Link copied!
Sign in / Sign up
6
Shares

৭ টি পানীয় যা গর্ভাবস্থায় আপনার এড়িয়ে যাওয়া একদমই উচিত নয়


আপনি হয়তো ইতিমধ্যেই শুনেছেন - গর্ভাবস্থায় সঠিক খাদ্যাভ্যাস আপনার এবং আপনার সন্তান দুজনের জন্যেই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যে ধরনের খাদ্য বা পানীয় আপনি খাচ্ছেন তার বিপুল পরিমাণ প্রভাব পড়ে আপনার সন্তানের স্বাস্থের ওপরে সুতরাং এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে আপনি বুঝুন কাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে এবং জাঙ্ক ফুডগুলিকে কেবলমাত্র তখনকার জন্য বাঁচিয়ে রাখুন যখন সেগুলো খাওয়ার প্রবল আকাঙ্খা হবে।

এবং অবশ্যই, শুধুমাত্র সলিড ফুড খেয়ে নিশ্চয়ই আপনি সারাদিনটা কাটাবেন না (আপনি কি চাইবেন আপনার গলা শুকিয়ে যাক, চাইবেন কি?)। এখানে রইল কিছু পানীয়ের কথা যেগুলো কেবল সুস্বাদুই নয় কিন্তু আপনার গর্ভাবস্থায় খুব উপকারীও।


১. ডাবের জল

গর্ভাবস্থায়, মাঝে মাঝেই ক্লান্ত এবং অবসন্ন বোধ করাটা খুবই সাধারণ ব্যাপার। আপনি হয়তো লক্ষ্য করবেন যে আপনি কোনো কায়িক পরিশ্রম না করা সত্ত্বেও একটু বেশিই ঘামছেন। এরফলে আপনার শরীরে ইলেক্ট্রোলাইট এবং নুনের ঘাটতি দেখা দেয় যা ডাবের জল সহজেই দূর করে। এটা আপনকে তাজা রাখে এবং সব পরিস্থিতিকে মোকাবিলা করার জন্য তৈরি রাখে।

২. জলজিরা

এই টক মিষ্টি পানীয়টি আপনার জিভে স্বাদ জাগানোর পাশাপাশি বদহজম এবং স্ফীতি সমস্যাতেও বিষ্ময়কর কাজ করে। এটা এমনকি আপনার প্রাতঃকালীন অসুস্থতা দূর করে এবং সঙ্গে সঙ্গে আপনার মনকে ভালো করে দেয়। সুতরাং, আপনি যদি আপনার স্বদকোরকগুলোকে আনন্দ দেওয়ার জন্য কিছু খুঁজছেন, এটা আপনার জন্য একদম উপযুক্ত।


৩. ঘোল

গরমের দিনে এক গ্লাস ঘোল বা লস্যির থেকে ভালো কিছু হতেই পারে না। এটা বিভিন্ন উৎসেচক, ভিটামিন বি১২, ক্যালসিয়াম এবং প্রোটিনে ভরপুর থেকে যার আপনার শরীরের ওপর কেবল ইতিবাচক প্রভাবই রয়েছে। এইজন্যেই প্রতিদিন খাবারের পর অন্তত এক গ্লাস করে ঘোল খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয় কারণ এটা আপনার শরীরকে হাইড্রেটেড্ এবং সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

৪. লেবু জল

নিম্বুপানি নামে বিখ্যাত এই পানীয়টির অনেক উপকারিতা রয়েছে যা আমরা আগেই আলোচনা করেছি। কিন্তু তার একটা ছোট্ট সারাংশ হলো, এটা আপনার দেহে আয়রনের পরিমাণ বাড়ায়, প্রাতঃকালীন অসুস্থতায় সাহায্য করে এবং দীর্ঘক্ষণ আপনাকে তেষ্টা মুক্ত রাখে। যদি শুধু শুধু লেবু জল আপনার ভালো না লাগে, তবে এতে একটু আদা বা মিন্ট্ পাতা যোগ করে নতুনত্ব আনতে পারেন।


৫. ফলমূল এবং শাকসবজির রস

এটা খানিকটা স্বাভাবিকই। আপনার প্রয়োজনীয় সমস্ত রকমের পরিপোষক এবং খনিজ পদার্থ আপনি ফলমূল ও শাকসবজি থেকে পেতে পারেন। রান্না করে খাওয়া ছাড়াও, তাদেরকে আপনার প্রাত্যহিক খাওয়ারে যোগ করার আর একটা রাস্তা হলে তাদের একসাথে মিশিয়ে একটা ঘন স্মুদি বানানো। কিন্তু খেয়াল রাখবেন একসাথে ভালো লাগে এরকম ফলমূল বা শাকসবজিই মেশাবেন নাহলে বিস্বাদ কিছু একটা তৈরি করে ফেলতে পারেন আপনি।

৬. হার্বাল টি

তুলসী টি, মিন্ট্ টি, চ‍্যামোমাইল টি এবং এই ধরনের অন্যান্য চা গর্ভাবস্থায় আপনার জন্যে খুবই ভালো। এগুলো আপনার প্রাতঃকালীন অসুস্থতা, মাথাব্যাথা, বমি বমি ভাব, হজম, ফাঁপা ভাব, বুকে জ্বালা ভাব - এ খুব ভালো কাজ করে। আপনি আপনার নিজের ইচ্ছে মতন গ্রীন টি- এর বিভিন্ন ফ্লেভার চেখে দেখতে পারেন।


৭. আম পান্না

আম পান্না হলো কাঁচা আম দিয়ে তৈরি একটা পানীয় কিন্তু আপনি কাঁচা বা পাকা যেকোনো ধরনের আম বাছতে পারেন। এটা আপনার ডিহাইড্রেশন দূর করেন এবং যদি আপনি গ্রীষ্মকালে গর্ভধারণ করেছেন তাহলে আপনাকে আমের জন্যে বা এই পানীয়টির জন্যে বেশি দূরে দৌড়োদৌড়িও করতে হবে না।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon