Link copied!
Sign in / Sign up
7
Shares

স্তন ছোট বলে হতাশায় ভুগছেন? স্তন বড় করতে কি করবেন?

 


অনেকে আছেন স্তন বড় ও সুন্দর করার নিয়ম খুজছেন বা অনেক পন্থা ইতিমধ্যেই অবলম্বন করছেন,।কেউ হয়ত ভালো ফলাফল পেয়েছেন কেউ আবার পাননি। স্তনের আকার সঠিকভাবে ধরে রাখাটা সহজ কাজ নয়। মহিলাদের খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ হল এই স্তন। সুস্থ দেহের পাশাপাশি সুন্দর স্তনেরও প্রয়োজন রয়েছে। যারা সঠিক এবং ফলপ্রসু উপায় খুজছেন তাদের জন্য স্তন বড় করার উপায় কিছু উপায়। কিন্তু নিজের দেহের প্রতি অযত্নের কারণে দেখা দেয় নানা সমস্যা এবং সাথে স্তনের আকারও নষ্ট হয়ে থাকে। 

 কিছু বিষয় যেই কারণে স্তনের আকার নষ্ট হয়
১. ভুল সাইজের ব্রা পরা

স্তনের সাইজ অনুযায়ী যদি সঠিক মাপের ব্রা না পরা হয় তাহলে তা স্তনের আকার নষ্ট হওয়ার জন্য দায়ী। তাই ব্রা কেনার সময় অবশ্যই দেখেশুনে সঠিক মাপের ব্রা কেনা উচিৎ। আবার অন্যদিকে ১৫ বছরের একটি গবেষণার পর ২০১৩ তে প্রকাশ করা হয়, যে সকল মহিলা কখনোই ব্রা পরেন নি তাদের স্তন যারা সবসময় ব্রা পরছেন তাদের থেকেও সুগঠিত।

২. পর্যাপ্ত পরিমাণে জল না খাওয়া

সর্বদা সুস্থ থাকার মূল মন্ত্রই হল জল। ঠিক মতো জল পান না করলে যেমন ত্বকের লাবণ্যতা নষ্ট হয়ে যায় ঠিক একই ভাবে স্তনের আকারও নষ্ট হয়ে থাকে। তাই সুস্থ থাকতে ও সুগঠিত স্তন পেতে অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিমাণে জল খাওয়া উচিৎ মহিলাদের।

৩. রোদের আলো থেকে স্তন রক্ষা না করা

আমরা জানি যে সূর্যের আলো আমাদের ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। এর থেকে বাঁচার উপায় হল সানস্ক্রিন। যদিও আমাদের দেশে নারীরা সানবাথ করেন না। কিন্তু তারপরেও অনেক নারীই খোলামেলা কাপড় পরে থাকেন। তাই অন্যান্য দেহের অন্যান্য অংশে সানস্ক্রিন ব্যবহার করার পাশাপাশি স্তনেও সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে।

৪. ধূমপান ত্যাগ করতে হবে

দীর্ঘ ৮ বছরের একটি গবেষণার পর বলা হয়েছে যে স্তনের আকার নষ্ট হওয়ার পিছনে ধূমপান করা অন্যতম কারণ। ধূমপানের ফলে নারীর স্তনের টানটান ভাব নষ্ট হয়ে যায় এবং যার কারণে স্তন সুগঠিত থাকে না।

৫. অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলা

আপনি যদি অতিরিক্ত ডায়েট করে থাকেন তাহলে তা স্তনের জন্য ক্ষতিকর। খুব বেশি ডায়েট করার জন্য দেহের চামড়ার সতেজ ভাব কমে যায় চামড়া ঝুলে পড়ে। এবং ওজন কমানোর পরে নারীদেহে সবার প্রথমে ওজন কমে স্তনের কারণ স্তনেই সবচেয়ে বেশি ফ্যাট থাকে।

এখন প্রাকৃতিকভাবেই ব্রেস্ট বড় করা যায়, সার্জারীর প্রয়োজন তেমন হয় না। সাধারণত ৩৪-৩৬ মেয়েদের স্ট্যান্ডার্ড ব্রেস্ট সাইজ। তবে অনেকের ব্রেস্ট আকারে ছোট হয়। কিন্তু যাদের ব্রেস্টের মাপ ৩৪-৩৬ এর নিচে তারা কি করবেন।

১। প্রতিদিন স্নানের পূর্বে মধুর সাথে হালকা গরম করা সরিষার তেল একসাথে নিন।এরপর ১০-১৫ মিনিট ম্যাসেজ করুন। কমপক্ষে ৩০ দিন এভাবে ম্যাসেজ করতে থাকুন। ফলাফল নিজেই বুঝতে পারবেন। অথবা হাত ঘষে গরম করে দুই হাত স্তনের নিচে হালকা চেপে ধরে ডানহাত ঘড়ির কাটার দিকে আর বাম হাতে ঘড়ির কাটার উল্টা দিকের মত ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ম্যাসাজ করুন। সকালে ঘুম থেকে ওঠার সময় আর রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ১০-১৫ মিনিট এভাবে ১০০…থেকে ৩০০ বার ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ম্যাসাজ করুন।

২। অনেকের জিনগত বা স্বাভাবিকভাবেই স্তন অতিরিক্ত বড় হয়।কারো আবার রোগরে কারণে বড় হয়।তবে ম্যাসেজও স্তন বড় করার উপায় ।ব্রেস্ট এর প্রকৃত সাই হলো ৩৪-৩৬। তবে অনেকের এই সাইজ থেকে আরো বড় হয়।

৩। এমন অনেকে বলে যে, ব্রেস্ট ক্রিম বা পিলের কারণে ব্রেস্ট বড় হয় কিন্তু এগুলো আসলে সঠিক না।পক্ষান্তেরে এই সমস্ত প্রেডাক্ট ইউজ করলে স্তনের আকারগত সমস্যা বা অণ্যোন রোগ যেমন ব্রেস্ট ক্যান্সার ও হতে পারে।

৪। মেয়েদের জন্য ব্রেস্টের কিছু স্পেশাল ব্যায়াম আছে যেমন: বেঞ্চ প্রেস, বাটারফ্লাই প্রেস, পুশ-আপ (বুকডাউন) নিয়মিত এগুলো করে স্তনের টিস্যুতে ব্লাড ফ্লো বাড়াতে হবে। এতে বুকের পেশিগুলো সঠিক শেপে এসে স্তনকে সুগঠিক করবে। এটা অনেকটা বডিবিল্ডাররা যেভাবে শরীরের পেশি বৃদ্ধি করে, সেভাবে কাজ করবে। দিনে বেশ কয়েকবার দুইহাত দুইদিকে প্রসারিত করে আবার এক করুন।

আশাকরি উপরোক্ত টিপসগুলো অনুসরণ করে চললে খুব শ্রিঘ্রই আপনার স্তেন আকর্ষনীয় ও বড় হয়ে উঠবে।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon