডিম

উপকরণ: পুর বানানোর জন্য: নুন হলুদ দিয়ে সিদ্ধ করা জল ঝরানো মাছের ডিম পৌনে এক কাপ। পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ। কাঁচা লঙ্কা কুচি এক টেবিল চামচ। যেকোনো সস এক টেবিল চামচ। হলুদ গুঁড়া সিকি চামচ। তেল দুই টেবিল চামচ। নুন আধা চা-চামচ অথবা স্বাদ অনুযায়ী।

প্রণালি: ফ্রাই প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি ভেজে নিয়ে হলুদ ও দুই টেবিল চামচ জল দিয়ে কিছুক্ষণ কষিয়ে নিন। তাতে মাছের ডিম, নুন ও কাঁচা লঙ্কা কুচি এবং সস দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে আঁচ কমিয়ে ঢেকে দিন। দুই মিনিট পর ঢাকনা খুলে আবারও নেড়ে চুলা বন্ধ করে ঢেকে দিন। পাঁচ মিনিট পর একটি বাটিতে বেড়ে রাখুন।

দোলমা রান্নার জন্য উপকরণ: বড় বা মাঝারি পটোল ৮-১০টি। পেঁয়াজ কুচি সিকি কাপ। হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ। লঙ্কা গুঁড়া সিকি চামচ। পেঁয়াজ বাটা সিকি কাপ। টক দই আধা কাপ। আদা বাটা এক চা-চামচ। রসুন বাটা আধা চা-চামচ। জিরা বাটা আধা চা-চামচ। কাঁচা লঙ্কা চেরা চারটি। তেজপাতা দুটি। নুন এক চা- চামচ। গরম মসলার গুঁড়া আধা চামচ। চিনি দুই চা-চামচ। তেল তিন টেবিল চামচ। ঘি এক টেবিল চামচ।

প্রণালি: পটোল ধুয়ে দুই ধারের মুখ কেটে ছিলে ভেতরের বিচি পরিষ্কার করে নিন। দুই পিঠে দু-তিনটি করে আঁক দিন। এবার প্রতিটি পটলের ভেতর ঠেসে পুর ভরে দিন। কর্নফ্লাওয়ার ঘন করে অল্প গুলে তা দিয়ে পটলের মুখ বন্ধ করে দিন। ফ্রাই প্যানে দুই টেবিল চামচ তেল নিয়ে তাতে অল্প জ্বালে ঢেকে পটোলের দুই পিঠ ভেজে নিয়ে উঠিয়ে রাখুন। একটি বাটিতে টক দইয়ের সঙ্গে নুন, হলুদ ও লঙ্কাের গুঁড়া, চিনি, আদা, রসুন ও জিরা বাটা মিশিয়ে ভালো করে ফেটে নিন। ফ্রাই প্যানে বাকি তেল গরম করে তেজপাতার ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভেজে নিন। বাদামি হয়ে এলে বাটা পেঁয়াজ দিয়ে লাল করে ভেজে দইয়ে মেশানো মসলা দিয়ে ভালো করে কষিয়ে নিন। এতে লঙ্কা ও সিকি কাপ জল দিয়ে পটোলগুলো ছেড়ে নেড়ে মাঝারি আঁচে ঢেকে দিন। ঝোল টেনে এলে গরম মসলার ফাঁকি ও ঘি দিয়ে নেড়ে আবারও কম আঁচে ঢেকে রাখুন পাঁচ মিনিট। তারপর চুলা বন্ধ করে দিন। ১০ মিনিট পর পরিবেশন করুন।

৫. মাছের ডিম দিয়ে করলা ভাজি

উপকরণ: করলা পাতলা গোল গোল করে কেটে বিচি পরিষ্কার করে নেওয়া দুই কাপ। আলু পাতলা করে কাটা আধা কাপ। যেকোনো বড় মাছের ডিম সিদ্ধ আধা কাপ। পেঁয়াজ গোল পাতলা করে কাটা এক কাপ। হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ। লঙ্কা গুঁড়া আধা চা-চামচ। তেল সিকি কাপ। কাঁচা ও পাকা লঙ্কা ফালি এক চা-চামচ অথবা স্বাদ অনুযায়ী। নুন স্বাদ অনুযায়ী।

প্রণালি: বাটিতে তেল, আধা কাপ পেঁয়াজ কুচি, কাঁচা লঙ্কা ফালি ও ডিম বাদে সব উপকরণ একত্রে মিশিয়ে আলতোভাবে মেখে নিন। অন্য একটি বাটিতে বাকি আধা কাপ পেঁয়াজ কুচির সঙ্গে মাছের ডিমগুলো মেখে ফালি করা কাঁচা লঙ্কা দিয়ে আলাদা রাখুন। কড়াইয়ে তেল গরম করে সব উপকরণ দিয়ে মাখা করলা ও আলু দিয়ে নেড়ে আঁচ কমিয়ে ঢেকে দিন। মাঝে ঢাকনা খুলে হালকাভাবে নাড়ুন। করলা ও আলু সিদ্ধ হয়ে এলে পেঁয়াজ ও কাঁচা লঙ্কা ফালিসহ মিশিয়ে রাখা মাছের ডিমগুলো ওপর থেকে ছিটিয়ে দিন। চুলার আঁচ কমিয়ে নেড়ে ঢেকে দিন। দু-তিনবার ঢাকনা খুলে নাড়ুন। বেশ ভাজা ভাজা হয়ে তেল ছাড়া শুরু করলে ঢেকে চুলা বন্ধ করে দিন। গরম গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

৬. মাছের ডিমের পুঁই খিলি

উপকরণ: মাছের ডিম (যেকোনো) ১ কাপ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, লঙ্কা গুঁড়া আধা চা-চামচ, সরিষা বাটা আধা চা-চামচ, লেবুর রস ১ চা-চামচ, নুন স্বাদমতো, পুঁইপাতা ১০-১২টি, টুথপিক ১০-১২টি, ময়দা ১ কাপ ও তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি: ডিম (মাছের) পরিষ্কার করে ধুয়ে তাতে হলুদ, লঙ্কা, সরিষা বাটা, নুন ও লেবুর রস মাখিয়ে নিন। একেকটি পুঁইপাতা পানের খিলির মতো করে তাতে মাছের ডিম ভরে দিন এবং টুথপিক দিয়ে পাতার মুখ বন্ধ করে ময়দা, জল ও নুন দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে তাতে খিলিগুলো ডুবিয়ে ডুবো তেলে বাদামি করে ভেজে তুলুন। পরিবেশনের সময় টুথপিকগুলো খুলে চায়ের সঙ্গেও পরিবেশন করা যায়।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon