Link copied!
Sign in / Sign up
60
Shares

১ বছরের বেশি বয়সী শিশুর জন্য সহজ, স্বাস্থ্যকর ৭টি রেসিপি


১২ মাসের মধ্যে, আপনার শিশু ইতিমধ্যেই বড়ো হয়ে উঠেছে, যার অর্থ তার শরীরটি বিভিন্ন ধরনের খাবার পরিচালনা করতে পারে। এটি ভালভাবে রান্না করুন, এবং আপনার শিশুর পছন্দগুলিকেও মনে রাখা উচিত। ১২ মাস বয়সে, যদি এখনও শক্ত খাবার খেতে না পারে, তবে খাওয়ানোর পূর্বে এটি নরম করে নিন। কিন্তু পিউরি করবেন না । নিচের তালিকাভুক্ত কোন খাবারের চেষ্টা করার আগে পরিবারের চলমান এলার্জি বিবেচনা করা আবশ্যক।

এখানে কিছু রেসিপি …...

প্রাতরাশ বা সকালের জলখাবারের জন্য

সুজির উপমা

উপকরণ:

সুজি ১- ১/২ কাপ

২. গাজর (১টা ছোট ) ১/৪ ইঞ্চি মাপে ছোট টুকরো করে সেদ্ধ

৩. বিন্স (৬-৮) ১/৪ ইঞ্চি মাপে ছোট টুকরো করে সেদ্ধ

৪. কড়াইশুঁটি সেদ্ধ (১/৪ কাপ)

৫.সবুজ ক্যাপসিকাম ১টা ছোট

৬.পেঁয়াজ ১টা ছোট

৭.কাঁচা লঙ্কা ২টি

৮. অল্প আদা

৯. অলিভ অয়েল (২ চামচ)

১০. সর্ষে (১/২ চা চামচ)

১১. কারিপাতা ১৫ -২০ টা

১২. অড়হর ডাল (২ চা চামচ)

১৩. নুন স্বাদ মতো

প্রণালী:

১. পেঁয়াজ, কাঁচা লঙ্কা এবং আদা কুচি করে নিন। একটি অন্য পাত্রে অতিরিক্ত অলিভ অয়েল গরম করে সর্ষে বীজ, আদা, কারিপাতা এবং অড়হর ডাল দিন, এবং এক মিনিটের জন্য হালকা করে ভাজুন।

২. পেঁয়াজ দিয়ে ২ মিনিট ভাজুন। অন্য একটি পাত্রে ৩ কাপ জল গরম করুন যখন পেঁয়াজ হালকা ভাজা হবে, তখন সুজি মেশান ও ২-৩ মিনিট ভাজুন।

৩. কাঁচালঙ্কা, নুন যোগ করে, মিশিয়ে নিন। ক্যাপসিকাম কুচি করে রাখুন।

৪. পাত্রে গরম জল মেশান এবং যতক্ষণ না জলের বেশিরভাগ অংশ শোষিত হয় ততক্ষণ রান্না করুন। গাজর, বিন্স, মটরশুটির মিশ্রণ যোগ করুন এবং ঢাকা দিয়ে ১-২ মিনিট জন্য রান্না করুন।

৫. ক্যাপসামাম মিশিয়ে ঢাকা দিন এবং সমূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন। এবং গরম পরিবেশন করুন।

৬. আপনার ইচ্ছে হলে ধনেপাতা এবং নারিকেল কোৱা দিয়ে পরিবেশন করতে পারেন।

আলুর পরোটা

আলুর পুরের জন্য :

১. বড়ো আলু ২টো, সেদ্ধ করে খোসা ছাড়ানো

২. আদা বাটা ১ চা চামচ

৩. লঙ্কা গুঁড়ো ৩/৪ চা চামচ

৪. ধনেগুঁড়ো ১/২ চা চামচ

৫. নুন স্বাদ মতো

৬.গরম মসলা ১/৪ চা চামচ

৭. ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ

৮. আমচুর গুঁড়ো ১/২ চা চামচ

৯. জোয়ান ১/৪ চা চামচ

মাখা ময়দার তালের জন্য

১. ১ কাপ আটা বা ময়দা

২. নুন স্বাদ মতো

৩. ১ চা চামচ তেল বা ঘি

৪.জল

৫. শুকনো আটা বা ময়দা

৬. ভাজার জন্য তেল বা ঘি

প্রণালী:

মনেরাখুন ১ কাপ = ২৫৫ মিলিঃ

আলুর পুর:

১টি পাত্রে সেদ্ধ আলু নিন, এবং ওপরে উলেখিত সব উপকরণ গুলি আলুর সাথে ভালোভাবে মেখে নিন।

ময়দা মাখার জন্য:

১টি বাটিতে আটা বা ময়দা নিন, এবং নুন মেশান। আবার জল দিয়ে ভালোভাবে মাখুন। এবার মাখা ময়দার ওপরে তেল মাখিয়ে রেখে দিন ২০ মিনিটের জন্য।

আলুপরোটার রেসিপি:

ময়দা থেকে ছোট লেচি কেটে নিন, হাত দিয়ে ছোট লেচির মধ্যে বাটির মতো আকার দিন। আবার তার মধ্যে আলু মাখার পুর ভোরে চারদিক থেকে মুখ বন্ধ করে গোল বলের মতো করে নিন, শুকনো ময়দা ছড়িয়ে ধীরে ধীরে বেলে নিন। এবার চাটুতে শুকনো পরোটা সেঁকে নিন এবং পরে তেল বা ঘি ছড়িয়ে ভেজে নিন। সস, রায়তা বা আঁচারের সাথে গরম পরিবেশন করুন।

 

দুপুরের খাবার

মাছের ঝোল ও ভাত

উপকরণ:

মনেরাখবেন আমেরিকান পরিমাপ, ১ কাপ=২৫০ মিলিঃ

১. পমফ্রেট মাছ ৫টি

২.নারকেল করা ১/২

৩. পেঁয়াজ কুচু ২টো (১ টা ঝোলের জন্য ও বাকিটা পেস্ট )

৪. কাঁচালঙ্কা ৭টি (৫টি পেস্ট ও বাকিটা ঝোলে)

৫. হলুদ ২চা চামচ

৬. গোটা ধোনে ২- ১/২ চা চামচ

৭.আদাকুচি ১ ইঞ্চি

৮. রসুন ১২ কোয়া

৯. ধনেপাতা ১- ১/২ কাপ (১কাপ পেস্ট ও বাকিটা ঝোলের)

১০. জিরে ১ চা চামচ

১১. কারিপাতা ১৪টা

১২. কাঁচা আম ১টা টুকরো করা

১৩. টমেটো ১/২

১৪. তেল ৩ চা চামচ

১৫. নুন স্বাদ মতো

১৬. জল ২ কাপ

উপকরণ:

পমফ্রেট মাছ কেটে, ভালোকরে ধুয়ে, নুন মাখিয়ে রেখে দিন। ব্যবহার করার আগে আবার ধুয়ে নেবেন।

ধনেপাতা, নারকোল কোৱা, পেঁয়াজ, ৫টি কাঁচা লঙ্কা, রসুন, ধোনে, জিরে, ও হলুদ এক সাথে বেটে নিন এবং একটি পেস্ট বানিয়ে নিন। একটি বড় পাত্র নিয়ে তাতে তেল দিন ও গরম করুন। তেল গরম হলে তাতে কারিপাতা ও পেঁয়াজ কুচি দিন, ২ মিনিট ভাজুন। কাঁচা আম, টমেটো, ধনেপাতা, ও কাঁচা লঙ্কা দিন। এবার যে পেস্টটি বানিয়ে রেখেছিলেন সেটি মেশান ও জল দিন। ৫ মিনিট রান্না করুন যতক্ষণ না ফুটছে। এবার মাছ ও নুন দিন, এবং বাকি থাকা ধনেপাতা দিয়ে দিন। ঢাকা দিয়ে অল্প আঁচে ১০ মিনিট রেখে দিন। এটি সাধারণত গোয়া অঞ্চলের রান্না। ভাতের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন।

 

মাইসোরের মসলা ধোসা

১. চাল ৩ কাপ

২. অড়হর দল ১ কাপ

৩. একমুঠো ছোলার ডাল

৪.একমুঠো মুগডাল

৫. মেথি বীজ ১/২ চা চামচ

৬. ১কাপ চেড়ে

৭. সুজি ২ চা চামচ

৮. চিনি ১চা চামচ

৯. নুন ১চা চামচ

প্রণালী:

প্রথমে চাল, মেথি, মুগ ডাল, ছোলার ডাল, একটি পাত্রে নিয়ে ৪ থেকে ৬ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। এবং অন্য একটি পাত্রে অড়হর দল ৩ -৪ ঘন্টা ভেজান। চিরেটি ১/৪ কাপ জলে ভিজিয়ে রাখুন।

প্রথমে অড়হর ডালটি ভালো করে বেটে নিন, এবং পরে চাল, মেথি, মুগ ডাল, ছোলার ডাল বেটে এক সাথে মিশিয়ে নিন। এই ব্যাটার ৮-৯ ঘন্টা ঢাকা দিয়ে রেখে দিন ফার্মেন্ট এর জন্য

উপকরণ:

১.সেদ্ধ আলু ৪টি

২. পেঁয়াজ কুঁচি ১টা

৩, কাঁচা লঙ্কা কুঁচি ১ টা

৪. আদা কুচি ১ ইঞ্চি

৫. শুকনো লঙ্কা ১ টা

৬.জিরে ১চা চামচ

৭. সর্ষে ১চা চামচ

৮. অড়হর ডাল ১চা চামচ

৯. চলার ডাল ১চা চামচ

১০. হলুদ ১/২চা চামচ

১১. হিং ১ চিমটে

১২. কিছু করি পাতা

১৩. লেবুর রস ২চা চামচ

১৪. কিছু ধনেপাতা কুচি

১৫. তেল ২চা চামচ

১৬. নুন স্বাদ মতো

প্রণালী:

সেদ্ধ আলুর খোসা ছাড়িয়ে নিন. আবার প্যানে তেল গরম করে জিরে, সর্ষে, ড়হর ডাল, শুকনো লঙ্কা এবং ছোলার ডাল দিন। হালকা ভেজে কারিপাতা ও হিং মেশান। এবার পেঁয়াজ কুচি মেশান ও রং না বদলানো পর্যন্ত ভাজুন। আদা কুচি আর কাঁচা লঙ্কা দিন ও তার সাথে সেদ্ধ আলু এবং নুন ও হলুদ দিয়ে ভালোভাবে মেশান। অল্প জল দিয়ে ৩ -৪ মিনিট রান্না করুন। লেবুর রস ও ধনেপাতা ছড়িয়ে মিশিয়ে নিন।

মশলা ধোসা বানানোর পদ্ধতি:

আগের তৈরী করা ব্যাটার তীর মধ্যে নুন, অল্প চিনি ও সুজি মেশান। চাটু গরম করে ব্যাটার ছড়িয়ে দিন, এবং ওপর থাকে তেল ছড়িয়ে দিন। ধোসা অর্ধেক তৈরী হলে আলুর পুর ধোসার মাঝে দিন ও ধোসা মুরে নারকোল চাটনির সাথে পরিবেশন করুন।

 

রাতের খাবার

পনির পরোটা

উপকরণ:

১. ঘষে নেওয়া পনির ২ কাপ

২. কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো ১/২চা চামচ

৩. গরম মসলা ১/২চা চামচ

৪. নুন

৫. আদা বাটা ১ ইঞ্চি

৬. অল্প ধনেপাতা কুচি

৭. আমচুর পাউডার ১/২ চা চামচ

ময়দা মাখার জন্য:

১. ময়দা ১ কাপ

২.নুন

৩. ঘি ১চা চামচ

৪. জল

৫. শুকনো ময়দা ১/৪ কাপ

৬. ভাজার জন্য ঘি

প্রণালী:

পনিরের পুর:

১টি বাটিতে পনির নিয়ে তাতে লঙ্কা গুঁড়ো, গরম মসলা, আমচুর গুঁড়ো, নুন, আদা বাটা, আর নুন মেশান।

ময়দা মাখা:

১টি বাটিতে ময়দা নিয়ে নুন দিয়ে মেখে নিন, ও অল্প তেল ওপর থেকে ছড়িয়ে রেখে দিন।

পরোটা তৈরী:

মাখা ময়দা থেকে ছোট ছোট লেচি কেটে তার মধ্যে পনিরের পুর ভোরে নিন। অল্প ময়দা ছড়িয়ে রুটির মতো বেলে নিন। চাটু গরম করে আগে শুকনো ভেজে নিয়ে পরে ঘি দিয়ে ভাজুন। সস, রায়তা, বা আচারের সাথে পরিবেশন করুন।

 

রুটি ও ঢেঁড়সের তরকারি

উপকরণ:

১. তেল ২চা চামচ ভাজার জন্য

২. ঢেঁড়স, ১.৫ ইঞ্চি করে কাটা

৩. ঝোলের জন্য ২চা চামচ তেল

৪. জিরা ১চা চামচ

৫.আদা রসুন পেস্ট ১চা চামচ

৬. মাঝারি পেঁয়াজ কুচি

৭. কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো ১চা চামচ

৮. হলুদ ১/২চা চামচ

৯.ধনে গুঁড়ো ১চা চামচ

১০.গরম মসলা ১/২চা চামচ

১১. টমেটো বাটা ১ কাপ

১২. কাজু বাটা ১/৪ কাপ

১৩. জল

১৪.নুন

১৫. ধনেপাতা কুচি ১ মুঠো

প্রণালী:

কড়াইতে তেল গরম করে ঢেঁড়স হালকা করে ভেজে তুলে নিন। আবার অল্প তেল দিয়ে জিরে, আদা রসুন বাটা, পেঁয়াজ, ভেজে নিন। লঙ্কা গুঁড়ো, হলুদ, গরম মসলা, ধনে গুঁড়ো মেশান। অল্প আঁচে কিছুক্ষন ভাজুন। আবার টমেটো পেস্ট মেশান, ও ঘন করুন। এবার কাজুবাটা, নুন ও জল দিয়ে ফুটতে দিন। ফুটে উঠলে ভাজা ঢেঁড়স মেশান ও ৫ মিনিট রান্না করুন। ওপর থেকে ধনেপাতা ছড়িয়ে রুটি বা ভাতের সাথে গরম পরিবেশন করুন।

মুখরোচক খাবার

কলার জুস্

উপকরণ:

১. খোসা ছাড়ানো ও ভাপানো আলমন্ড ৪চা চামচ

২. কলা ১কাপ মতো

৩. ঠান্ডা দুধ ১- ১/২ কাপ

৪. চিনি ২চা চামচ

৫. ভ্যানিলা এসেন্স ১/২চা চামচ

৬. বরফের টুকরো ৪-৬টা

প্রণালী:

আলমন্ড, কলা, ও দুধ ব্লেন্ডারে দিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করোনিন। চিনি ও ভ্যানিলা এসেন্স মেশান। গ্লাসে ঢেলে ওপর থেকে বরফ দিয়ে পরিবেশন করুন।

Click here for the best in baby advice
What do you think?
0%
Wow!
0%
Like
0%
Not bad
0%
What?
scroll up icon