Link copied!
Sign in / Sign up
5
Shares

অকালজাত শিশু বা অটিস্টিক শিশুর যত্ন: তারা কাঁদলে কী করা উচিত?


কান্না হলো আপনার শিশুর আপনাকে তার চাহিদাগুলো জানানোর মাধ্যম। এর অর্থ এটা মোটেই নয় যে আপনার লালন-পালনের কোনো ভুল ত্রুটি রয়েছে - এর অর্থ কেবলমাত্র এটাই যে হয়তো তারা উদাস, ক্ষুধার্ত, অতিরিক্ত উত্তেজিত, ভীত অথবা তাদের ডাইপার পরিবর্তনের প্রয়োজন। বাচ্চারা অনেক সময়েই কোনো কারণ ছাড়াই কাঁদতে পারে সুতরাং আপনার শান্ত এবং ইতিবাচক থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ।

অকালজাত শিশুরা কিছুটা জটিল হয়। তারা পরিপক্ক শিশুদের তুলনায় একটু অল্পেতেই বেশি হইচই করে এবং তাই, তাদের চারপাশে আমাদের একটু বেশিই শান্তভাবে কাজ করতে হয়। এরা Neonatal Intensive Care Unit (NICU) -এ অনেকটা সময় কাটায় এবং তাই এদের যখন বাড়িতে আনা হয়, এদের পক্ষে নতুন জায়গায় মানিয়ে নেওয়াটা একটু কঠিনই হয়। একজনের, বাড়িতে তুলনামূলভাবে একটু বেশিই নিস্তব্ধ লাগতে পারে এবং তাই, আপনকে বাড়িতে একটু হালকা ধরনের মিউজিক চালিয়ে রাখতে হতে পারে। এছাড়াও, সাধারণভাবে, বাড়িটাকে অতিরিক্ত নিস্তব্ধ রাখার চেষ্টা ক্ষতিকর হতে পারে কারণ এতে শিশুটি শান্ত পরিবেশে অভ্যস্ত হয়ে পড়তে পারে এবং পরবর্তীকালে ততক্ষণ ঘুমোতে পারবে না যতক্ষণ না বাড়িটা পুরোপরিভাবে নিস্তব্ধ হয়। এখানে রইল আরও কয়েকটি জিনিস যা আপনার অকালজাত শিশুটিকে শান্ত করার সময় আপনার মাথায় রাখা উচিত।


১. নিজে শান্ত হয়ে বাচ্চাকে শান্ত করুন

আপনার শিশুকে শান্ত করার আগে, আপনার নিজেকে শান্ত করা উচিত। আপনি এই ভেবে অবসাদগ্রস্ত হতে পারেন যে হয়তো আপনার মা বা নার্স আপনার থেকে বেশি অভিজ্ঞ এবং এবং আপনার মনে হতে পারে যে আপনি হয়তো এই কাজে ভালো নন। এইসব সময়ে শান্ত থাকাটা খুব জরুরি এবং সব সময়ে মাথায় রাখুন যে আপনি আপনার সেরাটাই দিচ্ছেন। যখনই আপনি অবসাদগ্রস্ত বা চিন্তিত হয়ে পড়ছেন, আপনার সন্তান কিন্তু সেটা বুঝতে পারবে এবং সে নিজেও মর্মাহত হয়ে পড়বে।


২। মূল কারণটা খুঁজে বের করুন

যখনই তারা কান্নাকাটি করছে, আগেই সবথেকে সম্ভাব্য লক্ষণগুলো খেয়াল করুন যার জন্য তারা কাঁদতে পারে - যদি তারা ভিজে গিয়ে থাকে, তাদের মুছিয়ে দিন এবং শুকনো হতে দিন। যদি তাদের ঠান্ডা মনে হতে, তাদেরকে গরম কাপড়ে ঢেকে দিন। যদি তাদেরকে ক্ষুদার্ত মনে হয়, তাদের খাইয়ে দিন। যদি তাদের নিদ্রালু বা ক্লান্ত মনে হয়, তাদের ঘুম পাড়িয়ে দিন। তারা শুধুমাত্র আপনার মনোযোগ এবং স্নেহ পাওয়ার জন্যেও কান্নাকাটি করতে পারে, যদিও অকালজাত শিশুদের ক্ষেত্রে এই অনুভূতিগলো জন্মাতে সময় লাগে। এছাড়া যদি আপনি তাদের সাথে অনেকক্ষণ ধরে আছেন তাহলে তারা এই জন্যে কাঁদতে পারে যে তারা হয়তো একটু একলা থাকতে চায়।


৩. অকারণ হইচই বলে কিছু হয় না

অতিরিক্ত কান্নাকাটি নিয়ন্ত্রণ করার একটা উপায় মোটেই সেটাকে অকারণ হইচই বলে চালিয়ে দেওয়া নয়। এটাকে একপ্রকার অস্বস্তি বলা চলে। তারা হয়তো একটু অতিষ্ঠ হতে উঠেছে কারণ তাদের স্বস্তির ছোট্ট জগৎটি কোনো কারণে ভেঙ্গে পড়েছে এবং এখন তারা সেটাকে ঠিক করতে চাইছে। সদ্যজাত শিশুদের কেঁদে ওঠা ছাড়া আপনার সাথে যোগাযোগের অন্য কোনো মাধ্যম নেই। সুতরাং, নিজে শান্ত থাকুন এবং আপনার সন্তানকে শান্ত করুন।

৪. এই হইচই হয়তো তাদের স্বাস্থের প্রতিফলক হতে পারে

যদিও গবেষণা দেখাচ্ছে অকালজাত শিশুরা পরিপক্ক শিশুদের থেকে বেশি হইচই করে, তবুও এদের দুজনকে তুলনা করা ত ঠিক নয়। অকালজাতরা, আসলে, উন্নতি ও বিকাশের দিক থেকে পরিপক্ক শিশুদের তুলনায় একটু পিছিয়ে থাকে। অকলজাত এবং অপরিপক্ক শিশুরা ঠিক হতে একটু বেশি সময় নেয় এবং তাই একটু বেশিই খিটখিটে বা সংবেদনশীল হয়।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon