Link copied!
Sign in / Sign up
36
Shares

বাড়িতে বানান সাধারণ কিছু কেক-এর রেসিপি

বিশেষ করে বাড়িতে বাচ্চা থাকলে, কেক কেটে ও খেয়ে, হৈ হৈ করে তাদের জন্মদিন পালন করতে বেশ ভালই লাগে, তাই না। সেই আনন্দের স্বাদ দ্বিগুণ হয়ে যায় যদি কেকটা বাড়িতে বানানো হয়, আজকে একটু অন্যরকম কেক বানানো শিখুন। এই কেক আপনি কোনও দোকানে পাবেন না বা অর্ডার দিয়েও বানাতে পারবেন না। এই কেক আপনাকে বাড়িতেই বানাতে হবে।

১. নারকেলের কেক

উপকরণ: ময়দা ২০০ গ্রাম,মাখন ১০০ গ্রাম, নারকেল কোরা ১০০ গ্রাম, চিনি ১০০ গ্রাম, মুরগির ডিম ১ টি, ফ্রেশ ক্রিম, নুন, দুধ, ও জল।

প্রণালি: নুন ও ময়দা মিশিয়ে চেলে নিন। এখন ওতে মাখন দিয়ে মেখে ঝুরো ঝুরো করে নিন। ডিম ভেঙ্গে ফেটিয়ে ময়দায় দিয়ে মেখে নিন। এবার ওতে নারকেল কোরা এবং সমান পরিমাণে দুধ ও জল দিয়ে পাতলা করে ফেটিয়ে নিন। যেন ছোট ছোট কাগজের ছাঁচে মিশ্রণটি ঢালা যায়। এভাবে সব মিশ্রণ একত্র করে ছোট ছোট কাগজের ছাঁচে মিশ্রণ ঢালুন। একটি কেক-ট্রের ওপর কাগজের ছাঁচগুলো সাজিয়ে ২০০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপে ২০ মিনিট বেক করে ওভেন থেকে বের করে ঠান্ডা হতে দিন। ঠান্ডা হলে পরিবেশন করুন। ফ্রেশ ক্রিম ওপরে ছড়িয়ে দেবেন।

২. কিসমিস কেক

উপকরণ: ময়দা ২০০ গ্রাম, মুরগির ডিম ১টি, মাখন ১০০ গ্রাম, কিসমিস কুচানো ১০০ গ্রাম, চিনি ১০০ গ্রাম, নুন, দুধ, ও জল।

প্রণালী: ময়দায় নুন মিশিয়ে প্রথমে মিহি চালুনি বা পাতলা কাপড়ে ছেঁকে নিন। এবার ওর সঙ্গে মাখন দিয়ে বেশ ঝুরো ঝুরো করে মেখে ফেলুন। আধা কাপ চিনির জলে কিসমিসগুলো ১ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। ভেজানো কিসমিস দিয়ে ওতে অর্ধেক জল ও অর্ধেক দুধ দিয়ে পাতলা করে মেখে ফেলুন। এমনভাবে মিশ্রণটি তৈরি করুন যেন ছোট ছোট কাগজের ছাঁচে ঐ মিশ্রণ ঢালা যায়। মিশ্রণ তৈরি হয়ে গেলে ছোট ছোট কাগজের ছাঁচে এই মিশ্রণ ঢালুন। সব ঢালা হলে কেক-ট্রের ওপর কাগজের ছাঁচগুলো সাজিয়ে ২০০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপে ২০ মিনিট বেক করে ওভেন থেকে বের করুন এবং ঠাণ্ডা হলে পরিবেশন করুন।

৩. ভ্যানিলা কেক

উপকরণ: ময়দা ৭৫০ গ্রাম, মাখন ৩০০ গ্রাম, কিসমিস ১০০ গ্রাম, গুঁড়ো চিনি ৩০০ গ্রাম, ভাঙ্গা কাজুবাদাম ১০০ গ্রাম, চালকুমড়োর মোরব্বা ১০০ গ্রাম, ভ্যানিলা এসেন্স ২ চা-চামচ, ফ্রেশ ক্রীম ১ কৌটো, খাবার সোডা ২ চা-চামচ, মুরগির ডিম ৮ টা, দুধ।

প্রণালী: ময়দার সঙ্গে খাবার সোডা ও ৩০০ গ্রাম মাখন ভালভাবে মিশিয়ে নিন। অন্য একটি পাত্রে ডিমগুলো ভেঙ্গে ফেটিয়ে ওতে দুধ, চিনি, কিসমিস, কাজুবাদাম, চালকুমড়োর মোরব্বার কুচি ও ভ্যানিলা এসেন্স দিয়ে একসঙ্গে ভালভাবে ফেটিয়ে নিন। এই মিশ্র ময়দার মিশ্রণে দিয়ে একসঙ্গে ফেটান। সব ভালভাবে মেশানো হলে একটা বড় টিফিন কৌটোর চারদিকে মাখন মাখিয়ে গরম করে নিন। ওতে গুঁড়ো চিনি ছড়িয়ে দিন। তারপর সব মিশ্রণ কৌটায় ঢেলে কৌটোর মুখ বন্ধ করে দিন। এবার একটা ডেকচিতে জল দিয়ে আঁচে বসান। জল ফুটতে শুরু করলে ওতে কৌটোটা বসিয়ে দমে রাখুন। আধঘণ্টা পরে খুলে দেখুন কেকটা ফুলে উঠেছে কিনা। ফুলে উঠলেই হয়ে গেল। কেক তৈরি হয়ে গেলে কেকটার মাথার দিকে সামান্য চিরে দিয়ে ফ্রেশ ক্রিমটা ওতে ঢেলে দিন ও চেরি কুচিয়ে ওর ওপর বসিয়ে দিন। কেক ঠাণ্ডা হলে একটা সাদা কাগজে মাখন লাগিয়ে মুড়ে দিন।

৪. আমন্ড কেক

উপকরণ: ডিমের (মুরগির) সাদা অংশ ৭টি , গুঁড়ো বাদাম ২৬০ গ্রাম, পেষা চিনি ২১০ গ্রাম

প্রনালী: পেষা চিনি, গুঁড়ো বাদাম ও ডিমের সাদা অংশ খুব ভাল করে মিশিয়ে নিন। ঘি মাখানো ও ময়দা বুলিয়ে নেওয়া গোল কেক-এর টিনে এই মিশ্রণ ঢালুন। ওভেন আগে থেকেই গরম করে রাখবেন। কেকটি মাঝারি তাপমাত্রায় প্রায় এক ঘণ্টা ধরে বেক করে নিন। ঠাণ্ডা হলে কেকটি মাঝখান থেকে সমান্তরালভাবে কেটে নিন। দুটি কেক-এর টুকরোর মাঝখানে ফিলিং ভরে জুড়ে নিন। কেক-এর চারপাশে ও ওপরে ফেটানো ক্রিম নামিয়ে সাজিয়ে নিন। ফিলিং-এর উপকরণ ও পদ্ধতিঃ চেলে নেওয়া ১৪০ গ্রাম আইসিং সুগার, ১৪০ গ্রাম মাখন ভাল করে ফেটিয়ে নিন। চিনি ৪ টেবিল চামচ, কয়েক ফোঁটা ভ্যানিলা এসেন্স এবং ৮০ গ্রাম গুঁড়ো বাদাম ভাল করে মিশিয়ে নিন। ব্যাস তৈরি হয়ে গেল ফিলিং। দুটি কেক-এর টুকরোর মাঝখানে এই ফিলিংটা ভরে জুড়ে নিতে হবে।

৫. প্লাম কেক

উপকরণ: ময়দা ২ কাপ, মাখন ১ কাপ ডিম ৬ টি, ক্যাস্টর সুগার ১ কাপ, আমন্ড গুঁড়ো হাফ কাপ, বেকিং পাউডার ১ চা চামচ, কিসমিস ২৫ গ্রাম, দারচিনি গুঁড়ো হাফ চা চামচ, জায়ফল গুঁড়ো হাফ চা চামচ, আদা গুঁড়ো সামান্য, লেবুর রস- হাফ চামচ, লেমন জেস্ট ১ চিমটি

প্রণালী: একটি পাত্রে মাখন গলিয়ে নিন। চিনি মেশান। ডিম ফেটিয়ে ঢালুন। ক্রমাগত নাড়তে থাকবেন। বাকি সব উপকরণ মেশান। আস্তে আস্তে ময়দা ঢালুন। মেশাতে থাকুন। ভালভাবে ফেটিয়ে নিন। ওভেন প্রি-হিট করুন। বেকিং ডিশে বাটার ব্রাশ করুন। মিশ্রণ ঢালুন। ১৮০ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেটে ৪৫ থেকে ৬০ মিনিট, কনভেকশন মোডে বেক করুন। পরিবেশন করুন দুর্দান্ত ‘প্লাম কেক’।

৬. ব্রেড পুডিং

উপকরণ: ডিম ৮ টা, পাঁউরুটি ৪ টি স্লাইস, ঘন করে জ্বাল দেওয়া দুধ ২ কাপ, চিনি দেড় কাপ, ঘি ২ টেবিল চামচ, গোলাপ জল ১ চা চামচ, জাফরান পরিমান মতো

প্রণালী: দু’কাপ দুধ একটা পাত্রে ঢেলে, তাতে পাউরুটিগুলো ভেজান। গোলাপজলে জাফরান ভেজান। ডিমগুলোকে ফাটিয়ে একটা পাত্রে ভাল করে ফেটান। পাঁউরুটি ভিজে গেলে তাতে চিনি, ফেটানো ডিম, এবং জাফরান-ভেজা গোলাপজল মেশান। পুরো মিশ্রণটা ভাল করে ঘুটুন। একটা সসপ্যানে ঘি মাখিয়ে তাতে পুরো মিশ্রণটা ঢালুন। ওভেনে ১৮০ ডিগ্রি উত্তাপে ৪০-৪৫ মিনিট বেক করুন অথবা গ্যাসে ঢাকনা চাপা দিয়ে ৩০-৩৫ মিনিট ধরে ভাপান। ফ্রিজারে রেখে ঠান্ডা করুন। ঠান্ডা হলে পুডিং জমে মোল্ডের মতো হয়ে যাবে। ঠান্ডা পুডিং ছুরি দিয়ে কেটে কেটে পরিবেশন করুন।

ওভেন ছাড়া তৈরী করুন কেক!
৭. চকোলেট কেক

উপকরণ: ময়দা আড়াই কাপ, টক দই ১ কাপ, মুরগির ডিম ২টি, পেষা চিনি ৪ টেবিল চামচ, মাখন (নরম) ১২০ গ্রাম, চকোলেট ৯০ গ্রাম, বেকিং পাউডার ২ চাচামচ, নুন ১ চিমটি, জল ৪ কাপ

প্রণালী: ময়দা ও বেকিং পাউডার একসঙ্গে মিশিয়ে চালুনি দিয়ে 3 বার চেলে নেবেন। মাখন ও চিনি একসঙ্গে মিশিয়ে ভাল করে ফেটিয়ে নিন। মুরগির ডিম আলাদাভাবে ফেটিয়ে রাখবেন। মাখনের মিশ্রণের মধ্যে ময়দা ও ডিম ও এক চিমটি নুন অল্প অল্প করে মিশিয়ে নিন। চকোলেট অল্প দুধে ফুটন্ত জলের ওপরে বসিয়ে গলিয়ে নিন। নেড়ে নেড়ে ঠান্ডা করে নিন যাতে ওপরে সর না পড়ে যায়। এই চকোলেটের মিশ্রণ কেক-এর মিশ্রণে ঢেলে দিয়ে মিশিয়ে নিন। এবারে প্রেসার কুকারের ভেতরের দুটি বাটিতে ঘি মাখিয়ে কেক-এর মিশ্রণ দুভাগ করে ঢেলে নিন। প্রেসার কুকারে ২ কাপ জল দিয়ে ঝাঁঝরি বা ট্রিভেট বসিয়ে তার ওপরে বাটি দুটাে বসিয়ে কুকার বন্ধ করুন। কুকারে ওয়েট লাগাবেন না। এভাবে ২০ মিনিট আঁচে বসিয়ে রাখুন। এবারে প্রেসার কুকার খুলে আরও ২ কাপ জল দিন ও ঢাকনা বন্ধ করুন। এবারে ওয়েট লাগাবেন ও আধঘণ্টা আঁচে বসিয়ে রাখবেন। আঁচ থেকে নামিয়ে নিন। নিজে থেকে ঠাণ্ডা হলে তবেই প্রেসার কুকারের ঢাকনা খুলবেন। ঠাণ্ডা হলে কেক দুটি ছুরির সাহায্যে বাটি থেকে বের করে নিন। ইচ্ছে মতো কোকো পাউডার মাখন ও আইসিং সুগার দিয়ে আইসিং তৈরি করে কেক দুটি সাজিয়ে নিতে পারেন। ওপর থেকে কুচােনো চেরি ছড়িয়ে দেবেন।

৮. ফ্রুট কেক

উপকরণ: ময়দা ২০০ গ্রাম, কর্নফ্লাওয়ার ১৫ গ্রাম, বেকিং পাউডার ২ চা-চামচ, শুকনো খোলায় ভাজা চিনাবাদাম ১০০ গ্রাম, কিসমিস ৫০ গ্রাম, ভেজিটেবল ঘি ৫ টেবিল চা-চামচ, পেষা চিনি ২০০ গ্রাম, মুরগির ডিম ২ টি, পোষা জায়ফল আধা চা চামচ, দুধ প্রয়োজন মতো।

প্রনালী: ময়দা, বেকিং পাউডার, ও কর্নফ্লাওয়ার একসঙ্গে মিশিয়ে চালুনি দিয়ে তিনবার করে চেলে নিন। চিনাবাদাম গুঁড়িয়ে নিন। ময়দার মধ্যে ভেজিটেবল ঘি ও জায়ফলের গুঁড়ো হাত দিয়ে আলতোভাবে মিশিয়ে নিন। ময়দায় কুচােনো কিসমিস, চিনাবাদামের গুঁড়ো, ও ডিম মেশাবেন। এবারে পেষা চিনি ও আন্দাজ মতো দুধ মিশিয়ে সমস্তটা ভাল করে ফেটিয়ে নিন। মিশ্রণটা ঘন ও মসৃণ হবে এবং তাতে কোনও ডেলা থাকবে না। প্রেসার কুকারে ঢুকে যায় এমন একটি পাত্রে ঘি মাখিয়ে কেক-এর মিশ্রণ ঢেলে দিন। পাত্রটা মিশ্রণের চেয়ে বড় মাপের হওয়া চাই কারণ কেক ফুলে উঠবে। পাত্রের ওপর দু’পাট করে গ্রিজপ্রুফ কাগজ বেঁধে দিন যাতে জল না ঢুকে যায়। প্রেসার কুকারে ট্রিভেট বসিয়ে আন্দাজ মতো জল দিন। এবারে এই ট্রিভেটের ওপরে কেক-এর পাত্রটি বসাবেন। প্রেসার ওঠবার পর কুড়ি মিনিট আঁচে বসিয়ে রাখুন। আঁচ থেকে নামিয়ে নিয়ে প্রেসার কুকার স্বাভাবিকভাবে ঠাণ্ডা হতে দিন। প্রেসার কুকার ঠাণ্ডা হয়ে গেলে ঢাকনা খুলে কেক-এর পাত্রটি বের করে নিয়ে সম্পূর্ণ ঠান্ডা করে নিন। এবারে কেকটি পাতলা পিস করে কেটে দুটি পিসের মাঝখানে একটুখানি কনডেন্সড মিল্ক বা চিনি মেশানো ক্রিম মাখিয়ে খেতে দিন। দেখুন ওভেন ছাড়াই কী সুন্দর ঘরোয়া ফ্রুট কেক তৈরি করা যায় প্রেসার কুকারে।

 

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon