Link copied!
Sign in / Sign up
15
Shares

এই ৫টি জিনিস মহিলারা তাদের স্বামীর থেকে শুনতে অপছন্দ করে


সেই দিনগুলি চলে গেছে যখন নারী আর পুরুষ নিয়ে অনেক পার্থক্য করা হত। এটি ২১ শতক এবং আমরা আর আমাদের সঙ্গীরা দুজনেই কিভাবে ঘর ও বাইরের দায়বদ্ধতাগুলি উভয়ই সফলভাবে পরিচালনা করতে হয় তা বুঝতে শিখে গেছি। করে এবং আমাদের গুরুত্বপূর্ণ অন্যদের সাথে সফলভাবে সফলভাবে কাজ করে। এখন আর আমরা আমাদের পুরোনো দিনের মা ঠাকুমাদের সময়ে ধরা বাধা নিয়ম নিয়ে চলি না যেখানে ওনারা একসাথে অনেকগুলি কাজ করতে চেয়েও করতে ভয় পেতেন। ফলে আমরা আমরা অনেক নিশ্চিন্ত।

আমরা এখনকার দিনে এসে একথা অবশ্যই অস্বীকার করতে পারিনা যে স্বামীরা অত্যন্ত বড় সহায়ক হয়, কিন্তু প্রতি যুগের সমাজতন্ত্র তার সত্ত্বেও লিঙ্গ বৈসম্মের কিছু হলেও বিভেদ দেখিয়েই দেয়। এটি এমন কিছু বিষয় যা আমরা পুরুষদের সম্পর্কে সম্পূর্ণরূপে ঘৃণা করি, বিশেষ করে যখন এটি আমাদের স্বামীদের কাছ থেকে আসে। কারণ, যদি স্বামী না বোঝে, তাহলে অন্য কেউ আমাদের প্রয়োজন বুঝতে পারবে?

আজ আসুন আমরা একটু নৃশংসভাবে সৎ হওয়ার চেষ্টা করি এবং প্রকৃতপক্ষে দেখি যে স্বামীরা স্ত্রীদের এই কথাগুলি বললে মনে হয়, "আর কি কি ভেবেছিলে আমাকে নিয়ে?"

১. যখন আমাদের রান্না করার জন্যে বলে কারণ তারা কাজ করার পরে খুব অলস বোধ করে

নিঃসন্দেহে, আমরা এমন একটি শতকে বসবাস করি যেখানে স্বামীদেরও রান্নাঘরের একটি অংশ হিসাবে আমরা ধরতে পারি। তাই, কাজ থেকে ক্লান্ত হয়ে দুজনেই ফিরে আসার পর এটা তার বলা কখনোই মানায় না, "বেবি, তুমি কি আজ রাতের রান্না করতে পারবে?" আপনার তখন স্বাভাবিকভাবেই মনে হয় যে কেবল তিনি একমাত্র ব্যক্তি নয় যিনি ব্যস্ত দিন কাটিয়ে ক্লান্ত হয়ে এসেছেন।

২. যখন আপনার ইচ্ছামত একটি সুন্দর মুহূর্তেও আপোষ করতে হয়

ধরুন এটি একটি শনিবার এবং আপনি একটি খুব রোমান্টিক মেজাজ নিয়ে স্বামীর সাথে সুন্দর মুহূর্ত কাটানোর অপেক্ষায় আছেন কারণ আপনি জানেন সোমবার আর দুই দিন দূরে। সেই মুহূর্তেই আপনার স্বামী যখন বলে ওঠে "আইপিএল এর একটি ম্যাচ আছে, আমি আজ রাতে আমার বন্ধুদের সঙ্গে দেখতে যাব।" তখন খুব হতাশাজনক হয়, তাই নয় কি?

৩. গর্ভাবস্থায় সময় যখন সবকিছু সহজ দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখেন

যখন স্বামীরা আপনার গর্ভাবস্থার একটি অংশ এবং সে নিজেও আপনার সেই মুহূর্তের সঙ্গী তখন তার ও উচিত আপনার গর্ভাবস্থার সময় যৌথ দায়িত্ব পালন করা। আপনার স্বামী হয়তো আপনাকে নানা কাজে সাহায্য করেন, এতে কোন সন্দেহ নেই কিন্তু আপনি কি মনে করেন না যে তারা আপনার কাজ থেকে আপনাকে বিরত করেন এবং বাড়িতে বসে থাকতে আপনাকে বলেন অথচ নিজে বাইরে ঘুরতে চলে যান??শিশুকে জন্ম দিয়ে তার দেখাশোনা করা দুজনেরই দায়িত্ব। তবে কেন আপনি একা শুধু আপনার বহির্গত জীবন জলাঞ্জলি দেবেন এবং সমস্ত সখ থেকে নিজেকে আটকাবেন। আর কেনই বা আপনার স্বামী এরকম পরিস্থিতিকে আপনাকে স্বাভাবিক বোঝানোর চেষ্টা করবেন।

৪. গর্ভাবস্থার সময় ওজন সচেতন করা

ওজন নিয়ে এই সময় মজা করা বা সচেতন করানো মোটেও হালকা ব্যাপার নয়। ওজন বেড়ে যাওয়া গর্ভাবস্থার একটি অংশ এবং আপনার স্বামীর এই সময় এসব মন্তব্য আপনার জন্যে হতাশাপূর্ণ হতে পারে।

৫. আপনার শাশুড়ির সামনে আপনার পাশে না থাকা

এটি আপনার হয়তো সবথেকে বিরক্তিকর লাগে যখন আপনি আগে থেকে আপনার স্বামীকে কোনো বিষয়ে আপনার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন এবং সেরকম কোনো মুহূর্তে যখন আপনার শাশুড়ি আপনাদের সামনে তখন আপনার স্বামী সেই কথাটি অগ্রাহ্য করেন ও আপনার শাশুড়ির মতামতে সে দেন। আপনার হয়তো তখন মনে হয় যে স্ত্রী হয়ে আসলে আপনি বোঝাই হয়ে আছেন।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon