Link copied!
Sign in / Sign up
4
Shares

৫ বছরের একজন সরল সাধাসিধে বাচ্চা মেয়ে গর্ভধারণ করেছিল, কি রহস্য এর পেছনে?


আজ, আমরা এমন জিনিস সম্পর্কে আপনাকে বলবো যে আপনি শুনলেও বিশ্বাস করবেন না। এই ৫ বছরের বাচ্চা মেয়ের গল্প, যে এখনও সেভাবে কোনো ক্ষমতা অর্জন করেনি। তবুও, এই বাচ্চা মেয়ে তার বাচ্চার ডাইপার পরিবর্তন করে। পুতুল নিয়ে খেলা করার পাশাপাশি এই শিশুও তার একটি অংশ হয়ে উঠেছে

এটি লিমা নামক ৫-বছর-বয়সী মেয়েটির গল্প, যে পেরুতে ২৭ শে ডিসেম্বর, ১৯৩৩ সালে জন্মগ্রহণ করে। আপনার তথ্যের জন্য বলি লিমা পারকোসিস নামে একটি রোগে আক্রান্ত হয়েছিল। এই রোগে, মানব শরীর আগাম উন্নত হয়ে ওঠে। এই অসুস্থতা ধরা পড়তে লিমার ৮ মাস বয়সে মাসিক হয়ে যায়।

৪ বছর বয়সে, লিমার স্তন বড় হয়ে ওঠে। যখন লিমার ৫ বছর বয়স, তার পেট বড় হয়ে যায়, এবং তার মা বিরক্ত হয়ে পড়ে। তার মা লিমাকে জিগেশ করেন যে কি ঘটছে। লিমার মা নিজেও জানতেন না যে মেয়ে এই রোগে আক্রান্ত। তিনি ভাবেন যে লিমার হয়তো কোনো টিউমার হয়েছে। যখন তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়, তখন ডাক্তার বলেছিলেন যে লিমা ৮মাসের অন্তঃসত্ত্বা। ডাক্তার ৮মাস হয়ে যাওয়ার কারণে এই সন্তানকে জন্ম দেওয়ার পরামর্শ দেন; এছাড়া আর কোনো পথ ছিলনা. লিমা ১৪ই নভেম্বর, ১৯৩৯ সালে একটি সুস্থ শিশুকে জন্ম দেয়। এটি প্রকৃতির একটি অলৌকিক ঘটনা যে লিমা মা হয়ে ওঠে।

যখনই লিমাকে তার সন্তানের বাবা কে তা জিজ্ঞাসা করা হয়, সে সবসময় বলে যে সে প্রতারিত হয়েছে। যাইহোক, আপেক্ষিক ভাবে লিমার বাবাকে গ্রেফতার করা হয় কিন্তু প্রমানের অভাব থাকার জন্যে  ছেড়েও দেওয়া হয় । লিমার বাবা অবশ্য আর ঘরে ফেরেননি এবং তিনি কথায় যান কেউ জানে না. তাই আজও রহস্য যে লিমার সন্তানের বাবা কে?

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon