Link copied!
Sign in / Sign up
3
Shares

এপিড‍্যুরাল ব্যবহার করার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পকে জানেন?


এপিড‍্যুরাল অবেদন প্রসব যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেওয়ার অন্যতম উপায়। মহিলারা সাধারণত অন্যান্য ব্যথা নিয়ন্ত্রণকারী পদ্ধতি র মধ্যে থেকে এপিড‍্যুরাল কেই বেছে নেন। এপিড‍্যুরাল অ্যানাসথেসিয়া একটি আঞ্চলিক বা আংশিক অ্যানাসথেসিয়া, যার মানে হলো এটি শরীরের একটি বিশেষ অংশের ব্যথাকে স্তিমিত করে। সম্পূর্ণ অবেদন থেকে এপিড‍্যুরাল অবেদনের তফাৎ হলো, এটি সারা শরীরকে নিঃসাড় না করে কেবলমাত্র ব্যথার উপশমে বেশি কার্যকরী। এপিড‍্যুরাল অ্যানাসথেসিয়া র কাজ হলো শিরদাঁড়ার নিচের অংশের স্নায়বিক স্পন্দন বন্ধ করা, এবং ফলত শরীরের নিম্নাংশে র অনুভূতি কমিয়ে ফেলা। কিন্তু এই পদ্ধতির এমন কিছু মারাত্মক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে যা এর উপকারিতা কে ছাপিয়ে যায় এবং আপনাকে এই পদ্ধতি ব্যবহার করার আগে আরেকবার ভাবতে বাধ্য করে।

১. এপিড‍্যুরাল আপনার রক্তচাপকে হঠাৎ কমিয়ে দিয়ে আপনাকে অসুস্থ করে ফেলতে পারে। এই জন্যই আপনার রক্তচাপের ওপর লক্ষ্য রাখা হয় এবং নিম্ন রক্তচাপের ক্ষেত্রে ওষুধপত্র এবং ফ্লুইড দিয়ে চিকিৎসা করা হয়।

২. আপনি প্রচন্ড মাথা যন্ত্রণার শিকার হতে পারেন যা শিরদাঁড়ার মধ্যে থাকা রস নিঃসৃত হয়ে যাবার ফলে হয়।কিন্তু এটি অত্যন্ত বিরল ঘটনা, এবং মাত্র ১ শতাংশ মহিলাদের এটি হতে পারে। 'ব্লাড প‍্যাচ্ ' নামক একটি পদ্ধতি, যার দ্বারা আপনার রক্ত এপিড‍্যুরাল অংশে প্রবেশ করানো হয়, এই মাথা যন্ত্রণার চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়।

৩. আপনি আরো অন্যান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সম্মুখীন হতে পারেন, যেমন কানে তালা লেগে যাওয়া, বমিভাব, পিঠে ব্যথা, কাঁপুনি অনুভব করা, প্রস্রাবে অসুবিধা কিংবা সূঁচ ঢোকানোর জায়গা তে ফুলে যাওয়া।

৪. এপিড‍্যুরালএর পর আপনাকে শুয়ে থাকাকালীন ক্রমাগত পাশ পরিবর্তন করতে হবে, এবং ভ্রূণের হৃদস্পন্দন লক্ষ্য রাখতে হবে। একভাবে শুয়ে থাকলে প্রসব বন্ধ কিংবা আস্তে হতে পারে।

৫. এপিড‍্যুরাল প্রসবকালীন ধাক্কা দেওয়া কে অনেক বেশি কষ্টকর করতে পারে, এবং অতিরিক্ত পদ্ধতি বা চিকিৎসার দরকার হতে পারে, যেমন ফোরসেপ বা সিজারিয়ান অপারেশন পদ্ধতি। আপনি আপনার চিকিসকের সঙ্গে আগেই এই ধরনের পদ্ধতির সম্পর্কে কথা বলে নিতে পারেন।

৬. প্রসবের পর, আপনার শরীরের নিম্নাংশ অসাড় হয়ে যেতে পারে, যার ফলে আপনার চলাফেরা করার জন্য সাহায্যের প্রয়োজন হবে।

৭. এপিড‍্যুরালএর পর আপনি আপনার মূত্রাশয়ের ওপর থেকে নিয়ন্ত্রণ হারাবেন, কারন এপিড‍্যুরাল আপনার শরীরের স্নায়বিক স্পন্দন কমিয়ে ফেলে এবং আপনি মূত্রাশয় ভর্তি হলেও তা অনুভব করতে পারবেন না। এপিড‍্যুরাল এর কার্যক্ষমতা শেষ হয়ে এলে পরিস্থিতি আবার স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

৮. নানারকম ব্যথার ওষুধের ফলে আপনার চামড়াতে চুলকুনি হতে পারে। এক্ষেত্রে, হয় এপিড‍্যুরাল এর ড্রাগ পরিবর্তন করা যেতে পারে, নয়ত চুলকুনি বন্ধ করার ওষুধ দেওয়া যেতে পারে।

৯. কিছু এপিড‍্যুরাল ড্রাগ আপনাকে নিঃস্তেজ করে দেয় এবং শ্বাস প্রশ্বাস স্তিমিত করে দেয়, কিন্তু চিকিৎসা দ্বারা এটির প্রতিকার করা সম্ভব।

১০. চামড়ার যেখানে এপিড‍্যুরাল নলটি ঢোকানো হয়েছিলো, সেখানে সংক্রমণ হতে পারে। এটি সাধারণত ছড়ায় না, কিন্তু এর চিকিৎসায় অন্টিবায়টিকের প্রয়োজন হয়, এবং কিছু ক্ষেত্রে তৎক্ষণাৎ সার্জারি র প্রয়োজন হতে পারে।

১১. কিছু বিরল ক্ষেত্রে, স্থায়ী স্নায়বিক ক্ষতি হয়ে যেতে পারে শরীরের ক্যাথেটার ঢোকানোর অংশে। এটি ক্যাথেটার এর জন্যও হতে হবে কিংবা এপিড‍্যুরাল নলের জন্যও হতে পারে। অন্যান্য কারন হলো এপিড‍্যুরাল অংশে রক্তক্ষরণ থেকে শিরদাঁড়া তে চাপ পড়া, শিরদাঁড়ার কাছে কিংবা এপিড‍্যুরাল অংশে সংক্রমণ।

প্রসবের দিনের জন্য প্রস্তুতি নেবার সময় বিভিন্ন আনস্থাসিয়া বা অবেদন করার পদ্ধতি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থাকুন, যাতে আপনি সঠিক সিদ্ধন্ত নিতে পারেন।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon