Link copied!
Sign in / Sign up
10
Shares

ঘরের এমন ৬টি জিনিস যা আপনার এখনই ছুড়ে ফেলা উচিৎ! জানতে চান কোনগুলি?


সংঘবদ্ধ জীবনযাপনে যে মানসিক শান্তি পাওয়া যায় তা হয়ত পৃথিবীর অন্যত্র কোথাও পাওয়া সম্ভব নয় । আমাদের ব্যবহৃত অনেক জিনিসই আমাদের ঘরে এলোমেলো অবস্থায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকে, যে গুলোকে আমাদের ফেলে দেওয়া উচিৎ । যার ফলে আপনার ঘরটিকে শুধুমাত্র সুন্দর সাজানো গোছানোই নয়, পরিষ্কার পরিছন্ন ও প্রশস্ত দেখাবে । এখানে সেইরকমই কিছু জিনিসের তালিকা পেশ করা হল –

পুরনো প্লাস্টিক কন্টেনার

অধিকাংশ পুরনো প্লাস্টিক কন্টেনার গুলিতে বিপিএ থাকে, যা স্বাস্থ্য এবং মানসিক সুখের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক । আপনার যদি এইরকম কন্টেনার গুলিতে খাবার রাখার অভ্যাস থেকে থাকে তবে সাবধান হোন, ক্ষতিকারক কেমিক্যাল খাবারের মাধ্যমে আপনার শরীরে প্রবেশ করতে পারে এবং তা আপনার শরীর কে অসুস্থ করে তুলতে পারে । আপনার এখনই এই প্লাস্টিক কন্টেনার গুলি ফেলে দেওয়া উচিৎ এবং তার বদলে কাঁচের কন্টেনার ব্যাবহার করা উচিৎ । কাঁচের কন্টেনার আপনার শরীরের পক্ষে ভালো ও টেকসই ।

রান্নাঘরের মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার

প্যাকেজড খাবার, মশলা ও অন্যান্য সমস্ত খাবারেরই একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ বা সময়সীমা থাকে । সমস্ত মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্য দ্রব্য আপনার ফেলে দেওয়া উচিৎ । এবং ফ্রিজের ভেতর খাদ্যবস্তু একটি নির্দিষ্ট সময়সীমার জন্যই রাখা উচিৎ । খাদ্যবস্তু গুলিকে ফেলার জন্য কখনোই এগুলোর মেয়াদ শেষ হওয়া অবধি অপেক্ষা করা উচিৎ নয় । আপনি যদি লক্ষ্য করেন, সেগুলি বাসী হয়ে গেছে এবং তাদের স্বাদ আর আগের মতো নেই তবে আপনি নিশ্চয়ই সেগুলি ফেলে দিতে পারেন ।

ব্যাবহার অযোগ্য জামাকাপড়

আমরা অনেকসময় ব্যাবহার অযোগ্য ও ছোট হয়ে যাওয়া জামাকাপড়ও গুছিয়ে রাখি । এতে আলমারির ভেতর বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয় ও জায়গার অভাব দেখা দেয় । যদি কোন জামাকাপড় আপনি বিগত এক বছর ধরে না পড়ে থাকেন, তবে সম্ভবত সেটি ছোট হয়ে গেছে এবং স্টাইল টাও পুরনো হয়ে গেছে । এক্ষেত্রে আপনি সেইসব জামাকাপড় গুছিয়ে না রেখে সেগুলি কোন স্থানীয় চ্যারিটি বা এনজিও তে দান করে গরীব নিঃস্ব মানুষদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে পারেন । এতে আপনার জীবন আরও সংঘবদ্ধ হবে এবং আলমারির ভেতরে শুধু নুতুন জামাকাপড়ই খুজে পাবেন ।

অপ্রয়োজনীয় কাগজ

এলোমেলো ভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকা আবর্জনা পরিষ্কার করা খুবই প্রয়োজনীয় । ট্যাক্স সংক্রান্ত কাগজ, বিদ্যতের বিল, পাসপোর্ট এর মতো কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজ হয়ত আপনি নিশ্চয়ই সাবধানে গুছিয়ে রাখেন, কিন্তু আগের বছরে কেনা জামাকাপরের রসিদ বা কলেজ এসাইনমেন্ট এর হার্ড কপি গুছিয়ে রাখার কি কোন প্রয়োজন আছে ? সেগুলো জমিয়ে ঘরের জায়গা কম করার কি কোন দরকার আছে ? ঘরের সমস্ত অপ্রয়োজনীয় কাগজপত্র ফেলে দিন , সম্ভব হলে পে-চেক ব্যাবহার করুন এবং প্রকৃতি কে বাঁচাতে সাহায্য করুন ।

পুরনো পত্রিকা

আপনার কি সত্যিই পুরনো পত্রিকায় ভর্তি দেরাজের প্রয়োজন ? বর্তমানে সেগুলোর যদি কোন প্রয়োজনীয়তা না থাকে তবে সেগুলি ফেলে দিন । সেগুলি স্থানীয় বিক্রেতা দের দিয়ে দিন তারা সেগুলো রিসাইকেল করে পুনর্ব্যবহারযোগ্য করে তুলবে । অনেকসময়ই আপনার বাড়িতে বা গ্যারাজে পুরনো পত্রিকাগুলির উপর ধুলো পরতে দেখা যায় । সেগুলকে কোন প্রতিক্ষালয় বা ওয়েটিং রুমে রাখলে ভালো হয় । আপনি কখনো বোরিং ফিল করলে সেগুলো পড়তে পারবেন ।

অতিরিক্ত খেলনা

বাড়িতে কোন শিশু থাকলে হামেশাই কিছু অতিরিক্ত খেলনা গুলিকে এদিক ওদিক ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায় । এবং যখন আপনার শিশু সেইসব খেলনা আর ব্যাবহার করে না, তখনও আপনি সেইসব খেলনা গুলিকে গুছিয়ে রেখে দেন কারন সেগুলির সাথে আপনার অনেক মধুর স্মৃতি জড়িয়ে থাকে । কখনো কি আপনি ভেবে দেখেছেন, যে এই পৃথিবীতে এরকম কত শিশু আছে যারা খেলার জন্য কোন খেলনাই পায় না ? আপনি যদি আপনার শিশুর কিছু বাড়তি খেলনা দান করেন, তবে তারা অত্যন্ত খুশি হবে । তাই, বাড়তি খেলনা, টেডি বেয়ার বা বারবি ডল গুলিকে আজই কোন গরীব শিশুদের দান করুন ।

আমাদের ঘরের কোনায় এমনই অনেক অপ্রয়োজনীয় বস্তু ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকে, যেগুলির উপর সাধারনত আমাদের নজর পড়ে না । এগুলিকে বর্জন করলে আপনার ঘরটিকে সুন্দর সাজানো গোছানো দেখাবে এবং মানসিক শান্তি বৃদ্ধি পাবে ।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon