Link copied!
Sign in / Sign up
6
Shares

আপনার ভুলে ক্ষতি হচ্ছে জননাঙ্গের


নিজেকে সুস্থ রাখতে আপনি সারাদিন নানা ভাবে চেষ্টা করে চলেছেন। তার কারণে আপনি না না নতুন অভ্যেসের মধ্যে পড়ছেন। কিন্তু এমন কিছু অভ্যাস আছে যা আপনার পুরুষত্বকে ধ্বংস করছে আপনার অজান্তেই। আসুন সেই অভ্যাসগুলো কী তা জেনে নিয়ে সেগুলোকে বদলানোর চেষ্টা করি।

১. জীবন যাপন

যারা সক্রিয় জীবন যাপন করে এবং নিয়মিত ব্যায়াম করেন তাদের প্রজনন তৎপরতার হারও অনেক ভালো এবং বেশি হয়। অন্যদিকে যারা এই ধরনের জীবন যাপন করে না তাদের প্রজনন ক্ষমতার হারও অনেক কম।

২. ধুমপান

ধুমপান ত্যাগের ৮ সপ্তাহের এক কর্মসুচির ২০% স্বীকার করেছেন ধুমপানের কারণে তাদের প্রজননে সমস্যা হচ্ছে। কিন্তু যেই ৭৫% নিকোটিন মুক্ত ছিলেন তাদের প্রজনন তৎপরতায় পারফর্মেন্সের উন্নতি ঘটেছে।

৩. দাঁত খারাপ

যাদের দাঁতের মাড়ির রোগ থাকে তাদের প্রজনন সক্ষমতা কমে যায়। যাদের জননাঙ্গের উত্থান হয় না তাদের মাড়ির রোগের আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে ৭গুন বেশি। কারণ মুখের ব্যাকটেরিয়া দেহের মধ্য দিয়ে জননাঙ্গের রক্ত সরবরাহের শিরা উপশিরাগুলোকে আক্রান্ত করতে পারে।

৪. কম ঘুম

আপনি যখন যথেষ্ট পরিমাণে ঘুমাবেন না তখন আপনার দেহের টেস্টোস্টেরন হরমোন নিঃসরণের হারও কমে আসবে। এর ফলে দেখা দিবে ক্লান্তি ও অবসাদ এবং এমনকি এত আপনার মাংসপেশি এবং হাড়েরও ঘনত্বও ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ফলত আপনার জনননাঙ্গও মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

৫. প্রজনন তৎপরতা

যথেষ্ট পরিমাণে প্রজনন তৎপরতা ভিন্ন রকমের হয়। তবে, সপ্তাহে একবারের কম দৈহিক মিলন করলে পুরুষদের জননাঙ্গ উত্থানে সমস্যা দেখা দেয়। সপ্তাহে তিনবার দৈহিক মিলনে জননাঙ্গের স্বাস্থ্য সবচেয়ে ভালো থাকে।

৬. ফ্যাট বেশি খাওয়া

আপনি যদি বেশি বেশি ফ্যাটজাতীয় খাদ্য বেশি পরিমানে খান তাহলে আপনার শুক্রাণুর গুনগত মান নষ্ট হয়ে যাবে। সুতরাং ক্ষতিকর চর্বিবহুল খাবার খাওয়া বাদ দিয়ে শুক্রাণুকে স্বাস্থ্যবান রাখুন।

৭. বেশি টিভি ও সিনেমা দেখা

যারা সপ্তাহে ২০ ঘন্টার বেশি টিভি, সিনেমা বা ইন্টারনেটে ভিডিও দেখেন তাদের বীর্যে শুক্রাণুর হার ৪৪% কমে আসে।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon