Link copied!
Sign in / Sign up
94
Shares

বাড়িতে বানান ১৭ রকম আচারের রেসিপি


শীতকালের দুপুর মানে রোদে বসে আচার খাওয়া। কিন্তু এখন অনেকেই সেই সুযোগ আর পান না। নিজের প্রতিদিনের কাজে সবাই ব্যস্ত। তাছাড়া এখন দোকানে সব ধরণের আচার পাওয়া যায়, সেই কারণে বাড়িতে আচার বানানোর প্রথা প্রায় বন্ধ হতে চলেছে। কিন্তু বাড়িতে বানানো আচারের যে স্বাদ সেটা আপনি দোকান থেকে কেনা আচারে পাবেন না। তাই আপনাদের জন্য আমরা কিছু আচারের রেসিপি শেয়ার করলাম, যা সহজেই বাড়িতে বানাতে পারবেন।

১. ক্যাপসিকাম আচার

উপকরণ : ক্যাপসিকাম ৫টি, মেথি পোয়া কাপ চামচ, সরিষা আধা চা চামচ, ২টি লেবুর রস, লঙ্কা গুঁড়ো ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়ো আধা চা চামচ, হিংগুঁড়ো সামান্য, তেল ২ টেবিল চামচ ,নুন পরিমাণমতো।

প্রণালি : ক্যাপসিকাম ছোট ছোট টুকরো করে বিচি ফেলে দিতে হবে। প্যানে তেল গরম করে সরিষা ও মেথি দিয়ে ভাজতে হবে। এরপর এতে হিং, লঙ্কা গুঁড়ো ও হলুদ গুঁড়ো দিতে হবে। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে এবার ক্যাপসিকামের টুকরো ও নুন দিয়ে মিশ্রণটিকে ঢেকে দিতে হবে। নরম হয়ে এলে এতে লেবুর রস ঢেলে ভালোভাবে নাড়ূন। নামিয়ে নিয়ে ঠাণ্ডা হয়ে এলে জার বা বোতলে সংরক্ষণ করতে হবে।

২. আমলকীর আচার

উপকরণ : আমলকী বড় আধা কেজি, সরিষার তেল দেড় কাপ, নুন স্বাদমতো, চিনি ২ টেবিল চামচ, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, জিরা গুঁড়ো ১ চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়ো ১ চা চামচ, শুকনো লঙ্কা বাটা ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়ো আধা চা চামচ, পাঁচফোড়ন গুঁড়ো ১ চা চামচ, সরিষা বাটা ১ চা চামচ।

প্রণালিআমলকী ধুয়ে-মুছে নিতে হবে। তারপর আমলকীর চারপাশ চিরে নিতে হবে। হলুদ ও নুন মাখিয়ে রোদে দিতে হবে। এরপর প্যানে তেল দিয়ে তাতে পাঁচফোড়ন দিতে হবে। আমলকী দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়তে হবে। এরপর নুন, চিনি ও সব মসলা দিয়ে কিছুক্ষণ রেখে নামিয়ে দু’একদিন রোদে দিয়ে বয়ামে ভরে রাখতে হবে।

৩. কামরাঙ্গার আচার

উপকরণ : কামরাঙ্গা ৮টি, পিঁয়াজ ঝুড়ি কাটা ১ কাপ, আদা বাটা ১. চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল. চামচ, নুন ২ টেবিল. চামচ, পাঁচফোড়ন ১/৩ কাপ, ভিনিগার ১/৪ কাপ, সাইট্রিক এসিড ১/২ চা চামচ, আচার মসলা ১ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়ো ১/২ চা চামচ।

প্রণালিপাত্রে তেল দিয়ে পাঁচফোড়ন ও বাটা মসলা ভিনিগার দিয়ে কষিয়ে নিন। ৫ মিনিট পর কাটা কামরাঙ্গা দিয়ে প্রথমে তীব্র আঁচে ৫-৬ মিনিট পরে মৃদু আঁচে ৩০ মিনিট রান্না করে বয়ামজাত করতে হবে।

৪. গোটা জলপাইয়ের ঝাল আচার

উপকরণ : জলপাই ১ কেজি, সরিষার তেল ৫০০ গ্রাম, কাঁচা লঙ্কা ২০টি, রসুন ২টি, আদা ১৫০ গ্রাম, হলুদ গুড়া ১চা চামচ, সরিষা দানা ২চা চামচ, ভিনেগার ১ বোতল, নুন ২ টেবিল চামচ, পাঁচফোড়ন ২ টেবিল চামচ, মৌরি ২চা চামচ, কালোজিরা ১ টেবিল চামচ।

প্রণালিজলপাই, কাঁচালঙ্কা, রসুন, আদা ও সরিষা দানা ভালো করে ধুয়ে জল ঝরিয়ে নিন। জলপাইয়ের চারপাশে চির কেটে নুন ও হলুদ মেখে রোদে শুকিয়ে নিন। আদা, রসুন, সরিষা ও কাঁচালঙ্কা ভিনেগার ব্লেন্ডারে পেস্ট তৈরি করুন। কালোজিরা, মৌরি, ও পাঁচফোড়ন শিলপাটায় হালকা গুড়া করে নিন। সবশেষে বড় কাঁচের বোতলে সব মশলা একত্রে মিশিয়ে নিন। এরপর জলপাই ও তেল দিয়ে বোতলের মুখ লাগিয়ে দিন। পর পর কয়েকদিন আচার রোদে দিলে তা খাওয়ার উপযোগী হবে।

৫. চালতার আচার

উপকরণ : চালতা, চিনি আধা কাপ, তেল আধা কেজি, গুড় দেড় কাপ, লঙ্কা গুঁড়ো ২ চা চামচ, রসুন বাটা দেড় টেবিল চামচ, সরিষার তেল আন্দাজ মতো, সরিষা বাটা দেড় টেবিল চামচ, রসুন কোয়া ১০/১২টি, তেজপাতা ২টি, শুকনো লঙ্কা ৪/৫টি, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, পাঁচফোড়ন গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, ভিনিগার আধা কাপ।

প্রণালিচালতা টুকরা করে গরম জলে খুব ভালো করে সিদ্ধ করে ছেচে নিতে হবে। এবার প্যানে তেল দিয়ে তাতে রসুন, শুকনো লঙ্কা, পাঁচফোড়ন, তেজপাতা দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে চালতা দিতে হবে। এবার গুড় দিয়ে নাড়তে হবে। তাতে লঙ্কা গুঁড়ো , রসুন বাটা, সরিষা বাটা, পাঁচফোড়ন গুঁড়ো দিয়ে নাড়তে হবে। চিনি দিতে হবে। নামানোর আগে ভিনিগার দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

৬. আমলকী, রসুন ও আদার আচার

উপকরণ : আমলকী ৫০০ গ্রাম, রসুন ৫০ গ্রাম, আদা কুচি ১ টেবিল চামচ, নুন পরিমাণ মতো, চিনি ১ চা চামচ, জিরা ও ধনিয়া গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, হলুদের গুঁড়ো আধা চা চামচ, পাঁচফোড়ন গুঁড়ো ১ চা চামচ, কালো জিরা আধা চা চামচ, সরিষার তেল ৫০ গ্রাম, শুকনো লঙ্কা বাটা ১ চা চামচ, এলাচ ও দারুচিনি গুঁড়ো আধা চা চামচ, সরিষা বাটা ১ চা চামচ।

প্রণালিআমলকী জল ঝরিয়ে পাতলা কাপড় দিয়ে মুছে লম্বা চিকন করে কাটতে হবে। রসুনের খোসা ছাড়িয়ে ভালো করে কাপড় দিয়ে মুছে নিতে হবে। আদা ছিলে ধুয়ে ভালোভাবে মুছে নিয়ে কুচি করে কেটে নিতে হবে। ওভেনে একটি কড়াইয়ে তেল গরম করে তার মধ্যে কালো জিরা দিয়ে আমলকী, রসুন, আদা কুচি ও নুন দিয়ে ভালো করে নেড়ে পুরো মসলা গুঁড়ো ও চিনি দিয়ে ভালোভাবে কিছুক্ষণ নাড়তে হবে। এলাচ ও দারুচিনি গুঁড়ো দিতে হবে। তেল আচারের ওপর উঠে গেলে বোঝা যাবে আচার হয়ে গেছে। তখন নামিয়ে একটু রোদে দিয়ে বোয়ামে সংরক্ষণ করতে হবে।

৭. আমলকী ও তেঁতুলের আচার

উপকরণ : আমলকী ৫০০ গ্রাম, তেঁতুল ৫০ গ্রাম, সরিষার তেল ৫০ গ্রাম, নুন পরিমাণ মতো, চিনি ১ চা চামচ, জিরা ও ধনিয়া গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, কালো জিরা আধা চা চামচ, শুকনো লঙ্কা বাটা ১ চা চামচ, পাঁচফোড়ন গুঁড়ো ১ চা চামচ, সরিষা বাটা ১ চা চামচ।

প্রণালি :আমলকী ধুয়ে জল ঝরিয়ে পাতলা কাপড় দিয়ে মুছে একটু মোটা লম্বা করে কেটে নিতে হবে। তেঁতুল গুলিয়ে চালনি দিয়ে চেলে নিতে হবে। তার পর ওভেনে একটি পাত্রে তেল দিয়ে তেল গরম করে তাতে কালো জিরা দিয়ে আমলকী ও তেঁতুলের কাথগুলো দিয়ে তার মধ্যে নুন, চিনি ও পুরো মসলা গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে নেড়ে নিতে হবে। যখন তেল আচারের ওপর উঠবে তখনই বোঝা যাবে আচার হয়ে গেছে। তার পর নামিয়ে একটু রোদে দিয়ে বয়ামে সংরক্ষণ করতে হবে।

৮. তেঁতুলের টক মিষ্টি আচার

উপকরণ :তেঁতুল ২ কেজি, আখের গুড় দেড় কেজি, হলুদ গুড়া ২ চা চামচ, লঙ্কা গুঁড়ো ২ টেবিল চামচ, পাঁচফোড়ন গুঁড়ো ৩ টেবিল চামচ, সরিষার তেল ২ কাপ, নুন স্বাদমতো।

প্রণালি :তেঁতুলের ক্বাথ বের করে ছেকে নিন। এবার তাতে নুন ও হলুদ মিশিয়ে ছড়ানো বড় পাত্রে ঢেলে কড়া রোদে জল শুকিয়ে নিন। এবার এতে গুড় মেশান এবং আবার রোদে শুকাতে দিন। লঙ্কা গুঁড়ো ও পাঁচফোড়ন গুঁড়ো মেশান ধীরে ধীরে। প্রতিদিন ১ টেবিল চামচ সরিষার তেল দিন ওই মিশ্রণে এবং রোদে শুকান। তেঁতুলের জল শুকিয়ে আঠা হয়ে এলে পাত্রে তুলে সংরক্ষণ করুন।

৯. মাশরুমের আচার

উপকরণমাশরুম ২৫০ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, আদা বাটা ২ চা চামচ, সরিষা বাটা ১ চা চামচ, শুকনো লঙ্কা ভাজা গুঁড়ো আধা চা চামচ, শুকনো লঙ্কা ৩টি, নুন ২ চা চামচ,তেঁতুলের ক্বাথ ২ টেবিল চামচ, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, আচার মসলা ২ চা চামচ, ভিনেগার সামান্য, সরিষার তেল ১০০ মিলিলিটার, চিনি আধা কাপ।

প্রণালিমাশরুম টুকরো করে ধুয়ে ৮-১০ মিনিট গরম জলে ভিজিয়ে রাখুন। এরপর জল থেকে তুলে কাপড়ে মুছে শুকিয়ে নিন। কড়াইয়ে তেল গরম করে পাঁচফোড়ন দিন। পাঁচফোড়ন দিয়ে ফুটে উঠলে পেঁয়াজ কুচি, আদা, রসুন, সরিষা বাটা দিয়ে কষিয়ে মাশরুম দিন। মাশরুম সিদ্ধ হলে ভিনেগার, তেঁতুল, চিনি ও বাকি মসলা দিয়ে ফুটিয়ে নিন। ঠাণ্ডা হলে কাচের বোতলে ভরে সংরক্ষণ করুন।

১০. ক্যাপসিকাম ও কাঁচালঙ্কা

উপকরণ : ক্যাপসিকাম ১ কাপ, কাঁচা লঙ্কা ৪-৫টা, আমসত্ত্ব কাটা ১/২ কাপ, চিনি ১/৪ কাপ, ভাজা মসলার গুঁড়ো ১ চা চামচ, কালোজিরা ১ চা চামচ, নুন ১ চা চামচ, জলপাই/আম ১/২ কাপ, সরিষার তেল ১/২ কাপ, সরিষা বাটা ২ টেবিল. চামচ, আদা-রসুন বাটা ২চা চামচ।

প্রণালিতেল বাদে সব উপকরণ এক সাথে মাখিয়ে নিয়ে ১ ঘণ্টা রোদে দিন। এবার কড়াই-তে তেল দিয়ে তেলের মধ্যে সমস্ত মিশ্রণ কষিয়ে নিলেই তৈরী।

১১. জলপাইয়ের ঝাল আচার

উপকরণ : জলপাই ১ কেজি, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, নুন স্বাদমতো, লাল লঙ্কা ২ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, সরিষার তেল ১ কাপ, আচারের মসলা ১ চা চামচ, চিনি ২ টেবিল চামচ।

প্রণালিজলপাই সিদ্ধ করে চটকে নিন। কড়াইয়ে তেল গরম করে আধা চা চামচ পাঁচফোঁড়ন দিন। জলপাই সহ বাকি উপকরণ দিয়ে দিন। ভাজা হয়ে তেল ওপরে উঠলে নামান।

১২. আমড়ার ঝাল আচার

উপকরণ : আমড়া ১ কেজি, নুন স্বাদমত, সরিষা বাটা ২ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়ো ১ চা-চামচ, লঙ্কা গুঁড়ো ২ চা-চামচ, চিনি ৪ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, পাঁচফোড়ন লঙ্কা গুঁড়ো ১ চামচ, ভিনিগার আধা কাপ, সরিষার তেল আধা কাপ।

প্রণালি :প্যানে তেল দিয়ে পাঁচফোড়নের ফোড়ন দিয়ে সব মসলা দিয়ে কষিয়ে আমড়া দিয়ে ভালো করে কষিয়ে পাঁচফোড়ন গুঁড়ো দিয়ে নামাতে হবে। বৈয়ামে ভরে রোদে শুকাতে হবে।

১৩. জলপাইয়ের মিষ্টি আচার

উপকরণ : জলপাই ১ কেজি, নুন স্বাদমতো, চিনি আধা কাপ, পাঁচফোঁড়ন ১ চা চামচ, লঙ্কা গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, গুড় আধা কাপ, ভিনিগার আধা কাপ।

প্রণালিজলপাই পিস করে কেটে ৪-৫ ঘণ্টা জলে ভিজিয়ে রাখুন। এবার সব উপকরণ দিয়ে চুলায় জ্বাল দিন। জল শুকিয়ে এলে পাঁচফোঁড়ন ছিটিয়ে দিয়ে নামান। ঝাল-টক ইচ্ছামতো বাড়ানো যাবে।

১৪. আনারস টক ঝাল মিষ্টি

উপকরণ : আনারস ১টি, গুড় ২০০ গ্রাম, লঙ্কা ভাজা গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, পাঁচফোড়ন ভাজা গুঁড়ো ১ চামচ, জিরা ভাজা গুঁড়ো ১ চা চামচ, সরিষার তেল সিকি কাপ, নুন স্বাদমতো, ভিনিগার আধা কাপ, বিটনুন আধা চা চামচ, সোডিয়াম বেনজয়েট সিকি চামচ, ভিনিগার ১ টেবিল চামচ।

প্রণালিআনারস লম্বা টুকরা করে কাটুন। তেলে গুড় ও ভিনিগার মেশান। মিশে গেলে আনারস দিন। এরপর নুন ও বিটনুন দিন। ঘন হয়ে এলে ভাজা মসলা দিন। এরপর নামিয়ে সোডিয়াম বেনজয়েট ভিনিগার গুলিয়ে দিয়ে দিন। ঠাণ্ডা হলে বয়ামে রেখে কয়েক দিন রোদে দিয়ে সংরক্ষণ করুন।

১৫. পাঁচমিশালি ফলের আচার

উপকরণ : আমড়া, কামরাঙা, জলপাই ও আনারস আধা কাপ, আমলকী সিকি কাপ, আপেল আধা কাপ, নুন স্বাদমতো, ভিনিগার ১ কাপ, সরিষার তেল ১ কাপ, চিনি আধা কাপ, লঙ্কা গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, জিরা বাটা ১ চা চামচ, সরিষা বাটা ১ চা চামচ, পাঁচফোড়ন বাটা ১ চা চামচ, পাঁচফোড়ন আস্ত ১ চা চামচ, পাঁচফোড়ন, জিরা ও ধনে ভাজা গুঁড়ো ১ চা চামচ, সোডিয়াম বেনজয়েট সিকি চা চামচ।

প্রণালিফল ধুয়ে ছোট টুকরা করে নুন দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন এক ঘণ্টা। এরপর ভালো করে ধুয়ে এক দিন রোদে দিন। কড়াইয়ে তেল গরম করে পাঁচফোড়ন দিয়ে সব বাটা মসলা, লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে কষিয়ে ফল দিন। এবার ভিনিগার ও চিনি দিয়ে নাড়ুন। তেলের ওপর আচার উঠে এলে সোডিয়াম বেনজয়েট ভিনিগার গুলে দিন। ভাজা মসলা দিয়ে ঠাণ্ডা হলে কয়েক দিন রোদে দিন।

১৬.পাঁচমিশালি সবজি আচার

উপকরণ : শালগম আধা কাপ, ফুলকপি আধা কাপ, বাঁধাকপি আধা কাপ, বরবটি-গাজর টুকরা আধা কাপ, কাঁচা টমেটো আধা কাপ, মটরশুঁটি আধা কাপ, জিরা বাটা ১ চামচ, হলুদ সামান্য, সরিষা বাটা ১ টেবিল চামচ, বিটনুন আধা চা চামচ, জিরা-পাঁচফোড়ন-ধনে ভাজা গুঁড়ো ১ চা চামচ, তেঁতুলের মাড় সিকি কাপ, চিনি সিকি কাপ, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, নুন ১ চা চামচ, ভিনেগার আধা কাপ, লঙ্কা গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, আস্ত পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, পাঁচফোড়ন বাটা ১ চামচ, সরিষার তেল ৩০০ গ্রাম, সোডিয়াম বেনজয়েট আধা চা চামচ, ভিনিগার ১ টেবিল চামচ।

প্রণালিসবজি ছোট টুকরা করে কেটে ভাপ দিয়ে জল ঝরিয়ে এক দিন রোদে শুকান। কড়াইয়ে তেল গরম করে পাঁচফোড়ন দিন। এরপর একে একে সব বাটা মসলা, নুন, হলুদ, লঙ্কা দিয়ে ভালো করে কষিয়ে সবজি দিন। একটু নেড়ে ভিনিগার ও চিনি দিন। এবার তেঁতুলের মাড় দিয়ে ভালো করে কষান। আচার যখন তেলের ওপর উঠে আসবে, নামিয়ে সোডিয়াম বেনজয়েট ও ভিনিগার গুলে আচারে দিন। ভাজা মসলার গুঁড়ো দিন। ঠাণ্ডা হলে বয়ামে রেখে কয়েক দিন রোদে দিয়ে সংরক্ষণ করুন।

১৭. কাঁচা লঙ্কার আচার

উপকরণ : কাঁচা লঙ্কা ৫০টি, সরিষার তেল আধা কাপ, ভিনিগার আধা কাপ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়ো আধা চা-চামচ, কাঁচা লঙ্কা বাটা ২ চা-চামচ, চিনি আধা কাপ, নুন স্বাদমতো, লঙ্কা গুঁড়ো আধা চা-চামচ, পাঁচফোড়ন ১ চা-চামচ, তেঁতুল ১ টেবিল-চামচ।

প্রণালিতেল গরম করে এতে সব মসলা দিয়ে কষিয়ে নিন। তেঁতুল, ভিনিগার, চিনি ও নুন দিন। এরপর লঙ্কা দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে নামিয়ে ফেলুন।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon