Link copied!
Sign in / Sign up
1
Shares

ভ্রুণ পর্যবেক্ষণ - কথার অর্থ কী?


ভ্রুণ পর্যবেক্ষণকে সহজ কথায় শিশুর জন্ম বা মায়ের গর্ভাবস্থার দেখভাল করা বলা যায়। এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত আছে জাতকের জন্মের আগের অবস্থাতে নিয়মিত পরীক্ষা নিরীক্ষা করানো। গর্ভযন্ত্রনাকালীন সময়ে গর্ভস্থ বাচ্চা কেমন অবস্থায় আছে জানার জন্য স্বাস্থ্য পরিষেবা প্রদানকারী বা নার্সেরা বাচ্চার হৃদযন্ত্রের চলনের হার (হার্ট রেট) পরীক্ষা করেন। এই পর্যবেক্ষণ থেকে ডাক্তার জানতে পারেন যে শিশু গর্ভ থেকে নির্গমণ সময়ে আপনার সংকোচনের চাপ সহ্য করার মত অবস্থায় আছে কি না।

সাধারনভাবে, ভ্রুণ পর্যবেক্ষণ করা হয় একটি বৈদ্যুতিন ফেটাল মনিটর বা হাতে ধরা যায় এমন ডপলার যন্ত্রের সাহায্যে, যে যন্ত্রের সাহায্যে হয়ত শিশুর জন্মের আগে পরিষেবকরা আপনার বাচ্চার হৃদযন্ত্রের আওয়াজ শুনেছেন। আপনার বাচ্চার হার্ট রেট নিরবিচ্ছিন্নভাবে পরিমাপ করা যায় একটি বৈদ্যুতিন ফেটাল মনিটরের সাহায্যে বা নির্দিষ্ট সময়ের অন্তরে (একে বলা হয় থেমে থেমে হৃদযন্ত্রণের শ্রবণ)। বেশীর ভাগ মহিলাকে গর্ভযন্ত্রনাকালীন সময়ে বৈদ্যুতিন ফেটাল মনিটরের সঙ্গে সংযুক্ত করে দেওয়া হয় প্রায় নিরবিচ্ছিন্নভাবে।

 

নিরবিচ্ছিন্ন ভ্রুণ পর্যবেক্ষণ কাকে বলে?

চওড়া, স্থিতিস্থাপক দুটি ফিতে ট্রান্সডিউসার নামে দুটি বৈদ্যুতিন চাকতিকে আপনার তলপেটের সঙ্গে লাগিয়ে রাখা হবে। একটি মনিটরে আপনার শিশুর হৃদযন্ত্রের চলনের হার এবং অন্যটি আপনার সংকোচনের মান প্রদর্শন করবে।

ট্রান্সডিউসারটি শিশুর মায়ের বিছানা বরাবর রাখা একটি যন্ত্রের সঙ্গে যুক্ত যেখানে মেসিনটি তার সঙ্গে সংলগ্ন কাগজে একটি রেখাচিত্র অঙ্কন করবে। মনিটরটি খোলা থাকলে আপনি আপনার শিশুর হৃদয়ের ধুকপুক আওয়াজ শুনতে পারবেন। যদি আপনি জানতে চান প্রকৃতপক্ষে মেসিনটি কি করছে, এবং কিভাবে এগুলি কাজ করে, সেই বিষয়ে আপনার ডাক্তারকে জিজ্ঞাসা করতে পারেন।

বৈদ্যুতিন পর্যবেক্ষণ যন্ত্রণাদায়ক নয়। এটা বলা যায় যে মায়েদের পক্ষে এটি কখনও কখনও অস্বস্তিকর, কারণ ট্রান্সডিউসারগুলি তাঁদের পেটের উপর ফিতে দিয়ে আটকানো থাকে। এর ফলে তাঁদের নড়াচড়া করার অসুবিধা হয় এবং কিছু কিছু মায়েদের ক্ষেত্রে সংকোচন ঘটানো কঠিন হয়ে পড়ে।

কখনও কখনও বাহ্যিক পর্যবেক্ষণ দূর থেকে করা হয় (রিমোটের সাহায্যে)। একে বলা হয় টেলিমেট্রী। এর সাহায্যে মেসিনের সঙ্গে সংযুক্ত না থেকেও পর্যবেক্ষণ বজায় রাখা যায়। কিছু কিছু হাসপাতালে আপনার শিশুর হৃদযন্ত্রের চলনের হার (হার্ট রেট) এবং আপনার সংকোচন একটি সেন্সরের মাধ্যমে দূরবর্তী কোন মনিটরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এই মনিটরটি সাধারনভাবে কোন নার্সদের কেন্দ্রে (অফিস ঘরে) থাকে। রিমোট মনিটর ব্যবহার করার সময় আপনি স্বাভাবিক হাঁটাচলা করতে পারেন।

থেমে থেমে হৃদযন্ত্রের শব্দশ্রবণ পদ্ধতি কিভাবে সম্পন্ন করা হয়?

আপনার ডাক্তার বা প্রসূতি বিশেষজ্ঞ নার্স একটি ডপলার ফোটোস্কোপ আপনার পেটের সঙ্গে লাগিয়ে ধরে্ন এবং আপনার শিশুর হৃদযন্ত্রের চলন (হার্ট বীট) শোনেন, যেমনভাবে তিনি শিশু জন্মানোর আগে করে থাকেন। শুধুমাত্র আপনার পেটে হাত রেখেই তাঁরা আপনার শিশুর হৃদযন্ত্রের চলন স্পর্শ করতে পারেন।

প্রথম পর্যায়ের গর্ভযন্ত্রণাকালীন অবস্থার প্রত্যক্ষ দশাতে আপনার নার্স নির্দিষ্ট সময় অন্তর, যেমন ১৫ থেকে ৩৫ মিনিট অন্তর, এটি পরীক্ষা করে দেখবেন। এরপর দ্বিতীয় দশাতে হার্টবীট পরীক্ষা করা হবে প্রতি পাঁচ মিনিট অন্তর। ডাক্তারও আপনার শিশুর হার্ট রেট গুনে পরীক্ষা করে দেখবেন, যখন শিশু নড়াচড়া করছে না, তখনকার সর্বনিম্ন (বেস লাইন) হার্ট রেট কত (স্বাভাবিক অবস্থায় মিনিটে ১১০ থেকে ১৬০)। ওই পরিকল্পনা মাফিক সময়ভিত্তিক নিরীক্ষণ ছাড়াও আপনার শিশুর হার্ট রেট মাপা হবে যখন প্রয়োজন, যেমন যোনি পরীক্ষার আগে ও পরে বা যখন আপনার জল ভাঙ্গে।

সুতরাং শেষ করার আগে বলা যায় যে ভ্রুণ পর্যবেক্ষণ হল পরীক্ষা করা এবং নিশ্চিত করা যে বাচ্চা ও তার মা শিশু জন্মের আগে এবং গর্ভাবস্থায় সুরক্ষিত থাকে। এর ফলে ডাক্তারদের পক্ষে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধা হয় এবং এই পদ্ধতিটিও অপেক্ষাকৃত সহজ।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon