Link copied!
Sign in / Sign up
2
Shares

ঘুমের মধ্যে আপনার বা আপনার শিশুর মুখ থেকে লালা বেরিয়ে আসে কেন জানেন?


অনেকেরই এই ধরণের সমস্যা থাকে। বাচ্চা থেকে বুড়ো বয়স পর্যন্ত এই সমস্যা বেশ গভীর রূপে ধরা পরে- ঘুমের মধ্যে মুখ থেকে লালা বেরিয়ে আসা; সকালে উঠে আপনি হয়তো নিজের বালিশটি বেশ ভেজা অবস্থায় দেখতে পান। এমনকি কি, মাঝ্রাতেও এই ঘটনার পর ঘুম অনেক সময় ভেঙে যেতে পারে। হয়তো এই কারণে আপনার গভীর ঘুম হয়না যার ফলে দেহ-মন বেশ ক্লান্ত থাকে। বড়দের থেকেও শিশুদের মধ্যে এই ঘটনা বেশি সাধারণ।

আসুন জানা যাক কেন এই সমস্যা হয়ে থাকে।

গেলায় সমস্যা

ডিসফাজিয়ার কারণে এই সমস্যা হতে পারে। যদি অযথাই লালা বেরিয়ে আসছে বলে মনে হয়, তবে ডিসফাজিয়াকে সন্দেহের তালিকায় রাখতে পারেন। এ ছাড়া পারকিনসন্স, মাসকুলার ডিস্ট্রোফি এবং বিশেষ কিছু ক্যান্সারের ক্ষেত্রে লক্ষণ হিসেবে দেখা দেয় ঘুমের মধ্যে লালা ঝরার মত সমস্যা।

ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

বিশেষ কোনো রোগের চিকিৎসা চলাকালীন ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে এ সমস্যা দেখা দিতে পারে। অ্যান্টিসাইকোটিক ওষুধ (বিশেষ করে ক্লোজাপাইন) এবং আলঝেইমার্স রোগে ব্যবহৃত ওষুধের প্রভাবে লালা ঝরে ঘুমের মধ্যে।


ঘুমের ভঙ্গি

এটাকে সবচেয়ে সাধারণ কারণ বলা যায়। ঘুমের ভঙ্গিমার কারণে মুখের লালা অতি সহজে বেরিয়ে আসার সুযোগ পায়। চিত হয়ে সোজা ভঙ্গীতে ঘুমালে এমন হওয়ার কথা না। আবার কাত হয়ে ঘুমালে কিংবা উপুড় হয়ে ঘুমালে লালা ঝরার সম্ভাবনা বেশি থাকে। এ অবস্থায় সাধারণত মুখ দিয়ে নিঃশ্বাস নিতে হয়। তখন মুখ হা হয়ে থাকে। কাজেই লালা বেরিয়ে আসা অনেক সহজ।

বন্ধ সাইনাস

সর্দি বা সংক্রমণের কারণে নাক বন্ধ থাকলে ঘুমের সময় লালা ঝরার সম্ভাবনা দেখা দেয়। নাকের পথে নিয়মিত সমস্যা থাকলে এ ঝামেলায় পড়বেন। যাদের নাক জন্মগত কারণেই স্বাভাবিকের চেয়ে সরু, তাদের লালা ঝরার সমস্যা প্রতিনিয়ত থাকে। আর ঘুমের সময় সুস্থ মানুষও যদি মুখ খুলে শ্বাস নেন, তবে একই অবস্থায় পড়বেন।


জিইআরডি

গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল রিফ্লাক্স ডিসঅর্ডার বা গার্ড (জিইআরডি) হজমপ্রক্রিয়ার রোগ থাকলে পাকস্থলী থেকে খাবার অন্ননালীতে ফিরে যায়। এতে অন্ননালীর অভ্যন্তরীন দেয়ালে ক্ষত সৃষ্টি হয় যার ফলে মুখ দিয়ে লালা আসে ঘুমের মধ্যে।

স্লিপ অ্যাপনিয়া

এ রোগ থাকলে ঘুমের সময় দেহ শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ করে দেয়। বাধ্য হয়ে মুখ দিয়ে জোরপূর্বক শ্বাস গ্রহণ করতে হয়। তাই এমন ঘটনায় স্লিপ অ্যাপনিয়া থাকতেই পারে। আর স্লিপ অ্যাপনিয়া এক ভয়াবহ রোগ হয়ে দেখা দেয়।


কি করা উচিত?

১. মুখ থেকে লালা বেরিয়ে আসা বেশ অস্বস্তিকর একটি সমস্যা যা বাড়তে দেওয়া উচিত না. তাই এক্ষেত্রে আপনি চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন। সত্যিকার অর্থে বিশেষজ্ঞই ভালো বুঝবেন রোগীকে কী ধরনের চিকিৎসা দেওয়া প্রয়োজন। তবে প্রাথমিকভাবে ঘুমের ভঙ্গিমা বদলাতে বলা হয়। যেহেতু অতিরিক্ত লালা বেরিয়ে আসাটাই সমস্যা, তাই এটা কাটাতে লেবুর খোসা খেলে বেশ উপকার পাওয়া যায়।

২. ম্যানডিবুলার ডিভাইস ব্যবহার করতে পারেন। এটা এমন এক যন্ত্র যা মুখে লাগিয়ে ঘুমাতে হয়। এটা ঘুমের সময় মুখ বন্ধ রাখে এবং ঘুমকে আরামদায়ক করে।

৩. স্লিপ অ্যাপনিয়ার কারণে এই সমস্যা ঘটলে সিপিএপি মেশিন ব্যবহার করা উচিত। এই যন্ত্র কেবল লালা ঝরানোই বন্ধ করবে না, ঘুমকে গভীরে নিয়ে যাবে। আপনি সঠিক পদ্ধতিতে এবং সুষ্ঠুভাবে ঘুমাচ্ছেন- তা নিশ্চিত করবে সিপিএপি মেশিন।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon